যুক্তরাজ্য জুড়ে

স্বাধীনতা দিবসে দেশের বাইরে বামিংহামে হাজার স্কয়ার ফুট লাল সবুজ পতাকা উড়ালো মাটি ইউকে

শীর্ষবিন্দু নিউজ: ১৯৭১ সালে পুরো বাঙ্গালী জাতির কাছে বার্মিংহাম শহর একটি ইতিহাস হয়ে যায়। কারণ বাংলার মানুষদের সাহস যোগাতে প্রবাসে এই বার্মিংহামের স্মলহিথ পার্কেই উড়ে ছিল বাংলাদেশের প্রথম পতাকা। যদিও তা পরে বিতর্কে জড়ায়।

আর এবার মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিবিজড়িত ঐতিহাসিক স্মলহীথ পার্কেই ব্রিটিশ বাংলদেশী ইয়ং কালচারাল সোসাইটি মাটি রচনা করলো আরও এক ইতিহাস। ২৬শে মার্চ স্বাধীন বাংলাদেশের  হাজার বর্গফুট পতাকার পাশাপাশি ব্রিটিশ পতাকাও সম্মিলিতভাবে উত্তোলন করা হয়। ৪৭টি লাল-সবুজ বেলুন উড়িয়ে অনুষ্ঠানের সূচনা করেন বার্মিংহামে বসবাসরত প্রবাসী মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক ও মুক্তিযোদ্ধারা।

বহির্বিশ্বে প্রথমবারের মত এক হাজার বর্গফুট বাংলাদেশী ও ব্রিটিশ পতাকা উত্তোলনের এ ব্যতিক্রমি কর্মসূচী যুক্তরাজ্যের বিভিন্ন শহর থেকে সকল মত ও পথের নারী-পুরুষ-শিশুসহ প্রায় সহস্রাধিক দেশপ্রেমী মানুষ দেশের টানে গানের সুরে সুরে সম্মিলিতভাবে তুলে ধরেন। পতাকায় মৃদু বাতাসে ঢেউতোলা দৃশ্য অজানা এক আবহ সৃষ্টি হয় স্মল হীথ পার্কজুড়ে।

প্রবাসে বেড়ে উঠা নবপ্রজন্মকে বাংলাদেশের হাজার বছরের ইতিহাসের প্রতিক আমাদের অহংকার আমাদের পতাকা ও আমাদের কন্ঠ জাতীয় সংগীতের সাথে পরিচয় করিয়ে দেয়ার মাধ্যমে বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতার ৪৬ বছর পূর্তি উদযাপন করেছে।

আনুষ্ঠানিকভাবে বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করেন বার্মিংহামস্থ সহকারী হাইকমিশনার মোহাম্মদ জুলকার নায়েন। তার সাথে ছিলেন ব্রিটিশ এমপি জেস ফিলিপ। এ সময় সম্মিলিত কণ্ঠে জাতীয় সঙ্গীত আমার সোনার বাংলা, আমি তোমায় ভালবাসি… সুরের প্রতিধ্বনিতে পুরো স্মল হীথ জুড়ে বাঙালীরা স্বাধীনতা দিবস উদযাপনের আমেজ পান।

সম্মিলিতভাবে হাজার বর্গফুট পতাকা প্রদর্শনের পূর্বে ব্রিটিশ পার্লামেন্টে সন্ত্রাসী হামলা ও বাংলাদেশের সিলেটে সন্ত্রাসী ঘটনার নিন্দা জানিয়ে নিহতদের স্মরণে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। দ্বিতীয় পর্বে স্থানীয় নওয়াব ইম্পেরিয়াল হলে অনুষ্ঠিত হয় মাটির গান। এতে স্থানীয় শিল্পীরা দেশাত্মবোধক গান পরিবেশন করেন। সমগ্র অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন মাটির কো-অর্ডিনেটর ও হাজার ফুট পতাকা উত্তোলনের উদ্যোক্তা আশরাফুল ওয়াহিদ দুলাল।

উল্লেখ্য ১৯৭১ সালের ২৮ মার্চ বার্মিংহামের স্মল হীথ পার্কে প্রায় ১০ হাজার স্বাধীনতাপ্রিয় বাঙালীর উপস্থিতিতে শপথ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছিল। সেই সমাবেশে প্রবাসী বাঙালীরা স্বাধীনতার সপক্ষে শপথ নেন, বহির্বিশ্বে প্রথম বাংলাদেশের পতাকা তুলেন। মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসে সেই দিনটি প্রবাসীদের জন্য অনন্য একটি দিন।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close