যুক্তরাজ্য জুড়ে

বৃটিশদের আস্থা করবিনের চেয়ে তেরেসা মে’র ওপর বেশি

শীর্ষবিন্দু নিউজ ডেস্ক: ব্রেক্সিট পরবর্তী বৃটেনে লেবার দলের নেতা জেরেমি করবিনের চেয়ে প্রধানমন্ত্রী তেরেসা মে’র প্রতি বেশি আস্থা রাখেন বৃটিশরা।

বিশেষ করে জাতীয় স্বাস্থ্য নীতি সুরক্ষা, অভিবাসন কমিয়ে আনা ও ব্রেক্সিট বাণিজ্য চুক্তির মতো মূল ও গুরুত্বপূর্ণ ইস্যুগুলোতে তেরেসা মের প্রতি এই আস্থা প্রকাশ করেছেন তারা। এ তিনটি ইস্যুতেই বিজয়ী হয়েছেন প্রধানমন্ত্রী মে।

তুন এক জরিপে এমন সব তথ্য প্রকাশ পেয়েছে। ওই জরিপের ফল দেখতে পেয়েছে বৃটেনের প্রভাবশালী পত্রিকা দ্য গার্ডিয়ান। ওই জরিপটিতে রাজনীতিকদের কি সব বিষয়ে অগ্রাধিকার দিতে হবে তা নিয়ে প্রশ্ন করা হয়।

এর মধ্যে ছিল স্বাস্থ্য সেবা, অভিবাসন কমিয়ে আনা ও ব্রেক্সিট পরবর্তী নতুন বাণিজ্য চুক্তি। এর তিনটিতেই করবিনের চেয়ে তেরেসা মের ওপর আস্থা বেশি দেখিয়েছেন বৃটিশরা।

স্বাস্থ্য সেবা বিষয়ে তেরেসা মের ওপর আস্থা শতকরা ৩৮ ভাগ মানুষের। আর করবিনের ওপর এ আস্থা শতকরা ৩০ ভাগ। অভিবাসী কমিয়ে আনার ক্ষেত্রে তেরেসা মের প্রতি আস্থা দেখিয়েছেন শতকরা ৪৬ ভাগ ভোটার। পক্ষান্তরে করবিনের ওপর আস্থা রয়েছে শতকরা মাত্র ১২ ভাগের।

নতুন এ জরিপটির নাম দেয়া হয়েছে বৃটেন থিঙ্কস। এর পরিচালক ডেবোরাহ ম্যাটিনসন বলেছেন, যখনই আমরা জনগণের অগ্রাধিকারের নীতিগুলোর দিকে তাকাই তখনই দেখতে পাই জেরেমি করবিনের চেয়ে তেরেসা মের প্রতি আস্থা দেখাচ্ছে বেশির ভাগ মানুষ। লেবার দলের জাতীয় স্বাস্থ্য সেবার খাতেও তেরেসা মে বেশি আস্থা অর্জন করেছেন।

তিনি আরও বলেছেন, সাধারণ ভোটারের সঙ্গে সম্পর্ক গড়তে ব্যর্থ হয়েছেন জেরেমি করবিন। আমরা যাদেরকে এ জরিপে পেয়েছি তাদের অর্ধেকই তাকে চেনেন না। তাদেরকে করবিনের ছবি দেখানো হয়েছিল।

কিন্তু তারা তাকে সনাক্ত করতে পারে নি। একটি মূল ধারার রাজনৈতিক দলের নেতার জন্য এমন নিম্ন মাত্রার জনপ্রিয়তা বা পরিচিতি আমি এর আগে কখনো দেখি নি। অভিবাসন ইস্যুতে করবিনের অবস্থান সবার জানা।

তিনি ইউরোপীয় ইউনিয়নে চলাফেলা উন্মুক্ত রাখার পক্ষে। নিজের এমন অবস্থান পরিষ্কার করেছেন।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close