লন্ডন থেকে

দেশে ফেরার পথে যাত্রা বিরতীতে লন্ডনে পৌছেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

শীর্ষবিন্দু নিউজ: জাতীসংঘের সাধারণ অধিবেশনে যোগদান শেষে দেশে ফেরার পথে যাত্রা বিরতীতে লন্ডনে এসে পৌছেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। লন্ডন স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার রাত ৬টা ১০ মিনিটে ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের বিএ-১৭৮ ফ্লাইটে লন্ডনের হিথ্রো বিমান বন্দরে এসে পৌঁছান তিনি।

এ সময় তাকে স্বাগত জানান, বর্তমানে লন্ডনে অবস্থানরত জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী, জনপ্রশাসন মন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম, বাংলাদেশের হাইকমিশনার মোহাম্মদ আব্দুল হান্নান, যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সভাপতি সুলতান শরীফ, সেক্রেটারি সাজিদুর রহমান ফারুক সহ অনেকে।

বিমান বন্দর থেকে প্রধানমন্ত্রী সরাসরি চলে আসেন সেন্ট্রাল লন্ডনের ক্লারিজ হোটেলে। হোটেলের সামনে উপস্থিত আওয়ামীলীগ ও বিভিন্ন সহযোগী সংগঠনের প্রায় দুই শতাধিক নেতাকর্মী প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানান। যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ ফারুক জানান, প্রধানমন্ত্রী আজ লন্ডনে অবস্থান করে আগামী কাল বিকেলের ফ্লাইটে দেশে ফেরার কথা রয়েছে।

হোটেলের সামনে নেত্রীকে স্বাগত জানাতে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগের সভাপতি সুলতান মাহমুদ শরীফ, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাজিদুর রহমান ফারুক, সহ সভাপতি জালাল উদ্দিন, শামসুদ্দিন মাষ্টার, যুগ্ম সম্পাদক নঈম উদ্দিন রিয়াজ, মারুফ চৌধুরী, আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক সাজ্জাদ মিয়া, আবদুল আহাদ চৌধুরী, দপ্তর সম্পাদক শাহ শামীম আহমদ, মানবাধিকার সম্পাদক সারব আলী, ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান হাবিব।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন, লন্ডন মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি নুরুল হক লালা মিয়া, সাধারণ সম্পাদক আলতাফুর রহমান মোজাহিদ, আওয়ামীলীগ নেতা শামীম আহমদ, আশরাফুল ইসলাম, যুক্তরাজ্য স্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি ছায়াদ আহমদ সাদ, যুক্তরাজ্য আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি ফখরুল ইসলাম মধু, সাধারণ সম্পাদক সেলিম খান, যুগ্ম সম্পাদক জামাল খান, যুক্তরাজ্য যুবলীগের যুগ্ম সম্পাদক ও তরুণলীগের সভাপতি জুবায়ের আহমদ, ছাত্রলীগের সভাপতি তামিম আহমদ, ছাত্রনেতা ফখরুল ইসলাম জামাল প্রমুখ।

হিথ্রো থেকে সরাসরি প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে যাওয়া হয় ব্রুক স্ট্রিটের হোটেল ক্লারিজে। লন্ডনে সংক্ষিপ্ত সফরকালে তিনি এখানেই অবস্থান করবেন। এর আগে বৃহস্পতিবার সকালে নিউইয়র্ক থেকে লন্ডনের হিথ্রো বিমানবন্দরের উদ্দেশে রওনা হন প্রধানমন্ত্রী। যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত এম জিয়াউদ্দিন ও জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি একে আবদুল মোমেন বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রীকে বিদায় জানান।

শুক্রবার হোটেল থেকে যাওয়ার পথে শেখ হাসিনা নেতা কর্মীদের সাথে সাক্ষাতে মিলিত হবেন, স্থানীয় সাংবাদিকদের সাথে কথা বলার সম্ভাবনাও রয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার যুক্তরাজ্য সফরের প্রতিবাদ জানিয়ে সেন্ট্রাল লন্ডনের ক্যালারিজ হোটেলের সামনে ব্যাপক বিক্ষোভ করেছে যুক্তরাজ্য বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

এসময় বিএনপি নেতাকর্মীরা দলীয় গুম, খুন, নিখোঁজ ও নির্যাতিত নেতাকর্মীদের ছবি সম্বলিত প্লেকার্ড হাতে নিয়ে বিক্ষোভ দেখায়। যুক্তরাজ্য বিএনপির সভাপতি এম এ মালেক জানান, দেশের গণতন্ত্র, বাকস্বাধীনতা হরণকারী, হাজার হাজার নেতাকর্মীকে হত্যাকারী শেখ হাসিনা যত ক্ষমতায় থাকবে লন্ডনে আসলে তাকে এভাবেই প্রতিহত করা হবে। শুক্রবার ও বিক্ষোভ কর্মসূচি রয়েছে বলে তিনি জানান।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close