মহিলা অঙ্গন

বিবাহিত জীবনে যে বিষয়গুলো এড়িয়ে চলা উচিৎ আপনার…

শীর্ষবিন্দু নিউজ ডেস্ক: অ্যারেঞ্জ ম্যারেজ হোক বা লাভ ম্যারেজ, বিয়ের কিছুদিন পর থেকেই কমতে থাকে ভালবাসা। শুরু হয় অশান্তি। আর অধিকাংশ ক্ষেত্রেই দেখা যায় দাম্পত্য যৌন জীবন মসৃণ না হওয়ার জন্যই ক্রমশ দুরত্ব বাড়তে থাকে স্বামী স্ত্রীর মধ্যে। জীবনে শান্তি ফেরাতে গেলে সচল করতে হবে দাম্পত্য যৌন জীবনকে।

কিন্তু এমন কিছু কারণ রয়েছে যার ফলে আপনার অন্তরঙ্গ মুহুর্ত, যৌনপদ্ধতি নেতিবাচক ভাবে প্রভাবিত হতে পারে। অনেক সময় আপনার স্বামী বা স্ত্রীয়ের আপনার প্রতি অনিহা অন্য কোনও ব্যক্তির প্রতি প্রেম নাও হতে পারে। কিন্তু সেটা আপনি বুঝতে পারেন না। কিছু অভ্যাস বা বলা ভাল বদ অভ্যাসের কারণে আপনার যৌন জীবন প্রভাবিত হতে পারে। আর তার জন্য এই ১০টি জিনিস এড়িয়ে চলা প্রয়োজন

১. অতিরিক্ত চাপ:

আজকাল কাজের চাপ জীবনের সবচেয়ে বড় সমস্যা। অফিসের চিন্তা অফিসে রাখুন। বাড়ি ঢোকার আগে একটা লম্বা নিঃশ্বাস নিন, তারপর সমস্ত চাপ দরজার বাইরে রেখে ভিতরে ঢুকুন। যদি মাথায় অতিরিক্ত চিন্তা, চাপ থাকে তাহলে কিছুতেই আপনি আপনার সঙ্গী বা সঙ্গীনীর যৌন চাহিদা পূরণ করতে পারবেন না।

২. ঘুম:

প্রত্যেক মানুষের রাতে ৮ ঘন্টার ঘুম প্রয়োজন। ঘুমটা যদি সময়মতো হয় তাহলে আপনার শরীরেও স্ফূর্তি থাকবে। কিন্তু ঘুম ঠিক মতো না হলে শরীর ভিতর ভিতর অস্থির হতে থাকবে। খাওয়া থেকে শরু করে যৌন মিলনেও অনীহা তৈরি হবে।

৩. অযথা তর্ক:

মাথা গরম করে কোনও তর্ক বা আলোচনা করবেন না। তাতে সমস্যার সমাধান বেরয় না, বরং পরিস্থিতি আরও হাতের বাইরে চলে যায়। পরিস্থিতি বুঝে একজনের চুপ করে যাওয়াটাই শ্রেয়। নইলে বাড়ির পরিবেশ নষ্ট হবে। আর এই ধরণের মানসিকতা ও পরিবেশে সুখকর মিলন কখনওই সম্ভব নয়।

৪. ঋতুচক্রের সময়:

ডিম্বোস্ফোটনের সময় একজন মহিলার যৌন মিলনের চাহিদা শিখরে থাকে। এই সময় স্ত্রীর মন বুঝে চলার চেষ্টা করুন।

৫. ওষুধ বিভিন্ন:

অসুখবিসুখেই আমরা একাধিক ওষুধ খেয়ে থাকি। অতিরিক্ত ওষুধের ফলে শরীরে ‘কেমিক্যাল ইম্বাল্যান্স’ তৈরি হতে পারে। এর ফলে আপনার যৌন মিলনের চাহিদা ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে।

৬. পরিবার:

পরিবারের সঙ্গে সময় কাটানো অত্যন্ত জরুরি। কিন্তু অনেক যৌথ পরিবারেই দেখা যায়, পরিবারের সঙ্গে সময় কাটাতে কাটাতে আর দাম্পত্য জীবনের সুখ নেওয়া হয়ে ওঠে না। তাই যত ব্যস্ততাই থাক একে অপরের জন্য সময় অবশ্যই বের করুন। এমনকী সন্তান হয়ে যাওয়ার পরেও স্বামীর সঙ্গে সময় কাটানোর চেষ্টা করুন।

৭. খাবার:

ভুল খাবারদাবার বা ডায়েটের জন্য আপনার লাভ লাইফ কিন্তু ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। এমন কিছু খাবার আছে যা আপনার যৌন চাহিদার হ্রাস ঘটায়। যেমন ধরুন ভাজাভুজি এবং বিনস জাতীয় খাবার পেট খারাপ করে, এবং হরমোন চালনাশক্তিকে ব্যহত করে।

৮. প্রযুক্তি:

আমরা ভাবি প্রযুক্তি আমাদের জীবনকে কত সহজ করে দিয়েছে। নতুন নতুন অ্যাপস আসায় আমরা অধিকাংশ সময় নয় ফোন, নয় ট্যাব, নয় ল্যাপটপেই আটকে থাকি। ফলে একে অপরের সঙ্গে সময় কাটানোর সময় কই।

৯. ধূমপান:

ধূমপান শুধু যে আপনার ফুসফুসকে ক্ষতিগ্রস্ত করে তা না, আপনার যৌন চাহিদাকেও একটু একটু করে শেষ করে দেয়। সিগারেটে উপস্থিত নিকোটিন আপনার যৌন উত্তেজনাকে ক্রমশ প্রশমিত করে। ফলে আপনার যৌন জীবনে তার প্রভাব পড়ে।

১০. পর্নোগ্রাফি:

আপনি যদি ভেবে থাকেন অতিরিক্ত পর্নো ছবি দেখলে আপনার যৌন উত্তেজনা বাড়বে এবং আপনি আপনার সঙ্গিনীকে সন্তুষ্ট করতে পারবেন তাহলে আপনার ভুল ধারণা। অতিরিক্ত পর্নো ছবি দেখার ফলে ডোপেমিনের উদ্দীপনা বেড়ে যায়। আর এটা যদি বারবার হতে থাকে তাহলে তা আপনার মস্কিষ্ককে প্রভাবিত করে।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

আরও দেখুন...

Close
ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close