এশিয়া জুড়ে

সরকারী তহবিলের টাকায় নাজিব রাজাকের বিলাসিতা

শীর্ষবিন্দু আন্তর্জাতিক নিউজ ডেস্ক: মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাকের ব্যাংক একাউন্ট থেকে বিলাসবহুল বাস ও বহু রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বকে অর্থ দেয়া হয়েছে। ২০১৩ সালের নির্বাচনকে সামনে রেখে সরকারী তহবিলের অর্থ এভাবে খরচ করেছেন নাজিব রাজাক। ওয়ালস্ট্রিট জার্নালের নতুন এক প্রতিবেদনে এমনটি বলা হয়েছে।

খবরে মালয়েশিয়ার তদন্তকারীদের কিছু নথিপত্রের উদ্ধৃতি দেয়া হয়েছে। বলা হয়েছে, দেড় কোটি ডলার ব্যয় হয়েছে পোশাক, অলঙ্কার ও একটি গাড়ি কিনতে। কিছু অর্থ খরচ হয়েছে নাজিব রাজাকের আমেরিকা সফরে। স্ত্রী রোসমাহ মানসুর সহ ওই সফরে তিনি অবকাশযাপনকেন্দ্র হাওয়াইয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। মূল্যবৃদ্ধি ও আয়হ্রাসের অভিযোগ করছে বহু মালয়েশিয়ান। সেখানে রোসমাহ মানসুরের বিলাসিতা নিয়ে বহু প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে।

এ কেলেঙ্কারি নিয়ে বেশ কয়েক মাস ধরেই চাপের মুখে রয়েছেন নাজিব। তিনি কেন রহস্যময় বৈদেশিক পেমেন্টের মাধ্যমে লাখ লাখ ডলার গ্রহণ করেছেন, তা নিয়ে ব্যাখ্যা দাবি করে আসছেন বিরোধীরা। তবে ওই অর্থ সরকারী তহবিল ওয়ান মালয়েশিয়া ডেভেলপমেন্ট বেরহাদের (১এমডিবি) নয় বলেই দাবি নাজিবের। তার বরং দাবি, তিনি একটি রাজনৈতিক ষড়যন্ত্রের শিকার।

কেলেঙ্কারিটি প্রথম ফাঁস করেছিল ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল। পত্রিকাটি এবারও জানাচ্ছে, তাদের কাছে থাকা নথিপত্রে ইঙ্গিত মিলছে ১এমডিবি থেকেই ওই অর্থ এসেছে। মোট প্রায় ১০০ কোটি ডলার ওই তহবিল থেকে হাতানো হয়েছে। গতবছর নাজিব রাজাক বিদেশ থেকে অর্থ গ্রহণের অভিযোগ অস্বীকার করেন। তবে এখন তার সরকার স্বীকার করছে, তিনি ৬৮ কোটি ১০ লাখ ডলার গ্রহণ করেছিলেন। সরকার বলছে, ‘ সৌদি রাজপরিবারের উপহার ছিল ওই অর্থ। এর বেশিরভাগই ফেরত দেয়া হয়েছে। তবে সৌদি আরব এমন ব্যাখ্যা নিশ্চিত করেনি। খোদ মালয়েশিয়াতেই একে ধামাচাপা দেয়ার কৌশল হিসেবে ভাবা হচ্ছে।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close