গ্যালারী থেকে

ইংল্যান্ডের কাউন্টি ক্রিকেটে অবিস্মরণীয় অভিষেক মুস্তাফিজের: প্রশংসায় ভাসালেন সাসেক্স অধিনায়ক রাইট

গ্যালারী থেকে ডেস্ক: ইংল্যান্ডের কাউন্টি ক্রিকেটে অবিস্মরণীয় অভিষেক হয়েছে কাটার মাস্টার মুস্তাফিজুর রহমানের। প্রথম ম্যাচেই তার দল জিতেছে, তিনি হয়েছেন ম্যাচের সেরা খেলোয়াড়ার। তিনি যে এই সময়ের সেরা পেসার, সেটা প্রমাণ করে দিলেন অভিষেকেই। বৃহস্পতিবার সাসেক্সের হয়ে মাঠে নেমে চার ওভার বল করে চারটি উইকেট তুলে নিয়ে দলকে ম্যাচ জিতিয়েছেন এই বাঁহাতি পেসার।

চেমসফোর্ডে ন্যাটওয়েস্ট টি-টোয়েন্টি ব্লাস্ট টুর্নামেন্টে এসেক্সের বিপক্ষে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে সাসেক্স কুড়ি ওভার খেলে ছয় উইকেট হারিয়ে ২০০ রান সংগ্রহ করে। জবাবে এসেক্স কুড়ি ওভারে আট উইকেট হারিয়ে ১৭৬ রান সংগ্রহ করে। মুস্তাফিজ ৪ ওভার বল করে মাত্র ২৩ রান দেন।

ইংল্যান্ডের কাউন্টি ক্রিকেট দল সাসেক্সের হয়ে নিজের প্রথম ম্যাচটি খেলেছেন বাংলাদেশের বিস্ময়বালক মুস্তাফিজুর রহমান। এখানেও অভিষেকেই নিজের প্রতিভার ঝলক দেখিয়েছেন ক্রিকেটে বিশ্বকে। এসেক্সের বিপক্ষে সাসেক্সের হয়ে তুলে নিয়েছেন ৪টি উইকেট। আর খরচ করেছেন মাত্র ২৩টি রান। সেই সঙ্গে ম্যাচসেরার পুরস্কারও জিতেছেন কাটার মাস্টার। ম্যাচ শেষে বাংলাদেশের তরুণ পেসারকে প্রশংসায় ভাসালেন সাসেক্স অধিনায়ক লুক রাইট।

মুস্তাফিজকে দলে পেতে দীর্ঘসময় অপেক্ষা করতে হয়েছে সাসেক্সকে। তার ইংল্যান্ডে যাওয়ার কথা ছিল জুনের শুরুতে। কিন্তু মে মাসের শেষ দিকে আইপিএল থেকে হ্যামস্ট্রিংয়ের চোট নিয়ে ফেরেন মুস্তাফিজ। তাই যেতে পারেননি সময়মত। কিন্তু মুস্তাফিজকে পেতে হাল ছাড়েনি সাসেক্স। অন্তত কিছু সময়ের জন্য হলেও পেতে উদ্গ্রীব ছিল দলটি।

চলতি মাসের শুরুর দিকে চোট পুরোপুরি কাটিয়ে ওঠেন মুস্তাফিজ। ঈদের পর ১৩ জুলাই ইংল্যান্ডে উড়াল দেওয়ার পরিকল্পনাও ছিল তার। কিন্তু ভিসা জটিলতায় পিছিয়ে যায় মুস্তাফিজের ইংল্যান্ড-যাত্রা। ভিসা জটিলতা কাটিয়ে গত বুধবার (২০ জুলাই) ইংল্যান্ডের উদ্দেশে বাংলাদেশ ছাড়েন মুস্তাফিজ। লম্বা সফর শেষে ইংল্যান্ডে পৌঁছেন সেদিনই। আর পৌঁছে পরের দিনই মাঠে নেমে দলকে এনে দিলের দারুণ এক জয়।

মুস্তাফিজকে পাওয়ার জন্য দীর্ঘ অপেক্ষাটা যে বৃথা যায়নি, সেটাই মনে করিয়ে দিলেন সাসেক্স অধিনায়ক লুক রাইট। বৃহস্পতিবার ম্যাচশেষে তিনি বলেন, আমাদের অনেক কষ্ট করতে হয়েছে রহমানকে (মুস্তাফিজ) এখানে পেতে। এটার জন্য অনেক মানুষ কঠিন পরিশ্রম করেছে। এখন আমরা দেখতেই পাচ্ছি আমাদের সময় ও শ্রম একটুও বৃথা যায়নি।

মুস্তাফিজকে প্রশংসায় ভাসিয়ে রাইট বলেন,‘সে খুবই স্পেশাল একজন বোলার। সে সরাসরি তার পারফরম্যান্সে চলে যায়, যা দেখতেও অনেক অসাধারণ।

অনুশীলনেও মুস্তাফিজ নিজের বোলিং রহস্যকে আড়াল করেন বলে জানালেন সাসেক্স অধিনায়ক, সে কী করতে যাচ্ছে, সেটা বুঝতে পারা অনেক কঠিন। অনুশীলনের সময় আমরা চেষ্টা করছিলাম তার সঙ্গে কাজ করতে, কিন্তু পারিনি।

ইংল্যান্ড ও বাংলাদেশের সময়ের ব্যবধানের সাথে মানিয়ে নিতে অন্তত কিছু সময় লাগে। কিন্তু মুস্তাফিজ সেই সময় একদমই পাননি। ইংল্যান্ডে পা রেখেই তার দুর্দান্ত পারফরম্যান্স তাই অবাক করছে রাইটকে, সে গতকাল (বুধবার) রওয়ানা দিয়েছে। সোজা এখানে এসে এমন বোলিং পারফরম্যান্স দেখিয়েছে। সত্যিই অনেক স্পেশাল এক প্রতিভা আমাদের দলে পেয়েছি।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close