Americaযুক্তরাষ্ট্র জুড়ে

কিমের সঙ্গে সাক্ষাত হলে সম্মানিত বোধ করবেন ট্রাম্প

শীর্ষবিন্দু আন্তর্জাতিক নিউজ ডেস্ক: উপযুক্ত পরিবেশ, পরিস্থিতিতে উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের সঙ্গে সাক্ষাত করতে পারলে সম্মানিত বোধ করবেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প।

কিম জংয়ের সঙ্গে সাক্ষাতের প্রচ- (অ্যাবসোলুট) আগ্রহ প্রকাশ করে এমনটাই জানিয়েছেন ট্রাম্প। এ সময় তিনি কিম জং উনের ভূয়সী প্রশংসা করেন। এ খবর দিয়েছে অনলাইন স্কাই নিউজ।

এতে বলা হয়, তিনি উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জংয়ের সঙ্গে আলোচনায় বসতে উন্মুক্ত অবস্থানে রয়েছেন। তবে তার একজন সহযোগী বলেছেন, এ জন্য উত্তর কোরিয়ার নেতাকে তার আচরণ পাল্টাতে হবে।

ডোনাল্ড ট্রাম্প ব্লুমবার্গ নিউজকে এ বিষয়ে বলেছেন, যদি তার (কিম জং উন) সঙ্গে সাক্ষাতের জন্য উপযুক্ত হতো আমার জন্য, অবশ্যই আমি তা করতাম। তার সঙ্গে সাক্ষাত করতে পারলে আমি সম্মানিত বোধ করতাম। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের এ বক্তব্যকে লুফে নিয়েছে বিশ্ব মিডিয়া। সিএনএন টেলিভিশনে বিশ্লেষকরা এ বক্তব্যের চুলচেরা বিশ্লেষণ শুরু করেন।

কারণ, তিনি এমন সময়ে এ মন্তব্য করেছেন যখন উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের যুদ্ধ অত্যাসন্ন। দু’দেশের মধ্যকার সম্পর্ক স্ফুটনাঙ্কে রয়েছে। আশঙ্কা রয়েছে উত্তর কোরিয়া আরো পারমাণবিক পরীক্ষা চালাতে পারে। তাকে উচিত জবাব দিতে প্রস্তুতি দৃশ্যত যুক্তরাষ্ট্র সম্পন্ন করেছে।

কোরিয়া উপদ্বীপ অঞ্চলে কমপক্ষে ১৫৪টি ক্ষেপণাস্ত্রসহ মোতায়েন করা হয়েছে সাবমেরিন ইউএসএস শিকাগো। মোতায়েন করা হয়েছে যুদ্ধবিমানবাহী যুদ্ধজাহাজ। তবে স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে যুদ্ধ শুরুর বিষয়টি প্রত্যাখ্যান করেছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প।

এক্ষেত্রে উত্তর কোরিয়া যাতে পারমাণবিক পরীক্ষা অর্থাৎ ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা বন্ধ করে এ জন্য চীনকে আয়ত্তে আনার চেষ্টা করে যাচ্ছেন তিনি। চীনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন, তারা যেন উত্তর কোরিয়াকে পারমাণবিক পরীক্ষা বন্ধ করতে চাপ প্রয়োগ করে। যদি যুক্তরাষ্ট্র কোনোভাবে উত্তর কোরিয়ায় হামলা চালায় তাহলে ভয়াবহ পরিণতি ভোগ করতে হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছে কিম জং উন শাসকগোষ্ঠী।

তারা হুমকিতে বলেছে, আক্রান্ত হলে যুক্তরাষ্ট্রের যুদ্ধবিমানবাহী জাহাজ ইউএসএস কার্ল ভিনসনকে ডুবিয়ে দেয়া হবে। কোরিয়া উপদ্বীপ অঞ্চলে যখন পরিস্থিতি এই তখন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ব্লুমবার্গকে বলেছেন, বেশির ভাগ রাজনীতিকই বলতে পারেন, তারা কখনোই কিমের সঙ্গ সাক্ষাত করতে চান। কিন্তু আমি বলছি, যথাযথ পরিস্থিতিতে আমি তার সঙ্গে সাক্ষাত করতে চাই। আমাদের কাছে রয়েছে ব্রেকিং নিউজ।

পরে হোয়াইট হাউজের প্রেস সেক্রেটারি শন স্পাইসার বলেছেন, উত্তর কোরিয়ার আচরণে উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন হলেই এমন যেকোনো সাক্ষাত হতে পারে। কিন্তু এখনও উত্তর কোরিয়ার যে আচরণ তা এর অনুকূলে নয়।

ওদিকে সপ্তাহান্তে সিবিএস টিভিকে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প আলাদা এক সাক্ষাতকারে বলেছেন, তিনি সামরিক অভিযানের বিষয়েই দেখবেন।

তবে তিনি এক্ষেত্রে কিম জং উনকে একজন স্মার্ট কুকি (বিশেষ ধরনের ব্যক্তি) হিসেবে আখ্যায়িত করেন। তিনি বলেন, কিম জং সম্পর্কে অনেকেই বলেন, সে কি স্থির বুদ্ধিসম্পন্ন? এ প্রশ্নের উত্তরে আমার কোনো ধারণা নেই।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close