দুনিয়া জুড়ে

স্কাইপের কনফারেন্সও বাতিল: ভারতে না ফিরে লম্বা সফরে আফ্রিকা যাচ্ছেন জাকির নায়েক (ভিডিও)

শীর্ষবিন্দু আন্তর্জাতিক নিউজ: সৌদি আরব থেকে ভারতে ফেরার নির্ধারিত যাত্রা আকস্মিক বাতিল করার কথা জানা গিয়েছিলো গতকাল সোমবারই। ভারতের ফিরে সংবাদ সম্মেলনে যোগ দেয়ার কথা থাকলেও তা বাতিল করে আফ্রিকায় যাচ্ছেন তরুণদের জঙ্গিবাদে উৎসাহিত করার অভিযোগে তদন্তের মুখে থাকা বিতর্কিত ইসলামী বক্তা জাকির নায়েক।

তাঁকে নিয়ে ভারত ও বাংলাদেশে যখন তুমুল বিতর্ক, তখন তিনি সৌদি আরবে। কথা ছিল, সপ্তাহভর সেখানে কাটানোর পরে আজ মুম্বইয়ে ফিরবেন। সাংবাদিকদের মুখোমুখি হবেন। কিন্তু সে পথে হাঁটলেন না জাকির নাইক। সৌদি আরব থেকেই সম্ভবত পাড়ি দিচ্ছেন আফ্রিকায়।

জানিয়েছেন, আগে থেকেই কর্মসূচি ঠিক করে রাখা আছে আফ্রিকার কয়েকটি দেশে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের কর্তাদের চিন্তা, আফ্রিকায় কাজ সেরে আদৌ ভারতে ফিরবেন তো বিতর্কিত এই ধর্ম প্রচারক?

গত বছর উসকানিমূলক কথাবার্তা বলার অভিযোগে ভারতের কর্নাটক রাজ্যে তাকে নিষিদ্ধ করা হয়৷ ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের মন্ত্রী বেঙ্কাইয়া নাইডুও তার বিষয়ে তদন্তের কথা একদিন আগেই বলেন। এর আগে ঢাকার গুলশানে গত ১ জুলাইয়ের জঙ্গি হামলায় জড়িতদের মধ্যে অন্তত দুজন জাকির নায়েকের মতো ইসলামি বক্তাদের অনুসরণ করত বলে অভিযোগ ওঠে। এরপরই নতুন করে আলোচনায় আসেন ভারতের মহারাষ্ট্রে জন্ম নেওয়া চিকিৎসক জাকির নায়েক।

উগ্রপন্থায় উৎসাহ জোগানোর অভিযোগে সোমবার বাংলাদেশে জাকির নায়েক প্রতিষ্ঠিত পিস টিভির সম্প্রচার বন্ধ করেছে সরকার। সেই সঙ্গে বাংলাদেশে অনলাইনেও যেন পিস টিভি দেখা না যায় তার ব্যবস্থা করা হয়েছে বলেও জানিয়েছে সরকার। টাইমস অব ইন্ডিয়া।

মঙ্গলবার টাইমস অব ইন্ডিয়া জানিয়েছে, নিজের প্রতিষ্ঠিত পিচ টিভির মাধ্যমে ব্যাপক পরিচিতি পাওয়া জাকির নায়েক আগামী প্রায় এক মাসের লম্বা সফরে আফ্রিকায় থাকবেন জাকির নায়েক ।

ধর্মীয় বিদ্বেষ ছড়ানোর অভিযোগ ভারত সরকার খতিয়ে দেখছে বলে গণমাধ্যমে খবর আসার প্রেক্ষাপটে দেশে ফিরে এ বিষয়ে নিজের অবস্থান তুলে ধরতে সোমবার মুম্বাইয়ে সংবাদ সম্মেলনে আসার কথা বলেছিলেন জাকির নায়েক। পরে সংবাদ সম্মেলন বাতিল করে মঙ্গলবার সাংবাদিকদের সঙ্গে এক স্কাইপে কনফারেন্স করবেন বলে জানান তিনি। তবে সেটিও তিনি বাতিল করেছেন বলে টাইমস অব ইন্ডিয়ার খবরে বলা হয়।

