জাতীয়

নেপা‌লের প‌থে মেড ইন বাংলা‌দেশ বহর

শীর্ষবিন্দু আন্তর্জাতিক নিউজ ডেস্ক: নেপালের পথে যাত্রা করলো রানার গ্রুপের মোটরবাইক বহর। এর মধ্যদিয়ে বাংলাদেশের রফতানি পণ্যের বহরে যুক্ত হল মোটরবাইকের নাম। শনিবার (২১ জানুয়ারি) ময়মনসিংহের ভালুকা কারখানায় আনুষ্ঠানিকভাবে মোটরবাইক রফতানি উদ্বোধন করেন বাণিজ্য মন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ।

প্রথম ধাপে ৯টি কাভার্ড ভ্যান নেপালের পথে রওয়ানা দিয়েছে। প্রত্যেকটি কাভার্ড ভ্যানে সতেরটি করে মোটর বাইক রয়েছে। প্রথম লটে বুলেট ১২৫ বাইক নেপাল যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন রানার গ্রুপ কর্তৃপক্ষ।

উদ্বোধনী বক্তব্যে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, এতোদিন শুধু দেশের অভ্যন্তরে বাজারজাত করতো রানার মোটরবাইক। নেপালের বাইক রফতারি মাধ্যমে আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে পা রাখলো তারা। তোফায়েল বলেন, বাংলাদেশ সবকিছু পারে এটা তার উৎকৃষ্ট উদাহরণ।

চীনের ডায়াং মোটরসাইকেল বিপণনের মাধ্যমে রানার অটোমোবাইলস্ লিমিটেড যাত্রা শুরু করে ২০০০ সালে। সেখান থেকে প্রযুক্তি সহায়তা নিয়ে অটোমোবাইলস্ লিমিটেড ডায়াং মোটরসাইকেলকে বাংলাদেশে একটি ব্র্যান্ড হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছে। ২০০৭ সালে ময়মনসিংহের ভালুকায় স্থাপন করা হয় মোটরবাইকের কম্পোনেন্টস তৈরির কারখানা।

২০১১ সালে রানার ওয়েল্ডিং, পেইন্টিং, এসেম্বলিং, টেস্টিং, চেসিস, রিয়ার ফোরক, ফুয়েল ট্যাঙ্ক, মেইন স্ট্যান্ড, সাইড স্ট্যান্ড, ফুট পিগ এবং ইঞ্জিন তৈরির মাধ্যমে মোটরসাইকেল উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে। ২০১২ সালে পুরোদমে মোটরসাইকেল উৎপাদন শুরু করে রানার গ্রুপ। এ সকল যন্ত্রাংশ রং করার জন্য অত্যাধুনিক পেইন্টশপ স্থাপন করেছে তারা।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত রয়েছেন- রানার অটোমোবাইলস লিমিটেডের চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান খান, ভাইস-চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হোসেন, ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও মুকেশ শর্মা, আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান মেট্রিক্স মোটো করপোরেশনের দিলীপ কুমার কার্নাসহ জেলা প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close