অন্য পত্রিকা থেকে

গর্ভপাত নিষিদ্ধে ধর্মঘটে পোল্যান্ডের নারীরা

আন্তর্জাতিক নিউজ ডেস্ক: পোল্যান্ড সরকারের পক্ষ থেকে গর্ভপাতকে সম্পূর্ণভাবে নিষিদ্ধ করার পরিকল্পনার বিরুদ্ধে ধর্মঘটে নেমেছেন পোলিশ নারীরা। এ খবর দিয়েছে বিবিসি।

নিজেদের প্রজনন অধিকারের বিরুদ্ধে আনা এই পরিকল্পনার বিরুদ্ধে তারা রাস্তায় নেমেছেন কালো পোশাক পরে। তারা কাজে যাচ্ছেন না, স্কুলে যাচ্ছেন না এবং গৃহস্থালির কাজ করতেও অস্বীকৃতি জানাচ্ছেন। এর বিপরীতে অবশ্য গর্ভপাতবিরোধী আন্দোলনও চলছে পোল্যান্ডে।

খবরে বলা হয়, গতকাল পোলিশ নারীরা নেমে আসেন রাজধানী ওয়ারশ’র রাস্তায়। তারা এই আন্দোলনের নাম দিয়েছেন ‘ব্ল্যাক মানডে’ বা ‘কালো সোমবার’। অন্যান্য বড় শহরগুলোতেও চলেছে এই আন্দোলন। তবে ঠিক কি পরিমাণ নারী এই আন্দোলনে অংশ নিচ্ছেন সে সম্পর্কে স্পষ্ট তথ্য পাওয়া যাচ্ছে না।

বড় শহরগুলোর বাইরে এই আন্দোলন কতটা ছড়িয়ে পড়বে, তা নিয়েও স্পষ্ট তথ্য নেই। পোল্যান্ডের সরকারের গর্ভপাত নিষিদ্ধের পরিকল্পনা এরই মধ্যে বিল আকারে উত্থাপিত হয়েছে এবং দেশটির সংসদে প্রথম ধাপে তা অনুমোদনও পেয়েছে। এই পরিকল্পনা অনুমোদিত হলে পোল্যান্ডে গর্ভপাতবিষয়ক আইন হবে ইউরোপের দেশগুলোর মধ্যে অন্যতম কঠোর। কোনো নারী গর্ভপাত করলে তার পাঁচ বছরের কারাদণ্ড হবে।

গর্ভপাতে সহায়তাকারী ডাক্তারকেও একই শাস্তি ভোগ করতে হবে। এখনও পোল্যান্ডে গর্ভপাত বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই নিষিদ্ধ। তবে কিছু কিছু ক্ষেত্রে ছাড় রয়েছে। কোনো নারীর জীবন বিপদসংকুল হলে, গর্ভস্থ ভ্রূণের মারাত্মক ও অপূরণীয় ক্ষতির আশঙ্কা থাকলে এবং ধর্ষণের দ্বারা গর্ভধারণ হলে সেক্ষেত্রে গর্ভপাত করার অনুমোদন রয়েছে।

কিন্তু নতুন আইনে যেকোনো পরিস্থিতির জন্যই গর্ভপাতকে নিষিদ্ধ করা হবে। সমালোচকরা বলছেন, এই আইন পাস হলে কোনো নারীর গর্ভ নষ্ট হলেও তা তদন্তের আওতায় আসবে এবং তাকে গর্ভপাত হিসেবে বিবেচনা করা হতে পারে।

বিশেষ করে গর্ভধারণের শুরুর দিকে গর্ভ নষ্ট হওয়া ও গর্ভপাতের লক্ষণগুলোও অনেক ক্ষেত্রেই পার্থক্য করার মতো নয়। এ কারণেই বিক্ষোভকারীরা বলছেন, এই আইন পাস হলেই তা নারীদের সম্পূর্ণরূপে অরক্ষিত করে তুলবে। এমনকি গর্ভধারণ তাদের প্রাণধারণকে হুমকির মুখে ফেললেও তাদের কিছুই করার থাকবে না।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

আরও দেখুন...

Close
ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close