যুক্তরাজ্য জুড়ে

জর্ডান ও সৌদি আরবে গুরুত্বপূর্ণ সফরে বৃটিশ প্রধানমন্ত্রী

শীর্ষবিন্দু নিউজ ডেস্ক: ইসলামিক স্টেটের (আইএস) বিরুদ্ধে লড়াই জোরদার করা, সিরিয়ার শরণার্থী সঙ্কট মোকাবিলা সহ গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে আলোচনা করতে জর্ডান ও সৌদি আরব সফর করছেন বৃটিশ প্রধানমন্ত্রী তেরেসা মে। প্রথমে আজ সোমবার তার জর্ডান পৌঁছার কথা।

সেখানে তিনি আইএসর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে জর্ডানের বিমান বাহিনীকে সহযোগিতা করতে বৃটিশ সেনা প্রশিক্ষক পাঠানোর প্রতিশ্রুতি দেবেন। অনলাইন স্কাই নিউজ ও বিবিসির খবরে এ কথা বলা হয়েছে। এ সফরে তিনি জর্ডান ও সৌদি আরবকে বিমান হামলায় বৃটেনের অধিক সহযোগিতা, সন্ত্রাস বিরোধী নতুন পদক্ষেপ ও মানবিক সহযোগিতার আশ্বাস দেবেন।

প্রথমেই তিনি সফর করছেন ডর্ডানে। সেখানে তিনি সন্ত্রাস বিরোধী একটি যৌথ পদক্ষেপের ঘোষণা দেবেন। আইএস বা ডায়েশের মূল ঘাঁটিতে হামলা চালানোর নতুন পদক্ষেপ নিয়ে আলোচনা করবেন। আঞ্চলিক সন্ত্রাস মোকাবিলায় সহযোগিতার আশ্বাস দেবেন।

রিপোর্টে আরও বলা হয়েছে, জর্ডান সফরে এসব ঘোষণা দেয়ার পর তার যাওয়ার কথা রয়েছে সৌদি আরবে। উল্লেখ্য, মধ্যপ্রার্চে যুক্তরাজ্যের সবচেয়ে বড় ব্যবসায়ী অংশীদার হলো সৌদি আরব। সেখানে আলোচনায় তিনি দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্যে গতি আনার আলোচনা করবেন। এ ছাড়া সন্ত্রাস বিরোধী সহযোগিতার আশ্বাসও দেবেন।

এই সফরে তেরেসা মে বলতে পারেন, ২২শে মার্চ ওয়েস্টমিনস্টারে যে ভয়াবহ হামলা হয়েছে তা থেকে দেখা যায় সন্ত্রাসী চক্র আমাদের সবার সামনে। তাদের বিরুদ্ধে লড়াই করতে আমাদেরকে একসঙ্গে কাজ করতে হবে। উল্লেখ্য, সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে জর্ডান ও সৌদি আরবকে ফ্রন্টলাইন হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

সেখানে তেরেসা মে বলতে পারেন, এই ফ্রন্টলাইনে জর্ডানের মতো দেশের সঙ্গে কাজ করার মাধ্যমে বৃটেনের মানুষকে সন্ত্রাস থেকে নিরাপদ রাখা যাবে। সৌদি আরবের সঙ্গে গোয়েন্দা তথ্য আদান প্রদানের মাধ্যমে যুক্তরাজ্যে শত শত মানুষের জীবন রক্ষা করা গেছে।

প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন ১০ ডাউনিং স্ট্রিটের মতে, সিরিয়া সঙ্কট নিয়ে কিভাবে সমস্যা সমাধান করা যায় তা নিয়ে সহযোগিতার ক্ষেত্র নিয়ে জর্ডানের সঙ্গে আলোচনা করতে পারেন তেরেসা মে। এক্ষেত্রে তিনি জর্ডানকে মানবিক সহযোগিতা দেয়ার প্রতিশ্রুতি পুনর্ব্যক্ত করতে পারেন।

তেরেসা মে জর্ডানের রাজধানী আম্মান থেকে তার সফর শুরু করছেন। সেখানে তিনি রয়েল জর্ডানিয়ান এয়ার ফোর্সকে নতুন করে সমর্থন দিতে পারেন বলে প্রত্যাশা করা হচ্ছে। বিবিসি বলেছে, তিনি তাদেরকে প্রশিক্ষণের জন্য বৃটিশ সেনা পাঠানোর প্রতিশ্রুতি দিতে পারেন, যাতে আইএসকে টার্গেট করে হামলার সক্ষমতা বাড়ানো যায়।

সন্ত্রাসীদের হুমকিকে পরাজিত করা যায়। ১০ ডাউনিং স্ট্রিটের সূত্র মতে, এরপর তিনি যাবেন সৌদি আরবে। সেখানে তিনি স্পষ্ট করে তাদের ঘনিষ্ঠ সম্পর্কের কথা তুলে ধরবেন। তাদের সঙ্গে সন্ত্রাস বিরোধী কর্মকা- সহ বিস্তৃত পরিসরে ঘনিষ্ঠ আলোচনা করবেন।

তিনি বাণিজ্যকে আরও শক্তিশালী বন্ধনে আবদ্ধ করার চেষ্টা করতে পারেন। সৌদি আরবে বৃটেন ২০১৫ সালে ৪৬৭ কোটি পাউন্ডের পণ্য রফতানি করেছে। ১৯০ কোটি পাউন্ডের সার্ভিস দিয়েছে। এই সফরে যাওয়ার আগে তেরেসা মে বলেছেন, যেহেতু ইউরোপীয় ইউনিয়ন ছেড়ে যাচ্ছে যুক্তরাজ্য তাই আরা একটি শক্তিশালী সম্পর্কের বিষয়ে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ।

বিশ্বে আমাদের জন্য একটি আস্থাশীল ভবিষ্যতের পক্ষে দৃঢ় অবস্থান নেবো। আমরা যেটা দেখছি এবং আমাদের ভবিষ্যত প্রজন্ম যেসব সমস্যার মুখে পড়বে সেসব চ্যালেঞ্জের বিষয়ে অবশ্যই আমাদেরকে দৃষ্টি দিতে হবে। আমাদের নিরাপত্তা ও সমৃদ্ধির জন্য যেসব দেশ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ তাদের সঙ্গে আমরা শক্তিশালী অংশীদারিত্ব গড়ে তুলব।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

আরও দেখুন...

Close
ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close