আরববিশ্ব জুড়ে

হজযাত্রীদের সেবা দেবেন প্রায় দেড় লাখ কর্মী: ইতিমধ্যে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে সৌদি আরব

শীর্ষবিন্দু আন্তর্জাতিক নিউজ ডেস্ক: হজযাত্রীদের সেবায় এক লাখ ৩৮ হাজার ব্যক্তিকে নিয়োগ করেছে সৌদি আরব। এবারও হজ করতে সৌদি আরবে যাবেন বিশ্বের কমপক্ষে ২০ লাখ মুসলিম।

তাদের যাতে সেবায় কোনো ত্রুটি না হয় সে জন্য এত বিপুল সংখ্যক সদস্যকে মোতায়েন করা হয়েছে। শনিবার পবিত্র মক্কায় কেন্দ্রীয় হজ কমিটির এক সভায় এসব তথ্য দিয়েছেন সৌদি আরবে হজ ও ওমরাহ বিষয়ক মন্ত্রী মুহাম্মদ সালেহ বানতান।

তিনি বলেছেন, হজযাত্রীদের সেবায় নিয়োজিতদের মধ্যে ৯৫ হাজারের বেশি হলেন নারী ও পুরুষ। এর বাইরে আছেন বিপুল সংখ্যক স্বেচ্ছাসেবক ও বয় স্কাউট। ওই সভায় সভাপতিত্ব করেন মক্কার আমির ও কেন্দ্রীয় হজ কমিটির চেয়ারম্যান যুবরাজ খালেদ আল ফয়সল। সভায় হজযাত্রীদের সর্বোত্তম সেবা দেয়ার ক্ষেত্রে কি কি সব পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে তা নিয়ে আলোচনা করা হয়।

এতে মন্ত্রী মুহাম্মদ সালেহ বানতান জানান, সব হজযাত্রীকে সেবা দিতে সরকারি ও বেসরকারি সেবাদানকারী সংশ্লিষ্ট সব সংস্থাকে এরই মধ্যে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। বলে দেয়া হয়েছে যেন কারো প্রতি কোনো বৈষম্য দেখানো না হয়। তবে হজ নিয়ে রাজনীতি করার কোনো উদ্যোগ সহ্য করা হবে না বলে তিনি হুঁশিয়ার করে দেন।

মন্ত্রী মুহাম্মদ সালেহ বানতান আশা করছেন এবার হজ করতে সৌদি আরবের বাইরে থেকে যোগ দেবেন প্রায় ১৭ লাখ মুসলিম। তার সঙ্গে যুক্ত হবেন সৌদি আরবের ২ লাখ ১১ হাজার। সব মিলে হজযাত্রীর সংখ্যা ২০ লাখের মতো হবে। তিনি আরো জানান, আল্লাহর এসব মেহমানকে স্বাগত জানাতে সব রকম প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে।

পবিত্র দুই মসজিদের জেনারেল প্রেসিডেন্সি বিষয়ক বিভাগ থেকে বলা হয়েছে, এ বছর সেখানে প্রকৌশলী, প্রশাসক, প্রযুক্তিবিদ, শ্রমিক সহ ১০ হাজার নারী, পুরুষকে মোতায়েন করা হচ্ছে হজকে সুন্দরভাবে সম্পন্ন করার জন্য।

জেনারেল প্রেসিডেন্সি থেকে আরো বলা হয়েছে, শিক্ষিত নারীদের ব্যবহার করা হচ্ছে নারী হজযাত্রীদের সঠিক উপায়ে হজ পালনের পদ্ধতি শিখিয়ে দেয়ার জন্য। সরবরাহ করা হচ্ছে পবিত্র কোরআনের কপি।

গ্রান্ড মসজিদের ভিতরে পবিত্র জমজমের পানির পর্যাপ্ত ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। মক্কা ও অন্য পবিত্র স্থানকে পরিষ্কার ও অন্যান্য সেবা দিতে মক্কা মিউনিসিপ্যালিটে ২৩ হাজারের বেশি প্রকৌশলী, প্রযুক্তিবিদ, পরিচ্ছন্নকর্মী ও তদারক নিয়োগ করেছে।

মক্কায় স্বাস্থ্য বিষয়ক বিভাগ বলেছে, বিভিন্ন হাসপাতালে তারা চার হাজারেও বেশি বেড প্রস্তুত রেখেছে। কোনো হজযাত্রী অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে এসব স্থানে নিয়ে চিকিৎসা করানো হবে। মক্কা, মিনা, আরাফাতের ময়দান ও মুজদালিফায় সাধারণ হাসপাতালের পাশাপাশি ১২৮টি স্বাস্থ্যকেন্দ্রেও এ সেবা দেয়া হবে। এসব স্বাস্থ্যকেন্দ্র যন্ত্রপাতিতে সুসজ্জিত।

পবিত্র স্থানগুলোতে দায়িত্বে থাকবে শতাধিক এম্বুলেন্স। এগুলো দুর্বল হজযাত্রীদের সেবা দেবে। অন্যদিকে মক্কা ও মদিনায় অসুস্থ হজযাত্রীদের স্থানান্তর করবে আরো ৪৫টি এম্বুলেন্স। হজযাত্রীদের এম্বুলেন্স সার্ভিসের মাধ্যমে সেবা দিতে ১২৪৫টি স্থায়ী ও অস্থায়ী কেন্দ্র খুলেছে সৌদি রেড ক্রিসেন্ট কর্তৃপক্ষ।

তাতে দায়িত্ব পালন করছেন দশ হাজারেরও বেশি নারী ও পুরুষ। এর বাইরে আকাশপথে উদ্ধার অভিযানের জন্য প্রস্তুত রাখা হয়েছে তিনটি আকাশযান। পবিত্র স্থানগুলোতে পর্যাপ্ত পানি সরবরাহের ব্যবস্থা করেছে ন্যাশনাল ওয়াটার কোম্পানি।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত সরকারি পরিসংখ্যান মতে, সৌদি আরবে পৌঁছেছেন ৫ লাখ ৭০ হাজার ৫৬৮ জন হজযাত্রী।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close