অন্য পত্রিকা থেকে

বিশ্বনাথ প্রবাসী এডুকেশন ট্রাস্টের নির্বাচন সম্পন্ন: মতরিছ-মিছবাহ-আজম এলায়েন্সের বিশাল জয়

জাকির হোসেন কয়েছ: বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে সম্পন্ন হয়েছে বিশ্বনাথ প্রবাসী এডুকেশন ট্রাষ্টের দ্বি-বার্ষিক সাধারণ সভা ও নির্বাচন। নির্বাচনে সভাপতি পদে নির্বাচিত হয়েছে মতছির খান, সাধারণ সম্পদক পদে ১ ভোটের ব্যবধানে নির্বাচিত হয়েছেন মিছবাহ উদ্দিন ও বিশাল ব্যবধানে ট্রেজারার নির্বাচিত হয়েছেন আজম খান।

দ্বি-বার্ষিক সাধারণ সভা ও নির্বাচনকে কেন্দ্র করে রবিবার পূর্ব লন্ডনের ওয়াটার লিলি হলে সংগঠনের বিপুল সংখ্যক ট্রাস্টিবৃৃন্দের উপস্থিতি ঘটে। দুপুর ২ঘটিকা থেকে শুরু হয়ে নির্বাচনে ভোট গ্রহন চলে সন্ধ্যা ৭ ঘটিকা পর্যন্ত। এরপর ফলাফল ঘোষণা করা হয় রাত প্রায় ৪ঘটিকার সময়।

নির্বাচনে সাধারণ সম্পাদক ও একটি সহ সভাপতি পদে ভোটের ব্যবধান কম হওয়ায় একাধিকবার গণনা করা হয়। এরফলে ৪টা পর্যন্ত প্রার্থী ও সমর্থকদের অপেক্ষা করতে হয়।

সর্বশেষ নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানাগেছে সভাপতি পদে ১৫২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন মতছির খান। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী ছিলেন মাফিজ খান ১০৫ ভোট। সহ সভাপতি পদে নির্বাচিত হয়েছে শেখ তাহির উল্লাহ ১২৮ ভোট, সাজ্জাদুর রহমান ১২১ ভোট। তাদের নিকটতম দুই প্রতিদ্বন্ধী হচ্ছে সুনু মিয়া ১১৯ ভোট ও আফছর মিয়া ছোট মিয়া ৯৮ ভোট। সাধারণ সম্পাদক পদে মিসবাহ উদ্দিন ১২৩ ভোট ও আসাদুর রহমান ১২২ ভোট।

১ ভোটে মিছবাহ উদ্দিন বিজয় হন। সহ সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচিত হন আকলাকুর রহমান ১৪০ ভোট ও এম আলী মজনু ১২১ ভোট। তাদের প্রতিদ্বন্ধী অপর দুই প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থীর প্রাপ্ত ভোট হচ্ছে সামসাদুর রহমান রাহিন ১১৩ ভোট ও তৈয়বুর রহমান ৭৭ ভোট।

ট্রেজারার পদে নির্বাচিত হয়েছেন আজম খান ১৪৪ ভোট। তার প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থী পেয়েছেন আব্দুল কুদ্দুছ ১০০ ভোট। সহ ট্রেজারার পদে নির্বাচিত হয়েছেন আব্দুল ওদুদ শাহেল ১১৬ ভোট। তার প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থী আব্দুর রৌশন চেরাগ পেয়েছে ১০৯ ভোট, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক পদে বিজয়ী হয়েছেন মোহাম্মদ মানিক মিয়া ১২৬ ভোট। তার প্রতিদ্বন্ধী ওয়াহিদ আলী পেয়েছেন ১০২ ভোট।

সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদে নির্বাচিত হয়েছেন কদর উদ্দিন ১৫৫ ভোট। অপর প্রার্থী মনির আলী সুফি পেয়েছেন ৮৬ ভোট।

এদিকে ৭টি সদস্য পদের মধ্যে ৪জনের নাম ঘোষণা করা হয়েছে। বাকী ৩টি সোমবার ঘোষণা করা হবে বলে জনিয়েছেন নির্বাচন কমিশনারগন। ৪ বিজয়ী প্রার্থী হচ্ছেন মো: শহিদ ১৫৪ ভোট, বদরুল হোসেন ১৪৮ ভোট, শাহ জয়নাল আবেদিন ১৩৮ ভোট, আব্দুল মুকিত ১৩৪ ভোট।

ঐতিহ্য অনুযায়ী নির্বাচনে কোন প্যানেল না থাকলেও দুইটি শিবিরে বিভক্ত হয়ে ১৭টি পদে মোট ৩৩জন প্রার্থী নির্বাচনে প্রচারনা করেন।

নির্বাচনে কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের ডেপুটি মেয়র কাউন্সিলার সিরাজুল ইসলাম, কাউন্সিলার আয়াছ মিয়া ও কমিউনিটি নেতা হাজী রইছ আলী।

দুপুরে সংগঠনের বিদায়ী সভাপতি মির্জা আসহাব বেগ এর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলামের পরিচালনায় দ্বি-বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত হয়। এতে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রবীণ মুরব্বী ও সংগঠনের ট্রাস্টি আলহাজ্ব ফিরোজ খান পংকি খান।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

আরও দেখুন...

Close
ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close