লন্ডন থেকে

এশিয়ান রেস্টুরেন্ট এন্ড টেকওয়ে এওয়ার্ড: ব্রিটেনে আরও একট ওয়ার্ড প্রতিষ্ঠান চালু

শীর্ষবিন্দু আন্তর্জাতিক নিউজ ডেস্ক: বৃটেনের বিভিন্ন প্রান্থ থেকে আসা রেস্টুরেটার্স, ইন্ড্রাস্ট্রি নেতৃবৃন্দ ও সেলিব্রেটি এবং বিশিষ্টজনের উপস্থিতিতে ব্যতিক্রমী নানা কর্মসূচীর ঘোষনা দিয়ে মঙ্গলবার যাত্রা শুরু  করলো শিয়ান রেস্টুরেন্ট এন্ড টেকওয়ে এওয়ার্ড  সংক্ষেপে নাম দেয়া হয়েছে আরতা।

লন্ডন ডকল্যান্ডের ক্রাউন প্লাজা হোটেলে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বক্তারা মনে করেন বর্তমানে ব্রিটেনে কারী শিল্প সংকটের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে, স্টাফ সংকটের কারনে প্রতি দিনই বন্ধ হচ্ছে রেস্টুরেন্ট টেইকওয়ে। কাজেই যত বেশি এওয়ার্ড হবে, ততবেশি কারী শিল্পের সমস্যা সমাধানের দাবী তুলে ধরা সম্ভব হবে।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্যে আরতা-র ফাউন্ডার এবং শেফ অনলাইনের সিইও এম এ মুনিম সালিক ঘোষনা করেন-আরতা এওয়ার্ড কালচারে নতুন একটি মাত্রা তৈরী করবে। বিশেজ্ঞ জাজদের পাশাপাশি, এর শুরু হবে রেস্টুরেন্ট কাস্টমারদের মনোনয়নের ভিত্তিতে। আর ১৫টি রিজিওনে সরাসরি আলাদা আলাদা অনুষ্ঠান করে রিজিওনাল সেরাদের বাছাই করা হবে। গ্র্যান্ড ফিনালে-ও মাধ্যমে রিজিওনাল রেস্টুরেন্ট অব দ্য ইয়ার ঘোষনার পাশাাপাশি প্রদান করা হবে একটি চ্যাম্পিয়ান অব দ্য চ্যাম্পিয়ান এওয়ার্ড। গোল্ড সিলভারে খচিত এই ট্রফির মূল্য হবে প্রায় ৪০ হাজার পাউন্ড।

অনুষ্ঠানে আরতা-র দশজন স্ট্রিয়ারিং কমিটির মেম্বারের মধ্যে ফাউন্ডার মুনিম সালিক, টিম লিড ক্যানারিওয়ার্ফের এসোসিয়েট ডাইরেক্টর জাকির খান, টিম মেম্বার রাজাক আমিন শাহেদ ও টিম মেম্বার কদরুল ইসলাম বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন।

এছাড়া অতিথি বক্তা ছিলেন- বাংলাদেশ ক্যাটারাস এসোসিয়েশন প্রেসিডেন্ট কামাল ইয়াকুবম, সাবেক প্রেসিডেন্ট পাশা খন্দকার, লন্ডন বাংলাপ্রেস ক্লাব প্রেসিডেন্ট সৈয়দ নাহাস পাশা, এটিএন বাংলার সিইও হাফিজ আলম বক্স, বৃটিশ বাংলাদেশী ক্যাটারাস এসোসিয়েশন প্রেসিডেন্ট ইয়াফর আলী, সেক্রেটারী শাহনুর খান, শীর্ষ রেস্টুরেটার্স ও আর এম্বেসেডর মিঠু চৌধুরী।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই উপস্থাপিকা বিবিসি ওয়াল্ড এর নিউজ প্রেজেন্টার সামান্তা সিমন্ড এর প্রশ্ন ছিল ব্রিটেনে এতগুলি কারী এওয়ার্ড চালু থাকার পরও কেন আবারো নতুন এই এওয়ার্ড। জবাবে এর সুন্দর ব্যাখাদেন উক্ত এওয়ার্ড এর অন্যতম উদ্যোক্তা এম এ মুনিম সালিক।

তারা মনে করেন, বৃটিশ বাংলাদেশী বা সাউথ এশিয়ান কারী ইন্ড্রাস্ট্রির সামগ্রিক উন্নতিতে এওয়ার্ড বা মূল্যায়ন একটি বড় ভূমিকা রাখতে পারে। তবে এ ক্ষেত্রে এর আয়োজনে থাকতে হবে বৈচিত্রতা এবং এওয়ার্ড প্রদানে থাকতে হবে স্বচ্ছতা। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্যে আরতা-র ফাউন্ডার এবং শেফ অনলাইনের সিইও এম এ মুনিম সালিক ঘোষনা করেন-আরতা এওয়ার্ড কালচারে নতুন একটি মাত্রা তৈরী করবে।

বিশেষজ্ঞ জাজদের পাশাপাশি, এর শুরু হবে রেস্টুরেন্ট কাস্টমারদের মনোনয়নের ভিত্তিতে। আর ১৫টি রিজিওনে সরাসরি আলাদা আলাদা অনুষ্ঠান করে রিজিওনাল সেরাদের বাছাই করা হবে। গ্র্যান্ড ফিনালে-ও মাধ্যমে রিজিওনাল রেস্টুরেন্ট অব দ্য ইয়ার ঘোষনার পাশাাপাশি প্রদান করা হবে একটি চ্যাম্পিয়ান অব দ্য চ্যাম্পিয়ান এওয়ার্ড। গোল্ড সিলভারে খচিত এই ট্রফির মূল্য হবে প্রায় ৪০ হাজার পাউন্ড।

বিবিসি ওয়াল্ড এর নিউজ প্রেজেন্টার সামান্তা সিমন্ড এর উপস্থাপনায় এতে বিশেষ বক্তা হিসেবে অংশ নেন আরতার প্রাস্তাবিত দুই চ্যারিটি পার্টনার অক্সফাম-এর ফানন্ডরেইজিং ডিরেক্টও টিম হান্টার ও ৯০ দশকের সেরা বৃটিশ ক্রিকেটার ডেভন ম্যালকম এবং ক্যানারি ওয়ার্ফের ম্যানেজিং ডিরেক্টও হাওয়ার্ড ডোভার। তারা সকলেই-আরতা ইন্ড্রাস্ট্রির এওয়ার্ডে ব্যতিক্রমী সংযোজন হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close