ইউরোপ জুড়ে

ব্রেক্সিট আতঙ্কে জার্মানির নাগরিকত্ব নিচ্ছেন ব্রিটিশরা

শীর্ষবিন্দু আন্তর্জাতিক নিউজ ডেস্ক: ব্রেক্সিটের পর কর্মসংস্থান হারিয়ে বিপদে পড়তে পারেন এ আশঙ্কা এখন তাদের তাড়িয়ে বেড়াচ্ছে ব্রিটিশদের। ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে ব্রিটেনের বেরিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত ব্রেক্সিটের আতঙ্কে রয়েছেন জার্মানিতে অবস্থানরত এক লাখ ব্রিটিশ অভিবাসী।

এ উদ্বেগ থেকে মুক্তি পেতে তারা এখন ব্রিটেনে ফিরতে আগ্রহী নয়। ব্রিটিশ নাগরিকত্ব বাতিল করে জার্মানির নাগরিকত্ব নেওয়ার হিড়িক পড়ে গেছে তাদের মধ্যে।

এদিকে ব্রিটেনে থাকা ৩ লাখ জার্মান অভিবাসীর মধ্যেও আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। ব্রেক্সিটের পর ইউরোপী ইউনিয়নভুক্ত (ইইউ) দেশগুলো থেকে ব্রিটেনে আসা অভিবাসীদের অধিকার সুরক্ষিত থাকবে কি-না এ নিয়ে তাদের মধ্যে বিরাজ করছে ব্যাপক উদ্বেগ।

ইউরোপে ব্রিটেনের প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী দেশ জার্মানি। তাই এই দুই দেশের সম্পর্কে টানাপড়েন অনেক বেড়ে যাবেই বলেই আশঙ্কা। সে ক্ষেত্রে ব্রিটেনের জার্মান অভিবাসীরা হয়তো কর্মক্ষেত্র থেকে ছাঁটাইসহ নানা ধরনের অধিকার থেকে বঞ্চিত হতে পারেন। সে আশঙ্কা এখন তাদের চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

এ দিকে ব্রেক্সিটের আগেই ইইউভুক্ত দেশের নাগরিকদের অবাধ প্রবেশ বন্ধের পদক্ষেপ নিচ্ছে ব্রিটেন। ফলে ব্রিটেনে ইইউভুক্ত অন্যান্য দেশের প্রায় ৩৩ লাখ নাগরিক পড়েছেন দুশ্চিন্তায়। খবর বিবিসি, টেলিগ্রাফ।

ইইউভুক্ত দেশগুলো থেকে ব্রিটেনে প্রবেশের হার বৃদ্ধি পেতে পারে এ আশঙ্কায় ব্রেক্সিট কার্যকর হওয়ার আগেই এ পদক্ষেপ নিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী তেরেসা মে। তবে এ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করতে চাইলে ইইউ চুক্তির অনেক শর্তের বিরুদ্ধে যেতে হবে তেরেসাকে।

ব্রিটিশ সরকারের ধারণা, ব্রেক্সিট কার্যকরের আগে রোমানিয়া ও বুলগেরিয়ার মোট জনসংখ্যার অর্ধেক নাগরিক ব্রিটেনে প্রবেশ করতে পারে। প্রধানমন্ত্রী মে ১৫ মার্চের আগে যে কোনো দিন ব্রিটেনে অবাধে চলাচলের ডেডলাইন ঘোষণা করতে পারেন।

এই সময়ের পরে যারা প্রবেশ করবেন তারা দেশটিতে স্থায়ীভাবে থাকতে পারবেন না। এই ডেডলাইনের মধ্যে ৩৬ লাখ ইইউ নাগরিক যারা ইতিমধ্যে ব্রিটেনে বাস করছেন এবং ব্রিটেনের নাগরিক যারা ইইউভুক্ত দেশগুলোতে থাকছেন, শুধু তাদের অধিকারই সংরক্ষিত হবে।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close