তাদের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রবাসে থেকে সোমবার সন্ধ্যায় এক বিবৃতি পাঠিয়ে জাকির নায়েক বলছেন- তার বিরুদ্ধে অভিযোগের বিষয়ে ভারত সরকারের কোনো সংস্থা থেকে এ পর্যন্ত তার সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়নি। তিনি বলেন, ভারতের তদন্তকারী সংস্থার কোনো কর্মকর্তাকে তাদের প্রয়োজনীয় কোনো তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করতে পারলে আমি আনন্দিত বোধ করব।

[youtube id=”1bLpWQWO29E” width=”600″ height=”350″]

ইসলামের প্রচারের নামে জাকির তরুণদের মগজধোলাই করছেন, আইএসে যোগ দিতে উৎসাহ জোগাচ্ছেন— এমন অভিযোগ ওঠার পর বাংলাদেশ গত কাল তাঁর চ্যানেল ‘পিস টিভি’-র সম্প্রচার বন্ধ করেছে। ইন্টারনেটেও যাতে তা দেখা না যায়, আজ থেকে সেই ব্যবস্থা করেছে। তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রকের নির্দেশে আজ ভারতেও বন্ধ হয়েছে এর সম্প্রচার। এ ব্যাপারে সমস্ত রাজ্যকে চিঠি দিয়েছেন কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী বেঙ্কাইয়া নায়ডু।

দেশে ফিরলে তদন্ত শুরু হবে জাকিরের বিরুদ্ধে। তাঁর আইএস-যোগের অভিযোগ ওঠায় গ্রেফতার করার ভাবনাচিন্তাও শুরু হয়েছে। গোয়েন্দাদের সন্দেহ, সেই আঁচ পেয়েই সম্ভবত জাকির দেশে ফেরা এড়িয়ে গেলেন। যদিও সৌদি আরব থেকে জাকির আজ দাবি করেছেন, ‘‘ভারত সরকারের পক্ষ থেকে এখনও আমার সঙ্গে কোনও যোগাযোগ করা হয়নি। তদন্তের স্বার্থে আমি গোয়েন্দাদের সব রকম সাহায্য করতে প্রস্তুত। তবে বিভিন্ন ক্ষেত্রে আমার বক্তব্যকে বিকৃত ভাবে ব্যবহার করা হয়েছে। পরিস্থিতি যা তাতে এখন সংবাদমাধ্যমই আমার বিচার চালাচ্ছে।’’

জাকির শেষ টুইট করেছেন পরশু। তাতেও লিখেছেন, ‘‘সংবাদমাধ্যম আমার বিচার চালাচ্ছে। আমাকে সমর্থন করুন, পাশে থাকুন।’’ সেই সমর্থনের ছবিটা আজ দেখা গিয়েছে বুরহান ওয়ানির মৃত্যুতে উত্তাল কাশ্মীরে। সেনাবাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে ওই তরুণ হিজবুল জঙ্গি নেতার মৃত্যুর জেরে গত শুক্রবার থেকে তুলকালাম চলছে ভূস্বর্গে। নাক গলাচ্ছে পাকিস্তান। তারই মধ্যে ভূস্বর্গে বিক্ষোভকারীরা আজ পথে নামেন জাকিরের সমর্থনেও। উল্টো ছবি দেখা গিয়েছে মহারাষ্ট্রে। সেখানে জায়গায় জায়গায় জাকিরের ছবি পুড়িয়ে বিক্ষোভ দেখিয়েছে শিবসেনা।

জাকির মুখে আইএসের ভাবধারার বিরোধিতা করলেও, হায়দরাবাদ ও মুম্বইয়ের পরে কেরল থেকে সিরিয়ায় গিয়ে আইএসে যোগ দেওয়া যুবকদের সঙ্গেও তাঁর সংস্রব খুঁজে পেয়েছেন গোয়েন্দারা।

