গ্যালারী থেকে

পুরোদমে প্রস্তুত হয়েই বাংলাদেশে যাবে ইংল্যান্ড দল

গ্যালারী থেকে ডেস্ক: বাংলাদেশ সফরে বেশ বড় দল নিয়েই যাচ্ছে ইংল্যান্ড। ইংল্যান্ডের আসা নিশ্চিত হলেও নিরাপত্তার সংশয়ে বাংলাদেশ সফরকে না করে দেন ওয়ানডে অধিনায়ক এউইন মরগান ও অ্যালেক্স হেলস।

খন বড় প্রশ্ন হয়ে ওঠে ইংল্যান্ড কি পূর্ণ শক্তির দল নিয়ে আসবে। কাল কেটে গেলে ওই আশঙ্কাও। পুরো শক্তির দল নিয়েই বাংলাদেশে আসছে ইংল্যান্ড। গত জুলাইয়ের হলি আর্টিজান রেস্তোরাঁর ঘৃণ্য হত্যাকাণ্ডের পরা নিরাপত্তাশঙ্কা পেয়ে বসেছিল ইংল্যান্ড দলকে। তাদের বাংলাদেশে যাওয়া নিয়ে জেগেছিল ঘোর সংশয়। তবে সেই শঙ্কাটা কেটে যায় ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ডের (ইসিবি) নিরাপত্তা পর্যবেক্ষক দল ইংল্যান্ডে ফিরে বাংলাদেশে সফর নিয়ে ইতিবাচক প্রতিবেদন দিলে।

বাংলাদেশ সফরে বেশ বড় দল নিয়েই যাচ্ছে তারা। শুক্রবার বাংলাদেশ সফরের জন্য ১৭ সদস্যের টেস্ট দল ও ১৫ সদস্যের ওয়ানডে দল ঘোষণা করেছে ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড। অ্যালিস্টার কুকই টেস্ট দলের অধিনায়ক, ওয়ানডে দলের অধিনায়কত্ব দেওয়া হয়েছে জস বাটলারকে।

প্রায় সব পরিচিত মুখই আছেন দলে। ঢুকেছেন অভিষেকের অপেক্ষায় থাকা তিন খেলোয়াড়। তবে ইসিবি সবচেয়ে বড় চমকটা দিয়েছে গ্যারেথ ব্যাটিকে টেস্ট দলে ডেকে। এই অফ স্পিনার সর্বশেষ টেস্ট খেলেছেন সেই ২০০৫ সালে বাংলাদেশের বিপক্ষে চেস্টার লি স্ট্রিটে।

আরেকটা বাংলাদেশ সফরের আগেই বিস্মৃতি থেকে তুলে আনা হলো আগামী মাসে ৩৯ বছরে পা দিতে যাওয়া ব্যাটিকে। এ ছাড়া ওয়ানডে সিরিজের দলে রাখা হয়নি জো রুটকে। মূল ব্যাটিং-ভরসাকে বিশ্রাম দিয়েছে ইংল্যান্ড। ইংল্যান্ড শক্তিশালী দল ঘোষণা করায় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) স্বস্তির নিশ্বাসই ফেলেছে।

গত অক্টোবরেই টেস্ট অভিষেক হতে পারত বাঁহাতি স্পিনার আনসারির। কিন্তু যেদিন পাকিস্তান সিরিজের দলে ডাক পান, ওই দিনই ওল্ড ট্রাফোর্ডে হাতের আঙুল ভেঙে ছিটকে পড়েন আনসারি। আনসারি ছাড়াও দলে একেবারে নতুন মুখ হাসিব হামিদ ও বেন ডাকেট।

১৯ বছর বয়সী ওপেনার হামিদ কাউন্টি ক্রিকেটে রানের বন্যা বইয়ে তারপরই সুযোগ পেয়েছেন দলে। সফর থেকে সরে দাঁড়ানো অ্যালেক্স হেলসের জায়গায় অ্যালিস্টার কুকের ওপেনিং সঙ্গী হতে পারেন হামিদ। কুকের সঙ্গী হতে অবশ্য আরেক নবাগত ডাকেটের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নামতে হবে তাঁকে।

হামিদ শুধু টেস্ট দলে ডাক পেলেও ডাকেট আছেন টেস্ট ও ওয়ানডে দুই দলেই। টেস্টের আগে দুটি প্রস্তুতি ম্যাচকে একাদশে ঢোকার পরীক্ষা হিসেবেই নিতে পারেন দুই ওপেনার। সন্তানের জন্মের সময় স্ত্রীর কাছে থাকার জন্য প্রস্তুতি ম্যাচ চলাকালে ইংল্যান্ডে থাকবেন টেস্ট অধিনায়ক কুক।

