জাতীয়

প্রচারণার উত্তাপ নারায়ণগঞ্জে

শীর্ষবিন্দু আন্তর্জাতিক নিউজ ডেস্ক: নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে দুই মেয়র প্রার্থী প্রচারণার সময় উত্তাপ ছড়াচ্ছেন।

আওয়ামী লীগ দলীয় মেয়র প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াত আইভী একটা বলছেন তো পরক্ষণে কাউন্টার বক্তব্য দিচ্ছেন বিএনপি দলীয় মেয়র প্রার্থী সাখাওয়াত হোসেন খান।

বার সাখাওয়াত বলছেন তো কাউন্টার দিচ্ছেন আইভী। গতকালও গণসংযোগের সময় একজন জনগণের উপর বিচারের ভার দিলেও আরেকজন চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছেন।

সাখাওয়াতকে আইভীর চ্যালেঞ্জ

‘নির্বাচিত হলে শীতলক্ষ্যা নদীর উপর সেতু করে দিবো’ বিএনপি প্রার্থী সাখাওয়াত হোসেন খানের প্রতিশ্রুতিকে পাল্টা চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভী।

তিনি বলেছেন, সাখাওয়াত হোসেন যে প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন ব্রিজ করে দিবে তা তিনি কি ভাবে করে দিবে। উন্নয়নের এ ধারাবাহিকতা রাখতে হলে আইভীকেই প্রয়োজন আছে। এ সরকারের প্রয়োজন আছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী অবশ্যই এ সেতু করে দিবেন।

সোমবার সকালে শহরের ১২নং ওয়ার্ডের ইসদাইর উত্তর চাষাঢ়ায় গণসংযোগের সময়ে তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ অ্যাথলেটিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক ইব্রাহিম চেঙ্গিস প্রমুখ।

আইভী আরো বলেন, শীতলক্ষ্যা নদীর উপরে সেতু করে দিবো এ ধরনের কোনো প্রতিশ্রুতি আমি কখনো দেই নাই। তবে সেতু করার জন্য বিগত ৫ বছর অনেক চেষ্টা করেছি। আমি সিটি করপোরেশনের মাধ্যমে ৫নং খেয়াঘাট এলাকা দিয়ে সেতু তৈরি করতে চাচ্ছি সেটার কাজও অনেক দূর এগিয়ে গেছে। আমি চেষ্টা করবো যাতে এ ব্রিজটা যেন করা যায়।

গ্যাস পানির সমস্যার বিষয়ে আইভী বলেন, ‘গ্যাস ও পানি নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের নয়। গ্যাসের একটা সমস্যা নারায়ণগঞ্জে আছে। ইতিমধ্যে আমি প্রতিমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেছি। তবে এখন হয়তো কিছুটা গ্যাসের চাপ কমে গেছে। তবে গ্যাসের কাজ এখানে চলছে।

তাই দয়া করে এ নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়াবেন না। পানির সমস্যা ঢাকা ওয়াসার কাজ সেটা ওয়াসা দেখবে। কিন্তু এ কাজটাকে সহযোগিতা করার জন্য আমাদের যতটুকু সহযোগিতা প্রয়োজন সেটা করবো।’

সেনাবাহিনী মোতায়েন বিষয়ে আইভী বলেন, নির্বাচনের আরো ৯ দিন বাকি। দিনের পর দিন নির্বাচন চিত্র বদলাচ্ছে। যদি নির্বাচন কমিশন মনে করেন তাহলে তারা এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিবে। এ ব্যাপারে আমার কোনো বলার নেই।

কাঙ্ক্ষিত উন্নয়ন করতে পারেনি আইভী প্রতিদ্বন্দ্বী মেয়র প্রার্থী সাখায়াত হোসেনের অভিযোগের প্রেক্ষিতে আইভী বলেন,‘এ বিষয়ে জনগণ বলবে আমি বলবো না। উন্নয়ন কি করেছি না করেছি সেটা জনগণই ভালো বলতে পারবে।’

আইভীকে সঙ্গে নিয়ে কেন্দ্রীয় নেতাদের গণসংযোগ

ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীর পক্ষে গণসংযোগ করলেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা। গতকাল বিকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত নারায়ণগঞ্জ শহরের ১৫নং ওয়ার্ডে ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী প্রচারণা চালায়।

