ইউরোপ জুড়ে

ক্ষতিগ্রস্তরা বিশ্ব ব্যাংকের বিরুদ্ধে মামলা করতে পারবেন, প্রমাণ হলে শাস্তি হবেই খালেদার: মিউনিখে প্রধানমন্ত্রী

শীর্ষবিন্দু নিউজ: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, পদ্মা সেতু প্রকল্পে বিশ্বব্যাংক অর্থায়ন বাতিল এবং কানাডিয়ান আদালতে মামলা করার কারণে যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে সেসব ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তি আদালতে বিশ্ব ব্যাংকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করতে পারবেন। শুক্রবার জার্মানির মিউনিখে এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। জার্মানি আওয়ামী লীগ এ সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

আন্তর্জাতিক নিরাপত্তা চ্যালেঞ্জ বিষয়ক আন্তর্জাতিক নিরাপত্তা ও নীতি নির্ধারকদের মতবিনিময়ের জন্য বিশ্বের সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ এই স্বতন্ত্র ফোরামের তিন দিনব্যাপী মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলন শুক্রবার বায়েরিচার হোফ হোটেলে শুরু হয়েছে। সম্মেলনে বিশ্বের ২৫টিরও বেশি দেশের রাষ্ট্র ও সরকার প্রধান, ৪৭টি দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী, ৩০টি দেশের প্রতিরক্ষামন্ত্রী, জাতিসংঘ মহাসচিব এবং ৯০ জন সংসদ সদস্যসহ প্রায় ৫শ’ নীতিনির্ধারক অংশ নিচ্ছেন।

প্রবাসী ও আওয়ামী লীগ নেতাদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী বলেন, মিথ্যা অভিযোগ এনে মামলায় জড়ানোর চেষ্টা করায় ক্ষতিগ্রস্তরা বিশ্বব্যাংকের বিরুদ্ধে অবশ্যই মামলা করতে পারেন। শেখ হাসিনা বলেন, মহান আল্লাহর কাছে শুকরিয়া জানাচ্ছি যে, দীর্ঘ যন্ত্রণার পর কানাডিয়ান আদালতের রায়ে আমরা ন্যায় বিচার লাভ করেছি।

একই অনুষ্ঠানে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সমালোচনা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, যদি নির্দোষই হয়ে থাকেন, তাহলে তিনি কেন আদালতের মুখোমুখি হতে ভয় পাচ্ছেন! কেন তিনি বারবার সময় চাচ্ছেন? একটি মামলায় তিনি এ পর্যন্ত ৫৩/৫৪ বার সময় চেয়ে আবেদন করেছেন। মিথ্যা মামলা হলে পালানোর কী দরকার? এটা পরিষ্কার যে, তিনি (খালেদা) এতিমদের টাকা আত্মসাৎ করেছেন।

এদিকে শেখ হাসিনা ৫৩তম মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলনে যোগ দিতে শুক্রবার জার্মানির মিউনিখ আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে পৌঁছালে তাঁকে ফুল দিয়ে অভ্যর্থনা জানান,যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আনোয়ারুজজামান চৌধুরী, রাষ্ট্রদূত ইমতিয়াজ আহমেদ, সর্ব ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগের সভাপতি শ্রী অনিল দাশ, সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শুক্রবার জার্মান পৌঁছুলে যুক্তরাজ্য বিএনপির সভাপতি এম, এ, মালেক, আন্তর্জাতিক বিষয়য়ক সম্পাদক মুহিদুর রহমান সহ অন্যান্য নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ সমাবেশ, স্লোগান, ব্যানার ও ফেস্টুন প্রদর্শন করে।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এএইচ মাহমুদ আলী। এতে বক্তব্য রাখেন, ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক অনীল দাসগুপ্ত ও এমএ গনি চৌধুরী, জার্মান আওয়ামী লীগ সভাপতি বশিরুল হক সাবুসহ প্রমুখ।

জার্মান চ্যান্সেলর, মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট, জাতিসংঘ মহাসচিব, পোল্যান্ড ও আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট, নরওয়ের প্রধানমন্ত্রী এবং রাশিয়া, চীন, যুক্তরাজ্য, সৌদি আরব ও ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা উদ্বোধনী অধিবেশনে যোগদান করেন।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close