লন্ডন থেকে

ব্রিটিশ রানি এলিজাবেথের ৯০তম জন্মদিন উপলক্ষে জাঁকালো আয়োজন

শীর্ষবিন্দু নিউজ: ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের ৯০তম জন্মদিন আজ বৃহস্পতিবার। এ উপলক্ষে তাঁর ছেলে ব্রিটিশ সিংহাসনের পরবর্তী উত্তরাধিকারী প্রিন্স চার্লসের বেতারে সম্প্রচার করা বিশেষ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে তাঁকে শুভেচ্ছা জানানোর কথা। প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরনের নেতৃত্বে পার্লামেন্টের পক্ষ থেকেও রানিকে শ্রদ্ধা জানানোর আয়োজন করা হয়।

রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের জন্মদিন উপলক্ষে উইন্ডসর প্রাসাদে জাঁকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। সেখানে পূর্বনির্ধারিত কিছু কর্মসূচি এবং রাতে রাজপরিবারের সদস্যদের সঙ্গে বিশেষ ভোজে অংশ নেওয়ার কথা। উইন্ডসরের স্থানীয় বাসিন্দা ক্যারোলিস চিসনাল বলেন, রানির জন্য আমরা গর্বিত। শহরের সবাই খুব রোমাঞ্চিত।

পার্লামেন্টে ক্যামেরন বলেন, রানির জীবন অনন্য। নেতৃত্বে তিনি অবিচল ও শক্তিমতী। ১৯৯৭ সালে গাড়ি দুর্ঘটনায় সাবেক রাজবধূ ডায়না নিহত হওয়ার পর ব্রিটিশ রাজপরিবার নিয়ে নানা গুঞ্জন ওঠে। এ সময় শক্ত হাতে হাল ধরেন রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ। তিনিই রাজপরিবারের ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনেন।

রাজপরিবারের ভক্ত জন লাফরি বলেন, তিনি উইন্ডসরে প্রাসাদের বাইরে একটি বেঞ্চে ঘুমিয়েছেন। যাতে সবার আগে রানির জন্মদিনের উৎসবে অংশ নিতে পারেন।

জন লাফরি বলেন, রানি এক পা-ও ভুল ফেলেন না। এ বয়সেও তিনি অবিচলভাবে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন। ক্যাথি বিবি রানিকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। তিনি বলেন, রানি তাঁর দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন। কখনো কোনো অভিযোগ করেননি।

ব্রিটিশ রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের লন্ডনের মেফেয়ারে ১৭ ব্রুটন স্ট্রিটে ১৯২৬ সালের ২১ এপ্রিল জন্ম গ্রহণ করেন দ্বিতীয় এলিজাবেথ। শৈশবে তার নাম ছিল এলিজাবেথ আকেজান্দ্রা মেরি। বাবা রাজা ষষ্ঠ জর্জ ও মা ছিলেন রানি এলিজাবেথ। তিন বোনের মধ্যে তিনি ছিলেন বড়। ৯০তম জন্মদিন উপলক্ষে রাষ্ট্রীয়ভাবে কর্মসূচি নেয়া হয়েছে। ৪৮ ঘণ্টাব্যাপী জমকালো অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে উদযাপন করা হবে রানির জন্মদিন। রানির বর্ণিল জীবন ও সমৃদ্ধির প্রতীক হিসেবে ১ হাজার আলোক প্রজ্জ্বলনে আলোকিত হবে যুক্তরাজ্য।

রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের ৬৪ বছরেরও বেশি সময়ের রাজত্বকালে যুক্তরাজ্যে ১২ জন প্রধানমন্ত্রী দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি ২৫ বছর বয়সে ১৯৫২ সালে যখন সিংহাসনে আরোহণ করেন, তখন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ছিলেন উইন্সটন চার্চিল। আর বর্তমান ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন।

রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ ১৯৫৫ সালে নরওয়ে সফরের মধ্য দিয়ে প্রথম রাষ্ট্রীয় সফর শুরু করেন। গত বছরের জুনে জার্মানি সফরের মধ্য দিয়ে তিনি ৯৭টি রাষ্ট্রে সফরে গেছেন। রানির গার্ডেন পার্টি, ডিনার পার্টিসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানে বছরে গড়ে ৫০ হাজারের মতো অতিথি অংশ নেন। তিনি ১৯৪৭ সালের ২০ নভেম্বর প্রিন্স ফিলিপকে বিয়ে করেন। তাঁদের দাম্পত্য জীবনের বয়স ৬৮ বছর।

ব্রিটিশ রাজসিংহাসনে সবচেয়ে দীর্ঘ সময় ধরে থাকার রেকর্ড গড়েছেন ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ। এর আগে এই রেকর্ডটি প্রয়াত রানি ভিক্টোরিয়ার দখলে ছিল। রানি ভিক্টোরিয়া ১৮৩৭ সাল থেকে ১৯০১ সাল পর্যন্ত ৬৩ বছর সাত মাস দুই দিন ব্রিটিশ সিংহাসনে আসীন ছিলেন। বাবা ষষ্ঠ জর্জের মৃত্যুর পর রানি ভিক্টোরিয়া ব্রিটিশ রাজসিংহাসনে আরোহণ করেন।

১৯৫২ সালে গ্রেট ব্রিটেনের পাশাপাশি কানাডা, অস্ট্রেলিয়া, নিউ জিল্যান্ডের রানি হন দ্বিতীয় এলিজাবেথ। ব্রিটিশ রাজা বা রানি কমনওয়েলথের প্রধান হন। সে হিসেবে রানিও কমনওয়েলথের প্রধান।

নিজের আমলে ব্রিটিশ উপনিবেশ থেকে স্বাধীন হওয়া ১২টি দেশের রানি হিসেবে স্বীকৃত দ্বিতীয় এলিজাবেথ। দেশগুলো হলো : জ্যামাইকা, বারবাডোস, বাহামা দ্বীপপুঞ্জ, গ্রানাডা, পাপুয়া নিউ গিনি, ট্যুভালু, সলোমান দ্বীপপুঞ্জ, সেন্ট লুসিয়া, সেন্ট ভিনসেন্ট অ্যান্ড গ্রানাডাইনস, বেলিস, অ্যান্টিগুয়া অ্যান্ড বারমুডা এবং সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস। এসব দেশে রানির জন্মদিন উপলক্ষে বিশেষ অনুষ্ঠান হবে।

এছাড়া বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার দুই দিন ধরে নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে ৯০তম জন্মদিন উদযাপন করবেন রানি। এ উপলক্ষে রাজপরিবারে উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close