লন্ডন থেকে

লন্ডনের ব্রিকলেন: অবৈধ তামাক বিক্রির অভয়ারণ্য

আব্দুল কাদির চৌধুরী মুরাদ: লন্ডনে ধূম্পায়ীদের এক তৃতীয়াংশ বেআইনীভাবে সিগারেট কিনে থাকেন বলে এক সমীক্ষায় জানা গেছে। যাতে ছাঁচ এমনকি মানুষের বর্জ্য রয়েছে।

টাওয়ার হ্যামলেটের ৮টি দোকানের মধ্যে অন্তত ১টি দোকানি এ বেআইনি সিগারেট ব্যবসায় জড়িত বলে গোপনে ক্রেতা সেজে আন্ডারকাভার জেনেছে। যার মধ্যে সবচেয়ে ক্ষতিকর এলাকা হচ্ছে লন্ডনের ব্রিকলেন।

যেখানে সবচেয়ে বেশি বেআইনীভাবে সিগারেট বেচা-কেনা হয় যেখানে মাত্র ৩পাউন্ডে এক পেকেট পাওয়া যায়।

জাপান টোব্যাকো ইন্টারন্যাশনাল (জেটিআই) এর অনুসন্ধ্যানে প্রকাশ করেছে যে “কাউন্টারের নিচে” সিগারেটের বেশিরভাগ অংশ যেমন ছাঁচ, ধুলো, মৃত মাছি আর ইঁদুর বর্জ্য সাথে থেকে এসব বিক্রি করা হয়।

জেটিআই গত ২0 শে মে তামাকবিরোধী প্যাকিং এবং সীমাবদ্ধতার প্রবর্তনের আগে উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেছে লন্ডনে অবৈধ তামাক ব্যবসার কারণে বৈধ ব্যবসায়ীরা ক্ষতিগ্রস্ত হবে ,সে সাথে প্রকৃত পণ্য ক্রেতারা বিভ্রান্ত হতে পারে।

অবৈধ ব্যবসায়ীদের ক্রেতা হিসেবে উঠতি তরুণরা লক্ষ্য হওয়ায় সস্তায় অবৈধ তামাকজাত দ্রব্য কিনে তারাও প্রতারিত হবেন।

স্টিভ উইলকিন্স, জেটিআই’র অ্যান্টি-অবৈধ ট্রেড অপারেশন ডিরেক্টর এবং সাবেক ডিট হেফ সাপট বলেছেন: ধূমপায়ীদের যুক্তরাজ্যের রাস্তায় সস্তা জাল সিগারেট ও তামাকের দাম তুলনামূলক কম হতে হতে পারে, কারণ এই জাল জালিয়াতিগুলি ছাঁচ, ধুলো, মৃত মাছি, ইঁদুর বর্জ্য আর এমনকি মানব বর্জ্য সংমিশ্রণ হতে পারে।

যুক্তরাজ্যের শহর ও শহর জুড়ে সস্তা অবৈধ তামাকের প্রাপ্যতা স্থানীয় সম্প্রদায়ের ক্ষতি করছে এসব খুচরা বিক্রেতারা। এসব বন্ধে সরবরাহকারীদের এবং সংশ্লিষ্ট সকলের সমস্যাটির মোকাবেলা করার জন্য সচেতন ভূমিকা পালন করতে হবে।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close