Americaযুক্তরাষ্ট্র জুড়ে

অবশেষে ক্ষমা চেয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প

শীর্ষবিন্দু আন্তর্জাতিক নিউজ ডেস্ক: মতামত জরিপে ক্রমেই নিচের দিকে নামতে থাকা ট্রাম্প অবশেষে স্বীকার করলেন তিনি যেসব মন্তব্যে করেছেন তার জন্য তিনি আফসোস করছেন। কারও ব্যক্তিগত মর্মবেদনার কারণ হতে পারে এমন পূর্বোক্ত মন্তব্যের জন্য ক্ষমা চেয়েছেন রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প।

ডেমোক্রেটিক প্রতিদ্বন্দ্বী হিলারি ক্লিনটনের বিরুদ্ধে আক্রমণ শানিত করতে যুজছেন তিনি। এ সপ্তাহে আবারও প্রচারণা শিবির ঢেলে সাজিয়েছেন। চেষ্টা করছেন প্রতিদ্বন্দ্বীতায় ফিরতে। এ খবর দিয়েছে বার্তাসংস্থা রয়টার্স।

নর্থ ক্যারোলাইনার চার্লোত্তে শহরে এক জনসমাগমে তিনি বলেন, ‘মাঝেমাঝে বিতর্কের উত্তাপে ও বহু ইস্যু নিয়ে কথা বলতে গিয়ে আপনি সঠিক শব্দ বেছে নিতে পারবেন না। কিংবা আপনি ভুল কিছু বলে ফেলেন। আমি ঠিক এমনই কিছু করেছি। এবং এজন্য আমি অনুতপ্ত, বিশেষ করে যেসব ক্ষেত্রে আমার মন্তব্য ব্যক্তিগত মর্মযন্ত্রণার কারণ হয়েছে।’ তবে ঠিক কোন মন্তব্যের জন্য তিনি অনুতপ্ত, তার উদারহন দেননি।

তবে ট্রাম্পের এ ক্ষমা চাওয়ার বিষয়টি দ্রুতই প্রত্যাখ্যান করেছে হিলারি ক্লিনটনের প্রচার শিবির। এক বিবৃতিতে হিলারি শিবির বলেছে, আক্ষরিক অর্থেই মানুষকে অবমাননার মাধ্যমে ডোনাল্ড ট্রা¤প তার প্রচারণা শুরু করেছেন।

এতে আরও বলা হয়, আমরা আজ রাতে জানতে পেরেছি যে, তার বক্তৃতা লেখক জানতেন যে তাকে অনেক অনেক বিষয়ে ক্ষমা চাইতে হবে। আজকে রাতে যে ক্ষমা চাইলেন তিনি, তা শুধুমাত্র কৌশল করে লেখা কয়েকটি বাক্য। তাকে বলতে হবে তার অজস্র আপত্তিকর, পীড়াদায়ক ও বিভাজনমূলক মন্তব্যের কোনটির জন্য তিনি অনুতপ্ত। এবং তাকে তার গলার সুর পুরোপুরি পাল্টাতে হবে।

প্রচারণায় নামার পর থেকেই নিউ ইয়র্কের এ ব্যবসায়ী কড়া ভাষা ব্যবহার করছেন। উদ্ধত বক্তৃতার মাধ্যমে তিনি জিততে চাইছেন ৮ই নভেম্বরের নির্বাচন। তীব্র সমালোচনার মধ্যেও ক্ষমা চাওয়ার নজির তার মধ্যে বিরল।

এমনকি নিজ দলের মধ্যেও তিনি তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েছেন। বিশেষ করে, মুসলিম, মেক্সিকান অভিবাসী ও নারীদের প্রতি তার অবমাননাকর মন্তব্যের দরুন দলে ও দলের বাইরে সমালোচনার ঝড় উঠে।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close