অন্য পত্রিকা থেকে

নারী প্রেসিডেন্টের জন্য আমেরিকা প্রস্তুত কিনা সন্দিহান হিলারি

আন্তর্জাতিক নিউজ ডেস্ক: প্রথম মার্কিন নারী প্রেসিডেন্ট হিসেবে ইতিহাস তৈরির জন্য লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন হিলারি রডহাম ক্লিনটন। কিন্তু তিনি নিজেও সন্দিহান, আমেরিকা এখনও একজন নারী প্রেসিডেন্টকে স্বাগত জানানোর জন্য প্রস্তুত কিনা। তবে আগের তুলনায় এখন তিনি নিজেকে অনেক পরিণত প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হিসেবেই মনে করেন।

বিশ্বব্যাপী সুপরিচিত ফ্যাশন ও লাইফস্টাইল ম্যাগাজিন ভোগের এক সাক্ষাৎকারে সম্প্রতি এসব কথা বলেছেন সাবেক এই মার্কিন ফার্স্ট লেডি। এ খবর জানিয়েছে দ্য টেলিগ্রাফ।

এ খবরে বলা হয়, ভোগ ম্যাগাজিনের দীর্ঘ সাক্ষাৎকারের সঙ্গে ছিল বিখ্যাত ফটোগ্রাফার মারিও টেস্টিনোর বিশেষ ফটোশুট। এই সাক্ষাৎকারেই হিলারি তার নির্বাচনী প্রচারণার বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন। পাশাপাশি তার জীবনের অন্যান্য দিকও উঠে আসে এতে।

এ সময় হিলারি তার দীর্ঘ নির্বাচনী প্রচারণার শেষে অসুস্থ হয়ে পড়ার আশঙ্কার কথাও জানান। একজন নারী হিসেবে ক্ষমতার বলয়ে তার অবস্থান কিংবা একসময় তার মহাকাশচারী হওয়ার স্বপ্নের কথাও উঠে আসে এই সাক্ষাৎকারে। সম্প্রতি নিউ ইয়র্কের মেয়র নির্বাচনে নারী প্রার্থী বিজয়ী হতে পারেনি।

এর জের ধরেই হিলারির কাছে জানতে চাওয়া হয়, একজন নারী প্রেসিডেন্টের জন্য আমেরিকা প্রস্তুত কি না। এর জবাবে দীর্ঘশ্বাস ছেড়ে হিলারি বলেন, আসলে আমি নিজেও ঠিক জানি না। তবে বর্তমান অবস্থা আগের চাইতে ভালো। তবে আমি মনে করি, মানুষের মধ্যে এখনও গভীর উদ্বেগ রয়েছে, যা সম্পর্কে তারা হয়তো সচেতনও নয় বা যা তারা স্পষ্টভাবে লক্ষ্যও করে না।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের সাম্প্রতিক প্রাইমারি ও ককাস নির্বাচনে খুব একটা সুবিধা করতে পারেননি হিলারি। এর ফলে তার বর্তমান অবস্থাকে অনেকটা ২০০৮ সালের নির্বাচনের মতোই মনে করা হচ্ছে। সে বছরও বারাক ওবামার বিরুদ্ধে কুলিয়ে উঠতে পারেননি এই ডেমোক্রেটিক নেতা।

এ প্রেক্ষিতে হিলারি বলেন, ‘মানুষ সঠিক ব্যক্তিকেই ভোট প্রদানের জন্য বদ্ধপরিকর। তবুও খানিকটা আঁচ করা যেতে পারে যে রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ নির্বাহী পদে একজন নারীকে ভোট দেওয়ার বিষয়ে তারা হয়তো খুব একটা স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করতে নাও পারে।’ গত কয়েকদিনে নারী ভোটাররা হিলারির চাইতে তার প্রতিদ্বন্দ্বী বার্নি স্যান্ডার্সের দিকেই বেশি ঝুঁকে পড়েছে।

এ বিষয়ে হিলারি বলেন, ‘অনেকেই আমার কাছে জানতে চেয়েছেন কেন আমেরিকার সব নারী আমাকে সমর্থন করছে না। আমি বলব, নারীরা একে অন্যের বিষয়ে একটু বেশিই সমালোচকের ভূমিকায় থাকে।’ তবে নিজেকে একজন যোগ্য প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হিসেবেই মনে করেন হিলারি। ২০০৮ সালের নির্বাচনী প্রচারণার সময়ের তুলনায় নিজেকে অনেক পরিণতও মনে করেন তিনি।

হিলারী বলেন, আমি বিশ্বাস করি, আমি আগের তুলনায় একজন ভালো প্রার্থী। আমি কী করছি এবং কেন করছি, তা নিয়ে আমি নিজের কাছেই আগের তুলনায় অনেক বেশি স্বাচ্ছন্দ্য। আর সে কারণেই হয়তো আমার এই উত্তরণ।

তিনি আরও বলেন, আমি একজন ভালো প্রেসিডেন্ট হতে পারবো। আমার স্বামীর মেয়াদ আমি কাছাকাছি থেকে দেখেছি। আমি সিনেটে ছিলাম, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ছিলাম। প্রেসিডেন্ট ওবামা ও জাতীয় নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে কাছাকাছি থেকে কাজ করেছি। তাই প্রেসিডেন্ট হলে ভালো করবো বলে আত্মবিশ্বাসী আমি। হিলারী বলেন, আমি জানি এটা কতটা কঠিন দায়িত্ব। আর এই দায়িত্ব নেয়ার জন্য আমি প্রস্তুত ও আত্মবিশ্বাসী।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close