ভারত জুড়ে

খানাপিনা বন্ধ রাম রহিমের: রায় ঘোষণার পরেই বেরিয়ে এলো আরও চাঞ্চল্যকর তথ্য

শীর্ষবিন্দু আন্তর্জাতিক নিউজ ডেস্ক: সিবিআই-এর বিশেষ আদালত দু’টি পৃথক মামলায় ধর্মগুরু বাবা গুরমিত রাম রহিমকে ১০ বছর করে কারাদণ্ডের নির্দেশ দিয়েছে। গুরমিতের এক আইনজীবী গতকাল জানান, সাজা কমানোর জন্য উচ্চ আদালতে আবেদন রাখবেন তাঁরা। তবে সাজা ঘোষণা হওয়ার পরেই ধর্ষক বাবার অবস্থা শোচনীয়।

সোমবার থেকে কোন খাবার খাচ্ছেন না। সামান্য দুধ খেয়ে ঠেলে দিয়েছিলেন গ্লাস। সংশোধনাগার সূত্রের খবর, প্রবল টেনশনের ছাপ মুখেচোখে ছিল স্পষ্ট।

এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবর সূত্রে জানা গিয়েছে, সোমবার সাজা শোনার পরেই সম্পূর্ণ ভেঙে পড়ে ধর্ষক বাবা। রায় ঘোষণার পরেই আদালতের মধ্যে কান্নাকাটি করে একপ্রস্ত নাটক শুরু করে সে। আদালত থেকে জোর করে জেলে নিয়ে গেলেও কান্না থামেনি রাম রহিমের। এই জেলেই ১০-১০ করে ২০ বছর কাটাতে হবে তাকে।

কারা সূত্রে জানা যাচ্ছে, গতকালের দিনটা যেমন তেমন করে কাটিয়েছেন রাম রহিম। কিন্তু সমস্যা হয়েছে রাতে। ওয়ার্ড নম্বর-১ ফাঁকা করে দেওয়া হয়েছিল তার জন্য। কিন্তু সেখানে মাত্র একটা ফ্যান চলছে। শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত কামরায় বিলাসবহুল শয্যায় অভ্যস্ত বাবার কাছে ভাদ্র মাসের গরমে যা সহ্য করা দুষ্কর।

তবে সেই আর্তিতে কেউ কান দেয়নি। নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, অবিলম্বে নিজের শৌখিন রেশমি পোশাক ছেড়ে কয়েদির পোশাক পরতে। তাকে এ বার থাকতে হবে সংশোধনাগারের কুঠুরিতেই, অন্য কয়েদিদের সঙ্গে।

দেশের প্রায় সব রাজনৈতিক দলই আদালতের এই রায়কে স্বাগত জানিয়েছে। বিজেপির তরফে সুব্রহ্মণ্যম স্বামী বলেন, ‘‘এই রায় বুঝিয়ে দিল, কেউই আইনের উর্ধ্বে নয়।’’ তবে রায় ঘোষণার পরেই সামনে এসেছে আরও বেশ কিছু চাঞ্চল্যকর তথ্য।

সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের দাবি, বাবার আশ্রমে যে কজন সাধ্বী ছিলেন, তাঁদের ৯০ শতাংশকেই ধর্ষণ করেছে রাম রহিম। সিবিআই-এর এক আধিকারিক জানান, এখনও পর্যন্ত ৩০-৪০ জন সাধ্বীকে ধর্ষণ করার প্রমাণ পাওয়া গিয়েছে। এদের মধ্যে অনেককে খুন করে তাঁদের দেহ লোপাট করা হয়েছে বলেও অভিযোগ। জানা গিয়েছে, ডেরা হেড কোয়ার্টারে অনেকের দেহ পুড়িয়ে দিয়েছে বাবার শাগরেদরা।

প্রসঙ্গত, ২০০২ সালে সাংবাদিক রামচন্দ্র ছত্রপতি বাবা রাম রহিমের কেচ্ছা সামনে আনার উদ্যোগ নেন এবং খুন হন। ধর্ষক বাবার নির্দেশেই এই খুন হয়েছিল বলে নিহত সাংবাদিকের পরিবারের অভিযোগ। সেই মামলার নিষ্পত্তিও খুব দ্রুত হওয়ার কথা। রাম রহিমের পনেরো বছরের সঙ্গী বিয়ন্ত সিংহ সংবাদসংস্থার কাছে দাবি করেন, ধর্মগুরু তার দত্তক নেওয়া মেয়ের স্বামীকেও হেনস্থা করেছে।

ইতিমধ্যেই ডেরা সমর্থকদের বিক্ষোভ নিয়ে কেন্দ্রকে রিপোর্ট পাঠিয়েছে হরিয়ানার বিজেপি সরকার। সরকার জানিয়েছে, শান্তি বজায় রাখতে ২০,০০০ আধা সামরিক নিয়োগ করা হয়েছে হরিয়ানায়।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close