যুক্তরাজ্য জুড়ে

গণভোট প্রচারণার সময় আততায়ীর আক্রমনে বৃটিশ এমপি নিহত: পরিচয় মিলেছে হত্যাকারীর

শীর্ষবিন্দু নিউজ ডেস্ক: বৃটিশ লেবার পার্টির এমপি জো কক্স গুলি ও ছুরিকাঘাতে নিহত হয়েছেন। নিজের নির্বাচনী এলাকা বাটলে ও স্পেনে বৃহস্পতিবার হামলার শিকার হন তিনি। ঘটনাস্থল থেকে তাকে হেলিকপ্টারে করে হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে তার মৃত্যু হয় বলে জানিয়েছে পুলিশ। পশ্চিম ইয়র্কশায়ার পুলিশ এ খবর নিশ্চিত করেছে।

নিজের নির্বাচনী এলাকা ওয়েস্ট ইয়র্কশায়ারের ব্রিস্টলে একটি লাইব্রেরির সামনে যখন বৈঠক করছিলেন জো কক্স, তখন সেখানেই গুলি ও ছুরিকাঘাতের শিকার হন তিনি। এই ঘটনায় ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন, লেবার পার্টির নেতা জেরেমি করবিন ও অন্যান্য রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ শোক জানিয়েছেন।

গুলি ও ছুরিকাঘাতে লেবার পার্টির এমপি জো কক্স নিহত হবার পর ইউরোপীয় ইউনিয়নে ব্রিটেনের থাক না থাকা নিয়ে আসন্ন গণভোটের প্রচারণা স্থগিত করা হয়েছে। নিহত জো কক্স ইউরোপীয় ইউনিয়নে বৃটেনের থাকা না থাকা নিয়ে গণভোটের প্রচার চালাচ্ছিলেন। এ ঘটনার পর গণভোটের প্রচার বন্ধ হয়ে গেছে। আগামী সপ্তাহে এ গণভোট হওয়ার কথা রয়েছে।

ব্রিটিশ এমপি জো কক্সের হত্যাকারীর পরিচয় মিলেছে। ওই খুনির নাম টমি মিয়ার। বৃহস্পতিবার জো কক্স নিজের নির্বাচনী এলাকা ওয়েস্ট ইয়র্কশায়ারের ব্রিস্টলে একটি লাইব্রেরির সামনে যখন বৈঠক করছিলেন জো কক্স, সেখানেই টমি হামলা চালায়। ৫২ বছর বয়সি এই খুনি জো কক্সকে গুলি করার আগে বেশ পরপর কয়েকবার ছুরিকাঘাত করে।

ব্রিটিনের দৈনিক দি সানের খবরে বলা হয়, টমি মিয়ার ইউরোপীয় ইউনিয়ন বিরোধীদের একজন। ফলে ইউরোপীয় ইউনিয়ন বিরোধীদের দ্বারাই তিনি এই হত্যায় উৎসাহিত হয়ে থাকতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, হামলার পর এমপি জো কক্স মেঝেতে পড়ে যান। তার শরীর থেকে রক্ত ঝরছিল। এ হামলায় আর একজন সামান্য আহত হয়েছে।

ওয়েস্ট ইয়র্কশায়ার পুলিশ জানিয়েছে, জো কক্সের ওপর হামলার সন্দেহে ব্রিস্টলের মার্কেট স্ট্রিট থেকে এক ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে। তবে এখনো তার ওপর হামলার কারণ সম্পর্কে কিছু জানায়নি পুলিশ।

প্রত্যক্ষদর্শী একজন ক্যাফে মালিক ক্লার্ক রথওয়েল জানান, তিনি স্বজোরে ফেঁটে পড়ার মতো শব্দ শুনতে পান, একটি বড় বেলুন ফাঁটলে যেমন শব্দ হয়, তেমন। ঘটনাস্থলে একজন পঞ্চার্ধ্বো ব্যক্তিকে বন্দুক হাতে দেখতে পান তিনি।

ক্লার্ক রথওয়েলের ভাষ্যমতে, এমপি জো কক্সকে দুই বার গুলি করেন বন্দুকধারী। প্রথমবার গুলি করার পর তিনি মেঝেতে পড়ে যান। এরপর দ্বিতীয় বার তার মুখের দিকে গুলি করেন লোকটি।

এক ব্যক্তি বন্দুকধারীর দিকে এগিয়ে এলে তাদের মধ্যে ধস্তাধস্তি হয়। পরে হামলাকারী তার পকেট থেকে ছুরি বের করে এলোপাতাড়ি আঘাত করতে থাকে। এ সময় ভয়ে চিৎকার করে লোকজন ছুটে পালায়।

বিবিসি ও গার্ডিয়ানের খবরে বলা হয়, পুলিশ হামলার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে ৫২ বছর বয়সী এক ব্যক্তিকে আটক করেছে। একাধিক প্রত্যক্ষদর্শী জানান, হামলার পূর্বে ও গ্রেপ্তারের সময় ওই ব্যক্তি ‘বৃটেন ফার্স্ট’ বলে চিৎকার দিচ্ছিলেন। বৃটেনের উগ্র ডানপন্থি দলের সঙ্গে এ বক্তব্যের স¤পর্ক থাকতে পারে। হামলায় আরও একজন আহত হয়েছেন। দুই সন্তানের জননী ৪১ বছর বয়সী কক্স ২০১৫ সালে ইয়র্কশায়ারের বাটলে ও পৈন আসন থেকে পার্লামেন্ট সদস্য নির্বাচিত হন।

পার্লামেন্টে প্রবেশের আগে, তিনি ত্রাণসংস্থা অক্সফাম ও প্রো-ইউরোপিয়ান প্রচারাভিযান চালায় এমন এক সংগঠনে কর্মরত ছিলেন। এ ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছেন, বৃটিশ প্রধানমন্ত্রীসহ সংসদ সদস্য ও রাজনীতিবিদরা।

এদিকে ঘটনা তদন্তের কাজ শুরু করেছে পুলিশ। শোক প্রকাশ করছেন যুক্তরাষ্ট্র, জার্মানিসহ বিশ্ব নেতৃবৃন্দ।

গত পঁচিশ বছরের মধ্যে মিজ কক্সই প্রথম কোনো এমপি যাকে হত্যা করা হলো। এর আগে ১৯৯০ সালে পদে আসীন অবস্থায় আইরিশ রিপাবলিকানদের হামলায় কনজারভেটিভ একজন সংসদ সদস্য মারা গিয়েছিলেন।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

আরও দেখুন...

Close
ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close