দুই দিনের দুটি প্রস্তুতি ম্যাচে তাই হামিদ ও ডাকেটেরই ব্যাটিং উদ্বোধন করার কথা। যিদও আবহাওয়ার সঙ্গে খাপ খাইয়ে নেওয়ার উদ্দেশ্যে টেস্ট দলের মধ্যে সবার আগে বাংলাদেশে আসবেন অধিনায়ক কুক, তবে দুই দিনের দুটি প্রস্তুতি ম্যাচে খেলবেন না। তবে প্রথম টেস্টের আগেই আবার ফিরবেন বাংলাদেশে। মরগানের অনুপস্থিতিতে ওয়ানডে দলের অধিনায়ক হওয়া বাটলার আছেন টেস্ট দলেও।

বাটলার সর্বশেষ টেস্ট খেলেছেন গত বছর আমিরাতে পাকিস্তানের বিপক্ষে। নতুন দুই ব্যাটসম্যান হামিদ ও ডাকেটকে নিয়ে বেশ উচ্ছ্বসিত ইংল্যান্ডের নির্বাচক জেমস হুইটেকার, কাউন্টি চ্যাম্পিয়নশিপে ল্যাঙ্কাশায়ারের হয়ে দারুণ খেলেছে তরুণ হাসিব। টেস্ট দলে টপ অর্ডারে সুযোগ পাওয়ার লড়াইয়ে থাকতে পারাটা তাঁর প্রাপ্য।

কাউন্টিতে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে বড় রান পেয়েছেন ডাকেটও। শ্রীলঙ্কা এ দলের বিপক্ষে ৫০ ওভারের এক ম্যাচে ও কিন্তু ২২০ রানে অপরাজিত ছিল। দেশের মাটিতে ভালো একটা মৌসুম কাটিয়েছে ইংল্যান্ড। তিন সংস্করণ মিলিয়ে সিরিজ জিতেছে শ্রীলঙ্কা ও পাকিস্তান দুই দলের বিপক্ষেই।

ধারাটা এবার দেশের বাইরেও বয়ে নেওয়ার আশাবাদ হুইটেকারের, সব ধরনের ক্রিকেটে দারুণ একটা গ্রীষ্ম কাটানোর পর শরতে আমাদের সক্ষমতার আরেকটি পরীক্ষা হবে। এবারের চ্যালেঞ্জটা পুরোই অন্য রকম। দলের কাঠামো ও খেলোয়াড় নির্বাচন দেখেই আপনারা বুঝতে পারেন বাংলাদেশে কোন পরিস্থিতিতে খেলতে হবে। ৩০ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ আসছে ইংল্যান্ড।

ওয়ানডে দল: জস বাটলার (অধিনায়ক), মঈন আলী, জনি বেয়ারস্টো, জ্যাক বল, স্যাম বিলিংস, লিয়াম ডসন, বেন ডাকেট, লিয়াম প্লাঙ্কেট, আদিল রশিদ, জেসন রয়, বেন স্টোকস, জেমস ভিন্স, ডেভিড উইলি, ক্রিস ওকস ও মার্ক উড।

৭, ৯ ও ১২ অক্টোবর তিনটি ওয়ানডের পর দুটি টেস্ট খেলে ২ নভেম্বর দেশে ফেরার বিমানের ওঠার কথা ইংল্যান্ডের।

টেস্ট দল: অ্যালিস্টার কুক (অধিনায়ক), মঈন আলী, জেমস অ্যান্ডারসন, জাফর আনসারি, জনি বেয়ারস্টো, গ্যারি ব্যালেন্স, গ্যারেথ ব্যাটি, স্টুয়ার্ট ব্রড, জস বাটলার, বেন ডাকেট, স্টিভেন ফিন, হাসিব হামিদ, আদিল রশিদ, জো রুট, বেন স্টোকস, ক্রিস ওকস ও মার্ক উড।

বিসিবির মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুসের প্রতিক্রিয়া, বাংলাদেশ সফরকে সর্বোচ্চ গুরুত্বের সঙ্গেই নিয়েছে ইংল্যান্ড। সে জন্যই খুবই শক্তিশালী দল নিয়ে আসছে তারা। ওদের বিকল্পের অভাব নেই। মরগান ও হেলস না এলেও ওরা সেই শক্তিশালীই আছে। বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম ইংল্যান্ডের দল দেখেই যেন অনুভব করছেন লড়াইয়ের রোমাঞ্চ, ওদের দলটি অনেক শক্তিশালী হয়েছে। এটা অবশ্য প্রত্যাশিতই ছিল। ইনশা আল্লাহ ভালো লড়াই হবে। বাংলাদেশে স্পিনবান্ধব উইকেটের কথা মাথায় রেখে চার স্পিনার নিয়ে আসছে ইংল্যান্ড। মঈন আলী ও আদিল রশিদের বিকল্প হিসেবে রাখা হয়েছে ব্যাটি ও অভিষেকের অপেক্ষায় থাকা জাফর আনসারিকে।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close