যুক্তরাজ্য জুড়ে

লেবারকে নেতৃত্ব দিতে আবারও নির্বাচিত জেরেমি করবিন

শীর্ষবিন্দু নিউজ ডেস্ক: পুনরায় লেবার পার্টির নেতা নির্বাচিত হয়েছেন জেরেমি করবিন। লিভারপুলে রোববার লেবার পার্টির সম্মেলনের আগের দিন সন্ধ্যায় এ ফলাফল ঘোষণা করা হলো। এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি।

গত বছরের তুলনায় এ বছর বেশি ভোট পেয়ে প্রতিদ্বন্দ্বী ওয়েন স্মিথকে হারান তিনি। এবার ৬১ দশমিক ৮ শতাংশ ভোট পেয়েছেন করবিন। জয়লাভ করার পর করবিন পুনরায় দলকে একত্রিত করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

সেইসঙ্গে লেবার পার্টিকে দেশের অগ্রগতির প্রধান চালিকা শক্তিতে পরিণত করা এবং পরবর্তী জাতীয় নির্বাচনে তার দল জয়লাভ করবে বলে জোর আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন। পাঁচ লাখের বেশি দলীয় সদস্য, ট্রেড ইউনিয়নের সদস্য ও নিবন্ধিত দলীয় সমর্থকরা লেবার পার্টির নেতা নির্বাচনে ভোট দিয়েছেন।

নির্বাচনে করবিন তিন লাখ ১৩ হাজার ২০৯ ভোট এবং স্মিথ এক লাখ ৯৩ হাজার ২২৯ ভোট পান। ২০১৫ সালের সেপ্টেম্বরে প্রথমবার লেবার পার্টির নেতা নির্বাচিত হন করবিন। সেবার ৫৯ দশমিক ৫ শতাংশ ভোট পেয়েছিলেন তিনি।

ঐতিহাসিক গণভোটে যুক্তরাজ্যের ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত আসার পরই লেবার নেতৃত্ব থেকে করবিনের সরে যাওয়ার দাবি তুলেছিলেন তার ছায়া মন্ত্রিসভার অর্ধেকের বেশি সদস্য।

এরপর গোপন ব্যালটে ভোটে যুক্তরাজ্যের প্রধান বিরোধী দল লেবার পার্টির অধিকাংশ এমপি নেতা হিসেবে করবিনের বিরুদ্ধে অনাস্থা জানায়। করবিনের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাবের পক্ষে ভোট পড়েছিল ১৭২টি, বিপক্ষে পড়েছিল ৪০টি ভোট। অনুপস্থিত ছিলেন চারজন এমপি।

বিপুল ব্যবধানে বৃটেনের বিরোধী দল লেবার পার্টির নেতা পুনঃনির্বাচিত হয়েছেন উদারপন্থী জেরেমি করবিন। মোট ৬১.৮ শতাংশ ভোট পেয়ে তিনি পরাজিত করেছেন প্রতিদ্বন্দ্বী ওয়েন স্মিথকে। পূর্বের নির্বাচনের চেয়েও এবার আরও বড় ব্যবধানে জয়ী হয়েছেন তিনি।

নির্বাচনে জয়ী হয়ে দলকে একতাবদ্ধ করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। লেবার দলকে দেশের অগ্রগতির চালিকাশক্তিতে পরিণত করার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেছেন তিনি। নির্বাচনে ভোট দিয়েছেন ৫ লাখেরও বেশি দলীয় সদস্য, ট্রেড ইউনিয়ন সদস্য ও নিবন্ধিত সমর্থক। লিভারপুলে লেবার পার্টির সম্মেলনের প্রাক্বালে ফল ঘোষিত হয়। এতে করবিন পেয়েছেন ৩১৩২০৯ ভোট। অপরদিকে ওয়েন স্মিথ পেয়েছেন ১৯৩২২৯ ভোট।

বিবিসির সহকারী রাজনৈতিক সম্পাদক নরম্যান স্মিথ বলেন, এটি করবিনের জন্য বড় বিজয়। এর ফলে তার ম্যান্ডেট ব্যাপকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। তিনি আরও যোগ করেন, এ ফল করবিনের সমালোচকদেরও প্রশ্নের মুখে ফেলেছে।

নির্বাচনে জয়ী হয়ে করবিন বলেন, লেবার নেতা হিসেবে নির্বাচিত হয়ে তিনি সম্মানিত বোধ করছেন। তিনি সকলকে গণতান্ত্রিক সিদ্ধান্তের প্রতি সম্মান দেখানোর আহ্বান জানিয়েছেন। সমর্থকদের উদ্দেশ্যে দেয়া এক বক্তৃতায় তিনি বলেন, আমি ও আমার প্রতিপক্ষরা একই লেবার পরিবারের সদস্য। সবার উচিৎ টরি দলের রূপ উন্মোচন করা ও দলটিকে পরাজিত করার দিকে সর্বশক্তি ব্যয় করা।

তিনি আরও জানান তার বিরোধীদের কাছে যাবেন তিনি। কারণ, প্রধানমন্ত্রী তেরেসা মের বিরুদ্ধে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে এবার।

খবরে বলা হয়, ধারণা করা হচ্ছে জুনে করবিনের নেতৃত্বের বিরুদ্ধে গিয়ে যেসব লেবার এমপি তার ছায়া মন্ত্রীসভা থেকে পদত্যাগ করেছেন তারা আবার ফিরতে পারেন। তবে করবিনের ছায়া মন্ত্রীসভার সদস্যরা ভবিষ্যতে নির্বাচিত হবেন কিনা, কিংবা কাদের দ্বারা নির্বাচিত হবেন, এই প্রশ্ন এখনও ফয়সালা হয়নি।

২০১৫ সালের সেপ্টেম্বরে প্রথমবারের মতো লেবার নেতা নির্বাচিত হন করবিন। বাকি তিন প্রার্থীকে তিনি বিপুল ব্যবধানে পরাজিত করেন। করবিন পেয়েছিলেন ৫৯.৫ শতাংশ ভোট। তবে এবার ভোটদানের হার ছিল বেশি। ৬৪০৫০০ জন ভোটারের মধ্যে ৭৭.৬% ভোট দিয়েছেন।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close