যুক্তরাজ্য জুড়ে

ইহুদী বিদ্বেষী মন্তব্যর কারণে নাজ শাহের পর কেন লিভিংস্টোন লেবার পার্টি থেকে সাময়িক বরখাস্ত

শীর্ষবিন্দু নিউজ ডেস্ক: ইহুদী বিদ্বেষী মন্তব্যের কারণে ব্রাডফোর্ডের এমপি নাজ শাহের পদত্যাগের পর প্রবীন রাজনীতিবিদ সাবেক লন্ডন মেয়র কেন লিভিংস্টোনকে দল থেকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে।

এমপি নাজ শাহ ফেসবুকে ইহুদী বিদ্বেষী করেছেন এমন অভিযোগে বুধবার তাকে দল থেকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়। আর বৃহস্পতিবার সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে কেন লিভিংস্টোনকে। এ নিয়ে প্রধান বিরোধী দল লেবার পার্টি থেকে দুইদিনে দুইজনকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

বশ্য এই বহিস্কারের পেছনে ক্ষমতাসীন টরি দলের প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরুণের হাত রয়েছে। বিভিন্ন মেইস্ট্রিম মিডিয়া সূত্রে জানাযায় ব্রিটেনের প্রধান বিরোধী দল লেবার পার্টির বিরুদ্ধে ইহুদী বিদ্বেষের অভিযোগ তোলা হয়েছে। হাউস অফ লর্ডসে লেবার পার্টির একজন উর্ধ্বতন সদস্য বলেছেন সব রাজনৈতিক দলের মধ্যেই কমবেশি ইহুদী বিদ্বেষ রয়েছ। তবে তাঁর ভাষায় লেবার পার্টির মধ্যে তা বেশি প্রকট।

রেসপেক্ট পার্টির সাবেক এমপি জর্জ গ্যালওয়ে যাকে সাধারণ নির্বাচনে হারিয়ে নাজ শাহ এমপি হয়েছেন, সেই মিঃ গ্যালওয়েও মিস শাহর পক্ষ সমর্থন করে এক নিবন্ধে লিখেছেন তার মন্তব্য ছিল কিছুটা বোকা বোকা কিন্তু কখনই ইহুদী বিদ্বেষী নয়। তিনি বরং দাবি করেছেন এটা জেরেমি করবিনকে দলনেতার পদ থেকে তাড়ানোর জন্য আরেকটা ঠেলা।

লেবার পার্টির একজন এমপি নাজ শাহকে সামাজিক মাধ্যমে ইসরায়েল নিয়ে বিরূপ মন্তব্য করার কারণে দল থেকে ইতিমধ্যেই সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে। মিস শাহ ২০১৪ সালে ফেসবুকে মন্তব্য করেছিলেন ‘ইসরায়েল-ফিলিস্তিন দ্বন্ধের সমাধান হচ্ছে ইসরায়েলকে আমেরিকায় স্থানান্তর করে দেয়া। তাঁর এই মন্তব্যকে সমর্থন করার জন্য বৃহস্পতিবার লন্ডনের সাবেক মেয়র কেন লিভিংস্টোনকেও দল থেকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে।

বলা হয়েছে দলের সম্মানহানির জন্য তার মন্তব্য তদন্ত করে দেখা হবে। লেবার পার্টি থেকে বরখাস্ত মিস শাহকে সমর্থন করার কারণে বরখাস্ত হলেন লন্ডনের সাবেক মেয়র কেন লিভিংস্টোন। কেন লিভিংস্টোন, যিনি লেবার নেতা জেরেমি করবিনের ঘনিষ্ঠ বলেছেন, নাজ শাহর মন্তব্য ইহুদীদের প্রতি বিদ্বেষমূলক নয় এবং তাকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা অযৌক্তিক।

কেন লিভিংস্টোন আগে একটি বেতার সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন হিটলার ইহুদী নিধনের আগে ইসরায়েলী জাতীয়তাবাদকে সমর্থন করেছিলেন। তার এই মন্তব্যও এখন সমালোচনার মুখে পড়েছে। মিস শা এমপি হবার আগে ফেসুবকে করা তার মন্তব্যের জন্য ইতিমধ্যেই সংসদে গভীরভাবে দুঃখপ্রকাশ করেছেন।

লর্ডস সভার সদস্য লর্ড লেভি, যিনি টনি ব্লেয়ারের দূত এবং প্রধান তহবিল সংগ্রাহক ছিলেন, বিবিসিকে বলেছেন মিস শার মন্তব্য ”অজ্ঞতাপ্রসূত” এবং ”কীভাবে এমন অজ্ঞ, বিচক্ষণতাহীন এবং স্পর্শকাতরতা সম্পর্কে উদাসীন কেউ সংসদে বসতে পারে তা আমার মাথায় ঢুকছে না।”

হাউস অফ লর্ডস এর আরেকজন সদস্য ব্যারোনেস নিউবারগার দাবি করেছেন লেবারের এই ইহুদী বিদ্বেষী মনোভাবের পেছনে রয়েছে জেরেমি করবিনের দলের নেতা হওয়া। তিনি বলছেন এটা চরম বামপন্থার একটা বিষয়। এ বছরের গোড়ার দিকে লেবার পার্টির একজন কাউন্সিলরকেও দল থেকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়, যিনি দাবি করেছিলেন হিটলার ইতিহাসের মহান ব্যক্তি।

জেরেমি করবিন অবশ্য জোর দিয়ে বলেছেন ইহুদী বিদ্বেষ বরদাস্ত করা হবে না। তবে তার দলের কোনো কোনো এমপি বলেছেন সমস্যাটি মোকবেলায় তিনি যথেষ্ট পদক্ষেপ নিচ্ছেন না।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close