আরববিশ্ব জুড়ে

বিক্রি হবে এই মেয়েটি

শীর্ষবিন্দু আন্তর্জাতিক নিউজ ডেস্ক: তরুণী, বয়স বড় জোর ১৮। জলপাই ত্বক। গাড় অন্ধকারে ক্লান্তিতে নেতিয়ে আসা মুখেও আঘাতের চিহ্ন স্পষ্ট। এটি ফেসবুকে পোস্ট করা একটি ছবি, যেখানে তরুণীটি হাসার চেষ্টা করছেন। কিন্তু তার ফটোগ্রাফারের দিকে না তাকিয়ে। ছবিটির নিচে দেয়া ছোট্ট একটি ক্যাপশনেই তার জীবনের সকল রহস্য উন্মোচিত। বিক্রি হবে এই মেয়েটি

রাকের দুহক থেকে ইয়াজিদি এই মেয়েটিকে আটক করে যৌনদাসী বানায় আইএস। সম্প্রতি দুটি ফেসবুক আইডি থেকে তাকে বিক্রির বিজ্ঞাপন দেয়া হয়। সিরিয়া ও ইরাকে আক্রমণের সম্মুখীন জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস) সামরিক এবং অর্থনৈতিক সংকটের মুখে পড়ে এমন বিজ্ঞাপন দিয়ে যৌনদাসী বিক্রি করছে।

সিরিয়া ও ইরাকের বিস্তীর্ণ অঞ্চলের দখল নেয়া আইএস আক্রমণের মুখে পিছু হঠতে চলা আইএসের অস্ত্রশস্ত্রের ভাণ্ডারে টান পড়েছে। খাবারের জোগান কমে গেছে, ওষুধের অভাব চরমে। তেলের খনিগুলো একে একে হাতছাড়া হচ্ছে। অর্থ সংকটে পড়ে তারা চরম এই বর্বর কাজটি শুরু করেছে।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম ওয়াশিংটন পোস্টের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, অনলাইনে ছবিসহ যৌনদাসী বিক্রির বিজ্ঞাপন দিচ্ছে আইএস। আইএসের পক্ষ থেকে ফেসবুকে আনুমানিক ১৮ বছর বয়সী এক কিশোরীর ছবি পোস্ট করে ক্যাপশনে লেখা হয়, তাকে বিক্রি করা হবে। দাম ৬ লাখ ২৯ হাজার টাকা (৮ হাজার ডলার)।

গত ২০ মে প্রকাশিত ওই ফেসবুক পোস্টে ব্যবহারকারী নিজেকে আইএস সদস্য আবু আসাদ আলমানি বলে উল্লেখ করেন। প্রথম পোস্টের কয়েক ঘণ্টা পর কেঁদে চোখ লাল বিবর্ণ এক তরুণীর মুখের ছবি দিয়ে তিনি ফের লিখেছেন, আরেকটি, সাবিহা (যোনদাসী)। এটির দামও ৮ হাজার ডলার। হ্যাঁ অথবা না।

তবে যৌনদাসী বিক্রির বিজ্ঞাপন দেয়া হচ্ছে ফেসবুকে, এমনটা বুঝতে পেরে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ বিজ্ঞাপনগুলো সরিয়ে দিয়েছে।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close