গ্যালারী থেকে

অবশেষে সবাইকে কাঁদিয়ে না ফেরার দেশে লরি

গ্যালারী থেকে ডেস্ক: সান্ডারল্যান্ড ক্লাব ফুটবলের এক দারুণ ভক্ত মাত্র ৬ বছর বয়সের ব্র্যাডলি লরি। শুধু ভক্ত বললে ভুল হবে সান্ডারল্যান্ডের সবচেয়ে কনিষ্ঠ ফুটবলার হিসেবে মাঠে নেমে গোল ও করেছিল সে। সেই গোলের আনন্দে ভেসে গেছিল পুরো ষ্টেডিয়াম। কিন্তু সেই আনন্দকে ফিকে করে চলে গেল লরি অজানার উদ্দেশ্যে। খবর- বিবিসি

মাত্র ১৮ মাস বয়সে শরীরে প্রাণঘাতী ক্যানসার বাসা বাঁধার পর ফুটবল দুনিয়ার গভীর সখ্য গড়ে উঠেছিল লরির সঙ্গে। তার এই রোগ সারানোর জন্য উঠে পড়ে লেগেছিলেন খোদ ফুটবলাররা। ইংল্যান্ডের ছোট্ট লরির জন্য ক্লাব ফুটবল সান্ডারল্যান্ড ও এভারটন নিজেদের ম্যাচের প্রথমের কিছুটা সময় ব্যায় করেছিল লরির জন্য।

এমনকি সান্ডারল্যান্ডের সমর্থক লরির চিকিৎসার জন্য উঠেছিল লাখ লাখ পাউন্ড। সবার প্রার্থনা ছিল লরি যেন সুস্থ হয়ে ফিরে আসে ফুটবল মাঠে। কিন্তু ক্যানসার তাকে ছিনিয়ে নিয়ে গেল তার ভক্তকুলের ভালোবাসার মাঝখান থেকে। মা বাবার কোলেই শেষ হাসি হাসে লরি।

ইংল্যান্ড-লিথুনিয়া ম্যাচে মাঠে ব্র্যাডলি লরি

লরির জন্য গত মৌসুমে বিশেষ আয়োজন হয়েছিল সান্ডারল্যান্ড-এভারটন ম্যাচে। ছোট্ট শিশুটির নামে সেদিন স্লোগান তুলে গ্যালারি মুখর করেছিলেন দর্শকেরা। সান্ডারল্যান্ডের জার্সি পরে মাঠে নেমে সে একটি ‘গোল’ও করেছিল।

পেনাল্টি থেকে পরাস্ত করেছিল এভারটনের গোলকিপার বোগোভিচকে। পুরোটাই ছিল লরির জন্য এক আনন্দ আয়োজন। সেই আয়োজন লরি উপভোগ করেছিল, কিন্তু ফুঁপিয়ে কেঁদেছিল গোটা গ্যালারি।

সান্ডারল্যান্ড কিংবা এভারটনের সব ফুটবলার তাকে কোলে নিয়ে আদরও করেছিলেন।

ইংল্যান্ড-লিথুনিয়া ম্যাচেও মাঠে নেমেছিল লরি। সে মাঠে নামজাদা ফুটবলারের নামের স্লোগানের বদলে লরি.. লরি.. স্লোগানে মুখরিত হয়ে উঠেছিল। কিন্তু সবাইকে কাঁদিয়ে ছয় বছরের এই ফুটবলার এখন না ফেরার দেশে।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close