এ সময় গণসংযোগে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি মণ্ডলীর সদস্য কাজী জাফর উল্লাহ, সাংগঠনিক সম্পাদক মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক সুজিত নন্দি রায়, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু হাসনাত মোহাম্মদ শহীদ বাদল, শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খোকন সাহা, জেলা বারের সভাপতি আওয়ামী লীগ নেতা আনিসুর রহমান দীপু, সাংগঠনিক সম্পাদক জি এম আরাফাত, শহর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আলী আহম্মদ রেজা উজ্জল, ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী অসিত বরণ বিশ্বাস, স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যক্ষ মোনতাজ উদ্দিন মর্তুজা প্রমুখ।

আইভী নারায়ণগঞ্জ শহরে ১৫নং ওয়ার্ডের জিমখানা মদিনা মার্কেট থেকে শুরু করে নতুন জিমখানা, নগরভবন, নিতাইগঞ্জ, ডাইলপট্টি, বংশাল, নিমতলা, মণ্ডলপাড়া, রেলিবাগান, টানবাজার, থানা পুকুরপাড়, উত্তর রেলিবাগান, নয়ামাটি হয়ে ২নং রেল গেইট এলাকায় জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে গিয়ে গণসংযোগ শেষ হয়।

রেলিবাগানে গণসংযোগকালে এলাবাসীর নানা দুঃখ, কষ্ট ও দাবির কথা জানতে পারেন মেয়র প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী। এ সময় গলির মাথায় অপেক্ষারত এক দল বৃদ্ধা তাদের দুঃখের কথা জানিয়ে বলেন, মা আমাদের মাথা গোঁজার জন্য ঘর নেই, আমাদের কি হবে মা, আমাদের কি দেখবে না মা।

জবাবে ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেন, এদেশ কার এ সময় একজন বলেন শেখ হাসিনার। আইভী বলেন, সেই নেত্রীর কাছে আমি এ এলাকার সমস্যার কথা জানিয়েছি উনি আপনাদের দেখবেন। আর আমি সুইপারদের জন্য ৬ তলা বিল্ডিং করে দেবো।

ইতিমধ্যে ৪ তলার জন্য অনুমোদন পাশ হয়েছে। সুতরাং আপনারা ভোট দিয়ে আমাকে পাশ করিয়ে উন্নয়নের কাজ করার সুযোগ দেন, আমি নিশ্চয় করবো। অতীতে যা কথা দিয়েছি তা রেখেছি। আশা করি আগামীতেও করবো।

আইভীর বিচার জনগণের উপর দিলাম: সাখাওয়াত

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত মেয়র প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভীর পক্ষে এমপি শামীম ওসমানের সংবাদ সম্মেলনকে ইঙ্গিত করে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী সাখাওয়াত হোসেন খান বলেছেন, ‘আইভী কার সঙ্গে হাত মিলিয়েছে সেই বিচারটা জনগণের উপর দিলাম।

আমি সন্ত্রাস নির্মূল করবো। সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে কথা বলেছি। আইভীর সন্ত্রাসবিরোধী অবস্থান শুধু একটা পরিবারে বিরুদ্ধে ছিলো। কোনো সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে কোনো কথা বলেন নাই। শুধু মাত্র একটি পরিবারে বিরুদ্ধে কথা বলে ওনি (আইভী) আজ দাবি করছেন সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে কথা বলছেন।

আর আমি ওই পরিবারের (ওসমান পরিবার) বিরুদ্ধেও কথা বলেছি সকল অন্যায় অত্যাচার ও অপরাধের বিরুদ্ধেও কথা বলেছি। ওনার (শামীম ওসমান) কার্যক্রমের বিরুদ্ধেও আমি কথা বলেছি।’

গতকাল সকাল থেকে শহরের বিভিন্ন স্থানে প্রচারণার সময় সাখাওয়াত এসব কথা বলেন। এ সময় তার সঙ্গে বিএনপি নির্বাহী কমিটির সদস্য তাবিথ আওয়াল, যুবদলের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-কোষাধ্যক্ষ মোস্তাফিজুর রহমান ভূঁইয়া দিপু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে আইভী অভিযোগ তুলেছিলেন সাখাওয়াত নারায়ণগঞ্জের বাসিন্দা না। সে বিএনপির ভাড়াটে। ওই বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় সাখাওয়াত বলেন, ‘আমাদের পরিবার এ শহরের ১৫০ বছর ধরে ব্যবসা বাণিজ্যের সঙ্গে জড়িত। আমার শিক্ষা জীবন এখানে কেটেছে। আমি আমার ২৫ বছরের পেশাজীবনে এ নারায়ণগঞ্জের মানুষের সঙ্গেই ছিলাম। এখনো আছি এবং ভবিষ্যতেও থাকবো।

