স্বদেশ জুড়ে

সুনামগঞ্জে পানিবন্দী মানুষ

শীর্ষবিন্দু নিউজ ডেস্ক: সুনামগঞ্জে বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতি হওয়ায় দেখা দিয়েছে খাদ্য ও পানির সংকট। সুরমা নদীর পানি আজ সোমবার দুপুর ১২টায় বিপদসীমার ৮২ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, সুনামগঞ্জ সদর, দোয়ারাবাজার, বিশ্বম্ভরপুর, তাহিরপুর, জামালগঞ্জ, ছাতক, শাল্লা, জগন্নাথপুর ও দিরাই উপজেলার এক লাখ ১০ হাজার মানুষ পানিবন্দী হয়ে পড়েছে। বরাদ্দ পাওয়া নগদ সাড়ে সাত লাখ টাকা ও ১০১ মেট্রিকটন চাল বিতরণের কাজ চলছে। তবে বন্যা কবলিত এলাকায় এখনো কোনো আশ্রয়কেন্দ্র খোলা হয়নি।

সুনামগঞ্জ জেলা সদরের সঙ্গে তাহিরপুর উপজেলা ও দোয়ারাবাজার উপজেলার সরাসরি সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। সুনামগঞ্জ পৌর শহরের নবীনগর এলাকায় গ্যাস সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। এ ছাড়া শহরের মধ্যবাজার, মাছবাজার, ষোলঘর, তেঘরিয়া, হাসননগর, মল্লিকপুর, জলিলপুর, ফিরোজপুর, ওয়েজখালী, বড়পাড়া এলাকা গতকাল রোববার রাতে প্লাবিত হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট দপ্তরের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, বন্যায় বন্ধ হয়ে গেছে শতাধিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। সুনামগঞ্জে প্রায় এক হাজার একর জমির আমন ধান ও বীজতলা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ভেসে গেছে তিন শতাধিক পুকুরের মাছ। রাস্তাঘাটের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

সুনামগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক কামরুজ্জামান জানান, টাকা ও চালের সঙ্গে শুকনো খাদ্য এবং পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেট বিতরণের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে উপজেলায় নির্বাহী কর্মকর্তাদের।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close