যুক্তরাজ্য জুড়ে

বিদ্বেষমূলক অপরাধ বেড়েছে ব্রিটেনজুড়ে

শীর্ষবিন্দু নিউজ ডেস্ক: শনিবার ব্রিটেনের পুলিশের এক পরিসংখ্যানে এ তথ্য উঠে এসেছে, চলতি বছর ব্রিটেনে বেশ কয়েকটি সন্ত্রাসী হামলার পর দেশটিতে বিষেমূলক অপরাধ ( হেইটক্রাইম) বেড়েছে।

ই প্রবণতার বিপরীত ধারাও লক্ষণীয়। লন্ডনের ফিন্সবারি পার্কে মুসলিম পুণ্যার্থীদের ওপর হামলার পর হিংসাত্মক অপরাধের পরিমাণ ৭ শতাংশ কম ছিল।

পুলিশের মতে, ২০১৬ সালে ব্রিটেনে প্রতিদিন হেটক্রাইমের সংখ্যা ছিল গড়ে ১৭১টি। সাপ্তাহিক ছুটির দিনগুলোতে এ ধরনের অপরাধ আরও বেড়ে যায়।

ন্যাশনাল পুলিশের প্রধান কাউন্সিল (এনপিসিসি) জানায়, বছরের শুরু থেকেই একের পর এক সন্ত্রাসী হামলার ঘটনার পর পর দেশটি সংখ্যালঘু (মুসলমান) নাগরিকদের হেনস্তা বেড়েছে।

পুলিশের পরিসংখ্যান অনুসারে, চলতি বছরের মার্চ মাসে ব্রিটিশ পার্লামেন্টের কাছে (ওয়েস্টমিনস্টার) ছুরি ও গাড়ি হামলার ঘটনার ৪৮ ঘণ্টা পর ২৩৪টি বিদ্বেষমূলক অপরাধ সংঘটিত হয়েছে। গত মে মাসে ম্যানচেস্টারে আত্মঘাতী হামলার পর ২৭৩টি হিংসাত্মক অপরাধের তথ্য নথিভুক্ত করা হয়েছে।

লন্ডন ব্রিজ হামলার পর এ ধরনের অপরাধের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩১৯টি। ব্রিটিশ পার্লামেন্ট হামলার পর হেটক্রাইমের সংখ্যা ১২ শতাংশ, ম্যানচেস্টার হামলার পর ৫০ শতাংশ এবং লন্ডন ব্রিজ হামলার পর বেড়েছে ৩৪ শতাংশ। খবর গার্ডিয়ানের।

এনপিসিসির বিদ্বেষমূলক অপরাধ শাখার প্রধান সহকারী প্রধান কনস্টেবল মার্ক হ্যামিল্টন জানান, জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে সন্ত্রাসী হামলায় স্বল্পমেয়াদে বিদ্বেষমূলক অপরাধের প্রবণতা বাড়িয়ে দেয়। এ জন্য সর্বশেষ হামলাগুলোর পর পুলিশের পক্ষ থেকে বিভিন্ন সম্প্রদায়ের মধ্যকার উত্তেজনা নিবিড়ভাবে পর্যালোচনা করা হচ্ছে।

পুলিশের রিপোর্টে আরও দেখা যায়, সন্ত্রাসী হামলার পর হেটক্রাইমের সংখ্যা অনেক বেড়ে গেছে; কিন্তু কয়েকদিনের মধ্যেই তা কমে আসে। এ ধরনের প্রবণতা আমরা আগেও লক্ষ্য করেছি।

তবে এখনও বিষয়টি পুলিশ ও পুরো সমাজের জন্য সত্যিকারের উদ্বেগের বিষয়। বিশেষ করে ম্যানচেস্টারে বোমা হামলায় ২২ জন নিহত হওয়ার পর হেটক্রাইমের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি বৃদ্ধি পায়। ২০১৬ সালের তুলনায় এই বৃদ্ধির পরিমাণ ছিল ৫০ শতাংশ।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close