অন্য পত্রিকা থেকে

ভারতকে দাঁতভাঙা জবাব দেওয়ার প্রস্তুতি পাকিস্তানের

আন্তর্জাতিক নিউজ ডেস্ক: অনেক হয়েছে। আর না। পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) সব ধৈর্য্যের বাঁধ ভেঙেছে। ভারতকে যথেষ্ট তোয়াজ করে চলা হয়েছে। কিন্তু তাদেরই বারবার খাঁটো করছে দেশটির ক্রিকেট বোর্ড বিসিসিআই।

সম্প্রতি উরি নিয়ে যুদ্ধ-যুদ্ধ উত্তেজনায় কতো কথাই না শুনতে হচ্ছে। আগামী সপ্তাহে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থা আইসিসির বৈঠকে এর দাঁতভাঙা জবাব দেওয়ার প্রস্তুতি নিয়েছে পিসিবি। এমনকি বিশ্বকাপের মতো ইভেন্টে ভারতকে বয়কট করার প্রস্তাবও তাদের কাছে আছে।

উরির ঝামেলাটা ক্রিকেটে গিয়ে লাগলো যখন বিসিসিআইয়ের প্রেসিডেন্ট অনুরাগ ঠাকুর মুখ খুললেন। পাকিস্তানের সাথে আর খেলবে না ভারতে, আইসিসির ইভেন্টেও তাদের বয়কট করবে। এমন কথা উঠে এল। ভারতের বোর্ড প্রধানের এই কথা পিসিবি সইবে কেন! গত কয়েক বছর ধরে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলতে অনেক চেষ্টাই করেছে তারা। সবকিছু ব্যর্থ হয়েছে। তবু তারা ভারতকে নিয়ে নেতিবাচক কথা বলে না। কিন্তু তাদের তো ভারত সম্মান করছে না!

আগামী সপ্তাহে দক্ষিণ আফ্রিকার কেপটাউনে আইসিসির সভা। সেখানে পিসিবি প্রেসিডেন্ট শাহরিয়ার খানের সাথে থাকবেন পিসিবির সাবেক প্রধান ও বর্তমান নির্বাহী কমিটি প্রধান নাজাম শেঠি। তিনিই বলেছেন, আমরা তাদের কথা বার্তা শুনেছি। আইসিসি বৈঠকে তাদের উপযুক্ত জবাবই দেব।

আইসিসির সাবেক প্রেসিডেন্ট এহসান মানির দাবি, এই সভায় অনুরাগের কাছ থেকে ব্যাখ্যা চাওয়া উচিৎ খোদ আইসিসিরই। কারণ আরেকটি সদস্য দেশ সম্পর্কে এভাবে কথা বলার অধিকার তার নেই।

এই পাকিস্তানি সাবেক ক্রিকেট প্রশাসক বলেছেন, তিনি গত বছর দুয়েক ধরেই পিসিবিকে বলছেন আইসিসির কোনো ইভেন্টে পাকিস্তান যেন ভারতের সাথে না খেলে। আইসিসি তাতে অনেক টাকা কামায়। সিংহভাগ যায় ভারতের পকেটে।

অথচ সেই তারাই আমাদের সাথে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক চায় না। মানি মনে করেন, আইসিসিকে যেন পিসিবি বলে যে ভারতের সাথে আর কোনো বিশ্ব আসরের গ্রুপ পর্বে তারা খেলতে চায় না। এই যখন পরিস্থিতি তখন উরির উত্তেজনা যে কেপটাউনে উত্তাপ ছড়াবে বেশ তা বোঝা যাচ্ছে এখনই!

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close