আরববিশ্ব জুড়ে

অবৈধদের সৌদি আরব ছাড়ার নির্দেশ: শাস্তি মওকুফ নিজ উদ্যেগে ফেরত গেলে

শীর্ষবিন্দু আন্তর্জাতিক নিউজ ডেস্ক: অবৈধ অভিবাসীদের দেশ ছাড়তে ৯০ দিন সময় দিয়েছে সৌদি আরব সরকার। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় গতকাল রোববার এ সংক্রান্ত আ নেশন উইদাউট ভায়োলেশনস শীর্ষক অভিযান শুরু করেছে।

ভিসার মেয়াদ পেরিয়ে যাওয়ার পরও যারা অবৈধভাবে সৌদি আরবে অবস্থান করছেন, তাদের বিনা শাস্তিতে দেশে ফিরতে ৯০ দিনের সুযোগ দিচ্ছে সৌদি সরকার।

সৌদির আরবের উপযুবরাজ, উপপ্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী প্রিন্স মোহাম্মদ বিন নাইফ আইনভঙ্গকারীদের দেশ ছাড়তে ৯০ দিনের সময় দিয়েছেন। সৌদি আরবের উপ প্রধানমন্ত্রী যুবরাজ মুহাম্মদ বিন নায়িফ রোববার এ নেশন উইদাউট ভায়োলেটরস কর্মসূচির উদ্বোধন করে তিন মাসের এই সাধারণ ক্ষমার ঘোষণা দেন।

 এ দিন গোনা শুরু হবে আগামী ২৯ মার্চ থেকে। এই সময়ের অবৈধ অভিবাসীরা নিজেদের বৈধ করতে পারবেন এবং সহায়তা নিতে পারবেন। প্রিন্স নাইফ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে দেশ ছাড়তে আগ্রহীদের সহায়তা করতে নির্দেশ দিয়েছেন। তাঁদের ওপর নিষেধাজ্ঞাও তুলে নিতে বলেছেন।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণায়লের মুখপাত্র মেজর জেনারেল মনসুর আল-তুর্কি বলেন, সরকারের ১৯টি সংস্থা এ অভিযান পরিচালনা করবে। তিনি জানান, সীমান্ত পাড়ি দিয়ে অনুপ্রবেশ করে যারা আইন ভেঙেছে, বসবাস বা কাজের অনুমতি নেই যাদের, তাদের ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। তাদের ভ্রমণে অনুমতি দেওয়া হবে।

পাসপোর্ট ও অভিবাসন বিভাগ এরই মধ্যে আইনভঙ্গকারীদের ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

আল-তুর্কি জানান, যেসব অভিবাসীর পরিচয়পত্র নেই, হজ ভিসার মেয়াদ পেরিয়ে গেলেও যারা অবস্থান করছে, তাদের পার্শ্ববর্তী পাসপোর্ট বিভাগে গিয়ে যোগাযোগ করতে হবে।

তিন বছর আগেও সৌদি আরবে একই ধরনের অভিযান পরিচালিত হয়। সেই সময় ২৫ লাখ আইনভঙ্গকারীকে দেশ ছাড়তে হয়।

প্রিন্স মুহাম্মদ বিন নায়িফ বলেছেন, বসবাসের অনুমতি (ইকামা) ছাড়াই অবস্থান, অনুমতি ছাড়াই কাজ করা এবং অবৈধ অনুপ্রবেশের মত অপরাধের ক্ষেত্রে আগামী ২৯ মার্চ থেকে এই সাধারণ ক্ষমা প্রযোজ্য হবে।

সৌদি আরবের নিয়ম অনুযায়ী কোনো অবৈধ অভিবাসী ধরা পড়লে তাকে জরিমানা বা শাস্তির মুখোমুখি হতে হয়। দেশে ফেরত পাঠানোর আগে তার আঙুলের ছাপ রেখে দেওয়া হয়, যাতে ওই ব্যক্তি ভবিষ্যতে আর সৌদি আরবে কাজের জন্য আসতে না পারেন।

তিন মাসের এই সাধারণ ক্ষমার সুযোগ যারা নেবেন, তাদের আঙুলের ছাপ নেওয়া হবে না বলে এক সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছেন সৌদি আরবের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মেজর জেনারেল মনসুর আল-তুর্কি।

যারা এই সুযোগ নেবেন, তাদের কোনো শাস্তি ছাড়াই দেশে ফেরার সুযোগ দেওয়া হবে। এমনকি ভবিষ্যতে কাজ নিয়ে আবারও বৈধভাবে সৌদি আরবে আসার সুযোগ থাকবে তাদের।

সৌদি গেজেট জানিয়েছে, দুই বছর আগে সৌদি সরকার ইকামা পরিবর্তনের যে সুযোগ দিয়েছিল, তারই ধারাবাহিকতায় এবারের এ নেশন উইদাউট ভায়োলেটরস’ কর্মসূচি। মধ্যপ্রাচ্যের তেলসমৃদ্ধ দেশ সৌদি আরব বর্তমানে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় শ্রমবাজার।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close