লন্ডন থেকে

ইস্ট লন্ডন মসজিদের উদ্যেগে মুসলিম চ্যারিটি রান অনুষ্ঠিত

শীর্ষবিন্দু নিউজ: কমিউনিটির নানা বয়সের শিশু-কিশোর, তরুণ যুবক ও বয়বৃদ্ধদের অংশগ্রহণে রৌদ্রজ্জল আবহাওয়ায় আনন্দঘন পরিবেশে অনুষ্ঠিত হলো মুসলিম চ্যারিটি রান। ইস্ট লন্ডন মসজিদের উদ্যেগে ২০১২ সালে শুরু হওয়া এই চ্যারিটি রান প্রথম তিন বছর রান ফর ইউর মস্ক নামে পরিচালিত হয়। সাফল্যের ধারাবাহিকতায় ২০১৫ সালে কিছু পরিবর্তন এনে ক্যাম্পেইনের নামকরণ করা হয় মুসলিম চ্যারিটি রান।

শতশত মানুষের অংশগ্রহণে ৮ মে রোববার পূর্ব লন্ডনের ভিক্টোরিয়া পর্কে এই চ্যারিটি রান অনুষ্ঠিত হয়। সকাল ১১টায় প্রতিযোগিতা শুরু হওয়ার কথা থাকলেও ৯টা থেকে ছুটে আসতে থাকেন কমিউনিটির নানা বয়সের শিশু-কিশোর, তরুণ যুবক ও বয়বৃদ্ধরা। সকলেরই গন্তব্য ছিলো ভিক্টোরিয়া পার্ক।

নির্ধারিত স্থানে পৌছলে অংশগ্রহণকারীদের প্রত্যেককে মুসলিম চ্যারিটি রানের মনোগ্রাম খচিত স্পেশাল টি-শার্ট দেয়া হয়। মূল প্রতিযোগিতা শুরু হওয়ার আগে প্রায় ঘন্টাখানেক চলে শরীরচর্চা। ঘড়ির কাটা যখন ১১টায় ছুঁই ছুঁই, তখন সকলেই গিয়ে দাঁড়ালেন স্টার্টিং পয়েন্টে। ঠিক এগারোটায় বেজে উঠলো হুইশেল। শুরু হলো ৫ কিলোমিটার দৌঁড়।

মাত্র ১৮ মিনিট ২০ সেকেন্ডে পাঁচ কিলোমিটার ঘুরে এসে প্রথম হওয়ার রেকর্ড সৃষ্টি করেন আব্দুর রাজ্জাক ফারাহ। অন্যান্য বিজয়ীরাও আধঘন্টার মধ্যে ৫ কিলোমিটার পথ ঘুরে আসেন। আর এভাবেই ইস্ট লন্ডন মসজিদ ও বিভিন্ন চ্যারিটির জন্য মোটা অংকের ফান্ডরেইজ করলেন অংশগ্রহণকারীরা। বিগত দিনে শুধু ইস্ট লন্ডন মসজিদের জন্য ফান্ডরেইজ করা হয়। আর মুসলিম চ্যারিটি রান নামকরণের পর থেকে ইস্ট লন্ডন মসজিদের জন্য ফান্ডরেইজিংয়ের পাশাপাশি অন্যান চ্যারিটি সংস্থার জন্যও ফান্ডরেইজ করছেন অংশগ্রহণকারীরা।

গত বছরের মতো এবারও ইসলামিক রিলিফ, মুসলিম এইড, হিউম্যান অ্যাপিল, জামিয়াতুল উম্মাহ, ইব্রাহিম একাডেমী, বাংলাদেশ ফুটবল এসোসিয়েশন, চ্যরিটি রাইট, হাগস, আইএফই, অষ্টম ইস্ট লন্ডন স্কাউট, বামফোর্ড ট্রাস্ট ইত্যাদি চ্যারিটি সংগঠন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে। চ্যারিটি রানে অংশগ্রহণকারীদের ৫টি ক্যাটাগরিতে ভাগ করে ৫ বিজয়ীকে পুরষ্কার প্রদান করা হয়।

এর মধ্যে অনুর্ধ ১২ বছর বয়স ক্যাটাগরিতে বিজয়ী হন সাকিব সাঈদ। তিনি মাত্র ২২ মিনিট ৩৯ সেকেন্ডে ৫ কিলোমিটার রুট ঘুরে আসেন। তাছাড়া ১৩ থেকে ১৭ বছর বয়স ক্যাটাগরিতে বিজয়ী হন আদিল হোসেইন। তিনি মাত্র ২০ মিনিট ৩ সেকেন্ডের মধ্যে প্রতিযোগিতা শেষ করেন। এরপর ১৮ থেকে ৩৪ বছর বয়স ক্যাটাগরিতে বিজয়ী হন আব্দুর রজ্জাক ফারাহ। তিনি মাত্র ১৮ মিনিট ২০ সেকেন্ডে ৫ কিলোমিটার দৌড় সম্পন্ন করনে। ৩৫ থেকে ৫০ বয়স ক্যাটারিতে বিজয়ী হন রশীদ আলী। তিনি মাত্র ১৯ মিনিট ৮ সেকেন্ডে প্রতিযোগিতায় উত্তীর্ণ হন। তাছাড়া সর্বশেষ ক্যাটাগরি ৫১ ও ততোর্ধ বয়স ক্যাটাগরিতে বিজয়ী হন মোঃ শাহ আলম। তিনি ২৯ মিনিট দৌড় সম্পন্ন করেন।

প্রতিযোগিতা শেষে বিজয়ীদের মধ্যে অনুষ্ঠানিকভাবে পুরস্কার তুলে দেয়া হয়। পাঁচ ক্যাটাগরির বিজয়ীদের জন্য পুরস্কার ছিলো একটি নিনটেনডো থ্রিডিএস, মাউন্টেইন বাইক, রেড লেটার ডে, ট্যাবলেট ও লেপটপ।

ইস্ট লন্ডন মসজিদ ফান্ডরেইজিং কমিটির চেয়ার সিরাজুল ইসলামের উপস্থাপনায় পুরষ্কার বিতরনী পর্বে বক্তব্য রাখেন টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের ডেপুটি মেয়র কাউন্সিলার সিরাজুল ইসলাম, লন্ডন বাংলা প্রেস ক্লাবের প্রেসিডেন্ট নবাব উদ্দিন, বিশিষ্ট কমিউনিটি নেতা কেএম আবু তাহের চৌধুরী, ইস্ট লন্ডন মসজিদের সেক্রেটারি আইয়ুব খান, নির্বাহী পরিচালক দেলওয়ার খান, তাজ একাউন্টন্টেস এর স্বত্তাধিকারি ও বৃটিশ বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্সের ইন্টারন্যাশনাল ডাইরেক্টর আবুল হায়াত নুরুজ্জামান, ইসলামিক রিলিফের ইন্টারফেইথ ম্যানেজার সুলতান আহমদ ও মুসলিম এইড এর কর্মকর্তা ফরিদুল ইসলাম।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close