জাতীয়

কওমি মাদ্রাসার সর্বোচ্চ স্তরকে স্বীকৃতির ঘোষণা দিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

শীর্ষবিন্দু নিউজ ডেস্ক: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কওমি মাদ্রাসার সর্বোচ্চ স্তর দাওরায়ে হাদিসকে স্নাতকোত্তর ডিগ্রির সমমান দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। এই স্বীকৃতির ফলে ইসলামিক স্টাডিজে এবং আরবি বিষয়ে এমএ ডিগ্রি পাবেন কওমি মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা।

প্রধানমন্ত্রী মঙ্গলবার রাতে গণভবনে কওমি মাদ্রাসার আলেম-ওলামাদের সঙ্গে এক বৈঠকে এই স্বীকৃতি প্রদান করেন। কওমি মাদ্রাসার স্বতন্ত্র বৈশিষ্ট্য বজায় রেখে এবং ভারতের দারুল উলুম দেওবন্দের মূলনীতিকে ভিত্তি করে এই সমমান দেওয়া হলো বলেও তিনি জানান।

প্রধানমন্ত্রী আলেমদের উদ্দেশে বলেন, প্রথমে একটা প্রজ্ঞাপন হবে। তারপর আপনারা যেভাবে চান সবকিছু মিলিয়ে একটা আইনি ভিত্তি দেওয়া হবে।

সুপ্রিম কোর্টের সামনের ভাস্কর্য প্রধানমন্ত্রীও চান না

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের সুপ্রিম কোর্টের সামনে গ্রিক থেমেসিসের এক মূর্তি লাগানো হয়েছে। সত্য কথা বলতে কি, আমি নিজেও এটা পছন্দ করিনি। কারণ, গ্রিক থেমেসিসের মূর্তি আমাদের এখানে কেন আসবে। এটা তো আমাদের দেশে আসার কথা না। আর গ্রিকদের পোশাক ছিল এক রকম, সেখানে মূর্তি বানিয়ে তাকে আবার শাড়িও পরিয়ে দেয়া হয়েছে। এটাও একটা হাস্যকর ব্যাপার করা হয়েছে।’

শেখ হাসিনা আরও বলেন, এটা কেন করা হলো, কারা করল, কীভাবে—আমি জানি না। ইতিমধ্যেই আমাদের প্রধান বিচারপতিকে আমি এই খবরটা দিয়েছি এবং খুব শিগগির আমি ওনার সঙ্গে এ বিষয় নিয়ে বসব। আলোচনা করব এবং আমি নিজেও ব্যক্তিগতভাবে মনে করি, এটা এখানে থাকা উচিত নয়।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, আমি আপনাদের বলব, আপনারা ধৈর্য ধরেন। কারণ, এটা নিয়ে কোনো হইচই নয়। একটা কিছু যখন করে ফেলেছে, সেটাকে আমাদের সরাতে হবে।

ইসলামের প্রকৃত শিক্ষা তুলে ধরার আহ্বান

প্রধানমন্ত্রী এ সময় সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে কঠোর হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, বাংলার মাটিতে জঙ্গিবাদের কোনো স্থান হবে না। তিনি ইসলামের প্রকৃত শিক্ষা মানুষের সামনে তুলে ধরতে আলেমদের প্রতি অনুরোধ জানানোর পাশাপাশি আর কেউ যেন সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের পথে যেতে না পারে, সে দিকে লক্ষ রাখার আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের আমির আল্লামা শাহ আহমদ শফী, ইকরা বাংলাদেশের পরিচালক মাওলানা ফরিদ উদ্দীন মাসউদ, কওমি মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যান মাওলানা আশরাফ আলী এবং ওলামা–মাশায়েখ নেতাদের মধ্যে মাওলানা আবদুল কুদ্দুস, আবদুল হালিম বোখারি, মাওলানা নূর হোসেন কাশেমী বক্তৃতা করেন।

প্রধানমন্ত্রীর সামরিক সচিব মেজর জেনারেল মিয়া মোহাম্মদ জয়নুল আবেদীন অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close