জাতীয়

সাকা-মুজাহিদের ফাঁসির জন্য প্রস্তুত ৩ জল্লাদ: কাশিমপুর থেকে আসছেন অতিরিক্ত তিনজন জল্লাদ

শীর্ষবিন্দু নিউজ ডেস্ক: একাত্তরে মানবতা বিরোধী অপরাধে দণ্ডপ্রাপ্ত দুই আসামি সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী ও আলী আহসান মুহাম্মদ মুজাহিদের ফাঁসি কার্যকর করতে সব প্রস্তুতি প্রায় সম্পন্ন করে ফেলেছে কারা কর্তৃপক্ষ।

প্রস্তুত রাখা হয়েছে রাজুসহ ৩ জল্লাদকে। আরো ৩ জন জল্লাদকে নিয়ে আসার প্রক্রিয়া চলছে কাশিমপুর কারাগার থেকে। তবে অভিজ্ঞ জল্লাদ শাজাহানকে রাখা হয়নি। বয়সের কারণে গত প্রায় দেড় বছর ধরে শাজাহানকে দিয়ে ফাঁসি কার্যকর করা হচ্ছে না।

কারা সূত্রে জানা যায়, ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে দুটি ফাঁসির মঞ্চ আছে। যেখানে এক সাথে ৪ জনকে ফাঁসি দেয়া যায়। তবে দীর্ঘ দিন থেকে একটি মঞ্চ অব্যবহৃত অবস্থায় আছে। একটি ফাঁসির মঞ্চ দিয়েই ফাঁসি কার্যকর করা হচ্ছে।

এদিকে কারা অভ্যন্তরীণ একটি সূত্র জানায়, আদালত কোনো আসামিকে ফাঁসির দণ্ডাদেশ দেয়ার পর ওই আসামিকে প্রতিদিন স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়। সে হিসেবে গত গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী ও মুজাহিদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করেন কারা চিকিৎসক ডা. বিপ্লব কান্তি বিশ্বাস। তারা দু’জনেরই শারীরিক অবস্থা স্বাভাবিক বলে জানান তিনি। শুক্রবার দুপুরেও তাদেও স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়েছে বলে একটি অসমর্থিত সূত্রে জানা গেছে। শুক্রবার রাতেও তারও স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হতে পারে।

গত বুধবার সুপ্রিমকোর্টের আপিল বিভাগ সালাউদ্দিন কাদের ও মুজাহিদের রায় পুর্নবিবেচনার আবেদন (রিভিউ) খারিজ করে দেয়ার পরই ফাঁসির প্রস্তুতি শুরু করে কারা কর্তৃপক্ষ। প্রস্তুতি নিতে বলা হয় কেন্দ্রীয় কারাগারে থাকা জল্লাদ রাজু, সাত্তারসহ আরো একজনকে। এর বাইরে কাশিমপুর কারাগার থেকেও আররো ৩ জল্লাদকে আনার প্রক্রিয়া শুরু করা হয়। ফাঁসির দড়ি (ম্যানিলা রোপ) কলা ও ডিম দিয়ে পিচ্ছিল করার কাজটিও শুরু হয় ওই দিন থেকেই। সংশ্লিষ্টরা ইতিমধ্যেই ফাঁসির মঞ্চ ও সেল পরিদর্শন কাজ সম্পন্ন করেছেন। ফাঁসির মঞ্চ ঘিরে সামিয়ানা তৈরির কাজ শুরু হয়েছে।

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close