জাতীয়

ইইউ-বাংলাদেশ যৌথ কমিশন বৈঠকে ৫ বছরে ৬৯ কোটি ইউরো অনুদানের জন্য সিদ্ধান্ত

 

শীর্ষবিন্দু নিউজ ডেস্ক: বাংলাদেশের সার্বিক উন্নয়নে ২০১৫ সাল থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত ৬৯ কোটি ইউরো অনুদান দেবে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)। ইইউ ও বাংলাদেশের যৌথ কমিশন বৈঠকে এ বিষয়ে নীতিগত সিদ্ধান্ত হয় বলে জানান অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের (ইআরডি) অতিরিক্ত সচিব আবুল মনসুর মোহাম্মদ ফয়জুল্লাহ।

সভায় ইইউর পক্ষে নেতৃত্ব দেন ইউরোপীয়ান এক্সটার্নাল অ্যাকশন সার্ভিসের (ইইএএস) ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এশিয়া ও প্যাসিফিক বিভাগ) ইউগো এসটুটু। বাংলাদেশের পক্ষে নেতৃত্ব দেন ইআরডির সিনিয়র সচিব মোহাম্মাদ মেজবাহ উদ্দিন। বুধবার সকাল সাড়ে ১০টায় রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে এনইসি সম্মেলন কক্ষে ইউরোপীয় কমিশন ও বাংলাদেশ সরকারের মধ্যে সপ্তম যৌথ কমিশন সভা (জেইসি) অনুষ্ঠিত হয়। সভা শেষে বিকেল ৫টায় সংবাদ সম্মেলনে সচিব এ অনুদানের কথা জানান।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, আইন মন্ত্রণালয়, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়, অর্থ বিভাগ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়, রাজস্ব বোর্ডসহ সরকারের গুরুত্বপূর্ণ সংস্থার প্রতিনিধিরা সভায় উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন, বাংলাদেশের শ্রম আইন, অবকাঠামোগত উন্নয়ন, পোশাক কারখানায় কর্মপরিবেশ, সুশাসন, মাবাধিকার, নতুন বাণিজ্য কৌশল, ট্রেড ইউনিয়ন, সেবাখাতে সরাসরি বিদেশি বিনিয়োগসহ (এফডিআই) সাম্প্রতিক মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়েও আলোচনা হয়।

এসময় ইউগো এসটুটু বলেন, ইইউর অর্থায়নে চলমান প্রকল্পগুলোর অগ্রগতির সম্পর্কে জানতে চেয়েছি। সিরিয়া ও লিবিয়া ইস্যুতে ইউরোপে শরণার্থীদের চাপ বাড়ছে বিষয়টি নিয়েও আলোচনা হয়েছে। এছাড়া, বাংলাদেশের চাহিদাগুলোর সম্পর্কে জানতে চাওয়া হয়েছে। বাংলাদেশের চাহিদা বিবেচনা করে সহায়তা দেয়া হবে। ইইউ বাংলাদেশের বিষয়ে সবসময় সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিবে।

বৈঠক শেষে আবুল মনসুর মোহাম্মদ ফয়জুল্লাহ বলেন, ইউরোপীয় ইউনিয়ন আগামী পাঁচবছরে ৬৯ কোটি ইউরো অনুদান দেবে। সে হিসেবে তাদের থেকে প্রতি বছর ১২ থেকে ১৩ কোটি ইউরো অনুদান পাওয়া যাবে। এছাড়া ইউরোপীয় ইউনিয়নের অর্থায়নে দেশে মোট ২৩টি উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ চলমান আছে। এসব প্রকল্পের অগ্রগতি ও এর আগের যৌথ সভার সিদ্ধান্তগুলোর বাস্তবায়নের বিষয়েও ইইউ জানতে চেয়েছে বলে তিনি জানান।

 

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close