সম্প্রতি কেরল থেকে জনা কুড়ি যুবক আইএসে যোগ দিয়েছে বলে জানা গিয়েছে। ইশা ও ইয়াহিয়া তাদেরই দু’জন। এরা দুই ভাই। তাদের দু’জনের জঙ্গি হওয়ার পিছনে জাকিরের হাত রয়েছে বলে অভিযোগ এনেছে তাদের পরিবার।

ইশাদের বাবা ভিনসেন্ট দাবি করেছেন, তাঁর ছেলেদের সঙ্গে জাকিরের সরাসরি যোগ ছিল। জাকিরের সংস্পর্শে এসেই তারা খ্রিস্টধর্ম ছেড়ে মুসলিম ধর্ম গ্রহণ করে। আইএসে যোগ দিতে সিরিয়া যাওয়ার আগে সস্ত্রীক তারা জাকিরের সঙ্গে দেখাও করেছিল। জাকিরের সঙ্গে আলাপ করাতে মুম্বই নিয়ে গিয়েছিল শ্যালকদেরও। যদিও তাঁরা ধর্ম বদলাতে রাজি হননি।

জাকিরের সংস্থা ইসলামিক রিসার্চ ফাউন্ডেশনের কাজকর্মও এখন সন্দেহের ঘেরাটোপে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক জানিয়েছে, ওই সংস্থার একাধিক কর্মীর সঙ্গে সন্ত্রাসের যোগ মিলেছে বা অভিযোগ উঠেছে। তাদের এক জন ফিরোজ দেশমুখ, ঔরঙ্গাবাদ অস্ত্র মামলায় জড়িত। বর্তমানে সে জামিনে মুক্ত। ওই একই মামলায় অভিযুক্ত ফিরোজের সহকর্মী রাহিল দেশ ছেড়ে বাংলাদেশে পালিয়ে যায়। তাদের আর এক সহকর্মী আয়াজ সুলতান আফগানিস্তান হয়ে সিরিয়া পালিয়ে যায়। পরে সে আইএসে যোগ দিয়েছে বলেও জানতে পেরেছেন গোয়েন্দারা। মন্ত্রক জানিয়েছে, গত এক দশকে ওই সংস্থার হয়ে কারা কাজ করেছে, তারা এখন কোথায় তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খানও জানিয়েছেন, গুলশন কাণ্ডের দুই জঙ্গি জাকিরের বক্তব্য শুনে অনুপ্রাণিত হয়েছিল বলে অভিযোগ উঠেছে। তাই জাকির আমাদের তদন্তের আওতায় রয়েছে। জাকিরের বক্তব্য উস্কানিমূলক কি না, গোয়েন্দারা তা খতিয়ে দেখছেন।

জাকির নাইককে নিয়ে মন্তব্যের জেরে তৃণমূল সতর্ক করল দলীয় সাংসদ ইদ্রিশ আলিকে। জাকিরের টিভি চানেলের সম্প্রচার বন্ধ করার প্রসঙ্গে সোমবার ইদ্রিশ বলেন, কাউকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করার মধ্যে দিয়ে তাকে বেশি গুরুত্ব দেওয়া হয়। তার বদলে সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে জাতি-ধর্ম নির্বিশেষে নিরপেক্ষ ভাবে সকলকে সরব হতে হবে।

পরে তৃণমূলের জাতীয় মুখপাত্র ডেরেক ও ব্রায়েন জানান, দলের সঙ্গে কথা না বলেই ইদ্রিশ ওই মন্তব্য করেছেন। তাঁকে সতর্ক করা হয়েছে। বিষয়টি স্পর্শকাতর। ইদ্রিশ জানিয়েছেন, নেতৃত্বের সঙ্গে তাঁর কথা হয়েছে। তাঁকে ডেকে পাঠালে তিনি নিজের বক্তব্যের ব্যাখ্যা দেবেন।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close