Americaযুক্তরাষ্ট্র জুড়ে

এইচ-১বি ভিসায় নিয়ম লঙ্ঘনের বিরুদ্ধে উদ্বেগ প্রকাশ :কঠোর অবস্থান নেবেন ট্রাম্প

শীর্ষবিন্দু আন্তর্জাতিক নিউজ ডেস্ক: ওয়ার্ক ভিসার ক্ষেত্রে নিয়ম লঙ্ঘনের বিরুদ্ধে তদন্ত করার প্রত্যয় ঘোষণা করেছেন যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত ডনাল্ড ট্রাম্প। এর ফলে কঠোর তল্লাশির মুখোমুখি হতে পারেন সেখানে কর্মরত বিদেশী কর্মীরা।

বার্তা সংস্থা পিটিআই এ খবর দিয়েছে। ট্রাম্পের এমন সিদ্ধান্তের কারণে সেখানে কর্মরত এশিয়ার অনেক মানুষ ভোগান্তিতে পড়তে পারেন। তিনি বলেছেন, তিনি প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব নেয়ার পর প্রথম যেসব নির্বাহী নির্দেশ দেবেন তার অন্যতম হলো সব রকম ভিসার নীতি লঙ্ঘনের বিরুদ্ধে তদন্ত।

এক্ষেত্রে তিনি কোন ধরণের ভিসা লঙ্ঘনের কথা সুস্পষ্টভাবে উল্লেখ করেন নি। তবে আইন প্রণেতারা গত দু’এক বছর ধরে বিভিন্ন কোম্পানির ইস্যু করা এইচ-১বি ভিসায় নিয়ম লঙ্ঘনের বিরুদ্ধে উদ্বেগ প্রকাশ করে আসছেন। প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচারণার সময় ট্রাম্প বিষয়টিতে জোর দেন। তিনি অভিবাসন নীতি কঠোর করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

যেসব কোম্পানি এশিয়ার বিভিন্ন দেশ, বিশেষ করে ভারত ও চীনাদের কাছে কাজ দেয় তাদের সমালোচনা করেন। তার সেই কথার প্রতিধ্বনি শোনা গিয়েছে শুক্রবার মিশিগানে এক র্যালিতে। তিনি সে সময় বলেছেন, আমার প্রথম নির্বাহী নির্দেশের একটি হবে শ্রম মন্ত্রণালয়কে সব ধরণের ভিসার নিয়ম লঙ্ঘনের বিষয়টি তদন্ত করতে বলা।

এ নিয়ম লঙ্ঘনের কারণে যুক্তরাষ্ট্রের নিজস্ব কর্মীদের কাজ ও বেতনের ক্ষেত্র সঙ্কুচিত হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, আমরা যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিটি মানুষের জীবন রক্ষার জন্য লড়াই করবো। নির্বাচনী প্রচারণার সময় আমি ওইসব আমেরিকান কর্মীদের সঙ্গে সময় কাটিয়েছি, যাদেরকে দিয়ে বিদেশী কর্মীদের প্রশিক্ষণ দিতে বাধ্য করা হয়েছে।

ওইসব বিদেশী শ্রমিক তাদের কর্মসংস্থানের স্থান নিয়ে নিয়েছে। এটা আর চলতে দেয়া যায় না।বিশেষ করে তিনি ডিজনি ওয়ার্ল্ড ও অন্য আমেরিকান কোম্পানির দিকে ইঙ্গিত করেছেন। এসব কোম্পানি এইচ-১বি ভিসার মাধ্যমে বিদেশী কর্মী নিয়েছে। ফলে ট্রাম্পের ধারণা বিদেশী ওইসব কর্মী যুক্তরাষ্ট্রের কর্মীদের কাজ কেড়ে নিয়েছে।

এ ছাড়া তিনি অবৈধ অভিবাসন বন্ধেরও প্রত্যয় ঘোষণা করেছেন। ট্রাম্প বলেন, আমার দেশকে সন্ত্রাস ও কট্টরপন্থা থেকে রক্ষা করতে আমি অভিবাসন বন্ধ করবো। যেসব অঞ্চল থেকে নিরাপদ ব্যবস্থায় শরণার্থী আসতে পারে না তাদেরকে যুক্তরাষ্ট্রে আসাও বন্ধ করবো।

অভিবাসন ইস্যুতে আমি একটি বিশাল দেয়াল নির্মাণ করবো। এর মাধ্যমে অনুপ্রবেশ বন্ধ করবো। দেশের ভিতরে মাদক প্রবেশ বন্ধ করবো। আমাদের যুব সমাজ ও অন্যদের বিষক্রিয়া থেকে রক্ষা করবো।

তিনি আরও বলেন, আমাদের দেশে হাজার হাজার, লাখ লাখ মানুষ আসছে। তবে সেটা হতে হবে অবশ্যই বিধিবদ্ধ প্রক্রিয়ায়। আইসিস ইস্যুতে তিনি বলেন, আমরা আইসিস থেকে মুক্ত হবো। তাদেরকে চলে যেতেই হবে। একই সঙ্গে, আমাদের বয়সী যোদ্ধাদের বিশ্বের সবচেয়ে সেরা স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করবো।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close