এ নারায়ণগঞ্জের মানুষ জানে আমি তাদের সুখে দুঃখে তাদের পাশে ছিলাম, আছি ও থাকবো। সেলিনা হায়াৎ আইভী তো নিউজিল্যান্ডের বাসিন্দা। ওনার স্বামী নিউজিল্যান্ডের নাগরিক। ওনিও নিউজল্যান্ডের নাগরিক ছিলেন। ২০০৩ সালে নির্বাচন করার জন্য নাগরিকত্ব ছেড়ে এখানে এসেছেন। এখানে একটা কথা হচ্ছে শুইয়ের পিছনে যে একটা ছিদ্র আছে সে ঝাঁজরকে ছিদ্র বলে নিন্দা করে।’

সাখাওয়াত বলেন, আইভী ১৩ বছর সময় পেয়েও অনেক সমস্যা সমাধান ও উন্নয়ন করতে পারেননি। আমাকে মানুষ ৫ বছর সময় দিলে আমি সন্ত্রাস নির্মূল করবো। আইভী বুঝে গেছে জনগণ ওনাকে আর ভোট দিবে না।

আইভীই ভাড়াটিয়া-জয়নাল আবদীন

এদিকে গতকাল সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত ১নং ওয়ার্ডে ধানের শীষের পক্ষে গণসংযোগ করেছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারা। এ সময় লিফলেট বিতরণ করে ধানের শীষের পক্ষে ভোট চান মেয়র প্রার্থী সাখাওয়াত হোসেন।

আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী আইভী সাখাওয়াতকে ভাড়াটিয়া বলেছেন সাংবাদিকদের এই প্রশ্নের জবাবে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নাল আবদীন ফারুক বলেন, এত নোংরা কথা ব্যবহার করা আমাদের নেত্রী আমাদের শেখাইনি।

আমার মনে হয়, ওনি (আইভী) নোংরা থেকে জন্ম নিয়েছেন। না হলে একটা বৃহত্তম দলের প্রার্থী তাকে (সাখাওয়াত) ভাড়াটিয়া বলাটা সমীচীন নয়। সে (আইভী) যদি শিক্ষিত ডক্টর হয়ে থাকে প্রাচীনতম দলের মনোনীত প্রার্থী হয়ে থাকে, তার মতো মহিলা প্রার্থী হয়ে এ ধরনের কথা বলার তীব্র প্রতিবাদ জানাই। বরং আমি বলতে চাই, যাকে এখন নৌকাটা হাতে তুলে দিয়েছেন আওয়ামী লীগ, প্রকৃত পক্ষে ওনিই ভাড়াটিয়া, ওনি নমিনেশন পাননি। ওনাকে প্রধানমন্ত্রী নমিনেশন দিয়েছেন, আওয়ামী লীগ ওনাকে নমিনেশন দেননি।

উপস্থিত ছিলেন, বিএনপি নির্বাহী কমিটির সদস্য তাবিদ আউয়াল, নির্বাহী কমিটির সদস্য মুহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক মনিরুল ইসলাম রবি, থানা বিএনপি’র সাবেক সভাপতি আঃ হাই রাজু, সাবেক সাধারণ সম্পাদক এম,এ হালিম জুয়েল, ১নং ওয়ার্ড বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ফজলুর রহমান খান, সাংগঠনিক সম্পাদক গাজী মনির হোসেন, বিএনপি নেতা জয়নাল আবদীনসহ জাতীয় ও স্থানীয় নেতৃবৃন্দ।

৫ ও ৭নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ

এদিকে ৫নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেছেন বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য নাজিম উদ্দিন আলম, নাসিক নির্বাচনের সিদ্ধিরগঞ্জের প্রধান সমন্বয়কারী বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুস সালাম আজাদ, নির্বাহী কমিটির সদস্য রফিকুল ইসলাম সিকদারসহ কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নেতারা। ৭নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেছেন থানা বিএনপি’র সদস্য সচিব অধ্যাপক মামুন মাহমুদ, ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি মোশারফ হোসেনসহ স্থানীয় নেতারা।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

আরও দেখুন...

Close
ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close