Americaযুক্তরাষ্ট্র জুড়ে

হিলারির দেহরক্ষীদের অস্ত্র কেড়ে নেয়ার প্রস্তাব দিলেন ট্রাম্প

শীর্ষবিন্দু আন্তর্জাতিক নিউজ ডেস্ক: হিলারি ক্লিনটনের দেহরক্ষীদের নিরস্ত্রীকরণ করার আহ্বান জানিয়েছেন ডনাল্ড ট্রাম্প। তিনি বলেছেন, তাদের অস্ত্রগুলো ফেলে দেয়া উচিত। তারপর দেখুন তার (হিলারির) কি ঘটে। এ খবর দিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান দলের প্রার্থী ডনাল্ড ট্রাম্প তার প্রতিপক্ষ ডেমোক্রেট দলের প্রার্থী হিলারি ক্লিনটনকে ঘায়েল করে এ বক্তব্য রাখেন মিয়ামিতে।

শুক্রবার তিনি সেখানে বক্তব্য দেয়ার সময় বলেন, আমি মনে করি তার দেহরক্ষীদের সব অস্ত্র প্রাত্যাহার করা উচিত। তাদের নিরস্ত্রীকরণ করে ফেলা উচিত। আমি মনে করি, অবিলম্বে তাদের অস্ত্র কেড়ে নেয়া উচিত। তাদের অস্ত্রগুলো নিয়ে নেয়া হোক। কারণ, তিনি (হিলারি) অস্ত্র চান না। এরপর আমরা দেখতে চাই তার কি হয়। অস্ত্রগুলো কেড়ে নেয়ার পর তার অবস্থা হবে অত্যন্ত ভয়াবহ।

উল্লেখ্য, কয়েক মাস ধরে হিলারি ও ট্রাম্পকে নিরাপত্তা দিয়ে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের সিক্রেট সার্ভিস। কিন্তু সর্বশেষ হিলারির নিরাপত্তা নিয়ে ট্রাম্পের এ বক্তব্যে ব্যাপক নিন্দা ছড়িয়ে পড়েছে। বিশেষ করে হিলারি ক্লিনটনের মিত্র যারা তারা এর সমালোচনায় মুখর। হিলারি পন্থি পর্যবেক্ষণকারী মিডিয়া গ্রুপ কারেক্ট দ্য রেকর্ড-এর মুখপাত্র এলিজাবেথ শাপেল বলেছেন, ডনাল্ড ট্রাম্প আরও একবার হিলারি ক্লিনটনের বিরুদ্ধে সহিংসতাকে উস্কে দিয়েছেন। তিনি যে মন্তব্য করেছেন এটা সত্যিকার অর্থেই নিন্দনীয়। এটা মার্কিন গণতন্ত্রের মৌলিক মূল্যবোধের সঙ্গে এক ধরনের প্রতারণা।

২০১২ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান দলের প্রার্থী ছিলেন মিট রমনি। তার সঙ্গে কাজ করেছেন ওয়াশিংটনভিত্তিক রাজনৈতিক বোদ্ধা স্টুয়ার্ট স্টিফেনস। তিনি ডনাল্ড ট্রাম্পের এমন বক্তব্যকে এক রকম হুমকি হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন। এক টুইটে তিনি বলেছেন, এই হুমকি তদন্ত করে দেখা উচিত সিক্রেট সার্ভিসের। এর আগে মে মাসে একই রকম আরও একটি মন্তব্য করেছিলেন ট্রাম্প।

তিনি তখন বলেছিলেন, মার্কিন সংবিধানের দ্বিতীয় সংশোধনীকে খতম করে দেবেন হিলারি। ওই সংশোধনীতে অস্ত্র রাখার অধিকারের গ্যারান্টি রয়েছে। হিলারি ক্লিনটন ও তার সিক্রেট সার্ভিস সম্পর্কে বক্তব্য রাখতে গিয়ে ট্রাম্প বলেছিলেন, তারা অস্ত্র অথবা তাদের দেহরক্ষী ছাড়া কিভাবে চলাফেরা করে তা আমাদেরকে দেখতে হবে। গত মাসেও এক সমালোচনার জন্ম দেন ডনাল্ড ট্রাম্প।

তিনি বলেছিলেন, যুক্তরাষ্ট্রের সুপ্রিম কোর্টে হিলারি যাতে উদার বিচারকদের মনোনয়ন দিতে না পারেন সে জন্য কাজ করতে পারে অস্ত্র অধিকার বিষয়ক কর্মীরা। ৯ই আগস্ট নর্থ ক্যারোলাইনায় এক র্যালিতে ট্রাম্প বলেন, তিনি যদি তার বিচারকদের বেছে নেন তাহলে আপনারা কিছুই করতে পারবেন না। ওদিকে অস্ত্র সুবিধা পাওয়ার অধিকারে কড়াকড়ি চান হিলারি। কিন্তু তিনি কখনো বলেন নি যে, দ্বিতীয় সংশোধনী থেকে তিনি বেরিয়ে আসবেন।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close