Americaযুক্তরাষ্ট্র জুড়ে

২৫ মিনিট আগে ফোনে বলা হয়েছিল প্রেসিডেন্ট কেনেডিকে হত্যা করা হতে পারে

শীর্ষবিন্দু আন্তর্জাতিক নিউজ ডেস্ক: ১৯৬৩ সালের ২২ শে নভেম্বর। দিনটি ছিল শুক্রবার। টেক্সাসের ডালাস শহর। সময় তখন সেখানে দুপুর ১২টা ৩০ মিনিট। শান্ত শহরে স্ত্রী জ্যাকুলিন, টেক্সাসের গভর্নর জন কোনালি ও তার স্ত্রী নিলির সঙ্গে মোটর শোভাযাত্রা করছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের ৩৫তম প্রেসিডেন্ট জন এফ কেনেডি। এর ঠিক ২৫ মিনিট আগে কেমব্রিজ প্রেসে একটি ফোনকল আসে। তাতে জানানো হয় জন এফ কেনেডিকে হত্যা করা হতে পারে।

ঠিক ২৫ মিনিট পরেই উন্মুক্ত রাজপথে হাস্যোজ্বল কেনেডির গায়ে উড়ে এসে বিদ্ধ হয় গুলি। তিনি মুহূর্তে লুটিয়ে পড়েন। যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে সবচেয়ে ভয়াবহ, ন্যক্কারজনক হত্যাকা- ঘটে যায়। এর জন্য দায়ী করা হয় নৌ বাহিনীর সাবেক একজন সদস্য লি হারভে ওসওয়াল্ডকে। এই হত্যাকা- নিয়ে গোপন বিপুল পরিমাণ দলিল প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। তাতে উঠে এসেছে এসব কথা। এ হত্যাকান্ডের সঙ্গে জড়িত ছিলেন বৃটিশ বংশোদ্ভূত একজন সাবেক সোভিয়েত গুপ্তচর আলবার্ট ওসবর্ন। বিষয়টি তিনি পরিবারের সদস্যদের কাছে স্বীকার করেছেন। তখন গ্রিমসবি’তে বসবাস করতেন তার পরিবার। তাদেরকে তিনি চিঠি লেখেন।

তাতে বলনে, জন এফ কেনেডে হত্যাকান্ডে আমার বিষয়ে তদন্ত করছে এফবিআই। ডালাসে যে সময়ে প্রেসিডেন্ট কেনেডিকে গুলি করে হত্যা করা হয় তখন ওই বিস্ময়কর চিঠি লিখেছিলেন ওসবর্ন। এসে তিনি বলেছিলেন, যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থাগুলো তাকে হন্যে হয়ে খুঁজছে।

ধারণা করা হয়, জন এফ কেনেডিকে হত্যা করার ২৫ মিনিট আগে বৃটিশ মিডিয়াকে ফোন করে এ বিষয়ে সতর্কবার্তা তিনিই দিয়েছিলেন। বলেছিলেন, জন এফ কেনেডিকে হত্যা করা হতে পারে। যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক এই প্রেসিডেন্টকে যে লি ওসওয়াল্ড হত্যা করেছিল তার সঙ্গে এই সোভিয়েত গুপ্তচরের বন্ধুত্ব গড়ে উঠেছিল। তারা এ হত্যাকা-ের দু’মাস আগে বাসে করে যাচ্ছিলেন মেক্সিকো। সে সময়েই গড়ে ওঠে ওই বন্ধুত্ব।

তবে তিনি আত্মীয়দের কাছে লেখা চিঠিতে বলেছেন, ‘সচেতনভাবে আমি পরিষ্কার’। কয়েক মাস ধরে আমার বিষয়ে তদন্ত করছে যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআই। তারা দাবি করছে, আমি যখন ২৫ শে সেপ্টেম ¦র মেক্সিকো সফরে যাচ্ছিলাম তখন লি ওসওয়াল্ড নামের একজন বাসে আমার পাশে বসেছিলেন। তার সঙ্গে আমার কথোপকথন হয়েছিল।

যদিও আমার এখন এমন কোনো ব্যক্তির সঙ্গে সফর করার কথা পরিষ্কার মনে পড়ছে না, তবু তারা জিজ্ঞাসাবাদ করে যাচ্ছে, আমাদের মধ্যে কি কথা হয়েছিল। এটা এক বিদঘুটে ব্যাপার যে, এই সময়ে এমন কাজে কিভাবে একজন মানুষ জড়িত হতে পারে। এ বিষয়ে আমার অবস্থান পরিস্কার। ফলে আমি কেন উদ্বিগ্ন হতে যাবো’। পশ্চিমা মিডিয়াতে বলা হয়েছে, ওসবর্ন যখন গ্রিমসবিতে অবস্থান করছিলেন তখন তিনিই জন এফ কেনেডিকে হত্যা করা হতে পারে বলে বৃটেনে ফোন কল দিয়ে থাকতে পারেন। ১৯৬৩ সালের ২২ শে নভেম্বর হত্যাকান্ডের ঠিক ২৫ মিনিট আগে ওই ফোনকল দেয়া হয়েছিল। সেটাকে ‘কল দ্য আমেরিকান এম্বাসি ইন লন্ডন ফর সাম বিগ নিউজ’ হিসেবে ক্যাটেগরিতে রাখা হয়েছে। আলবার্ট ওসবর্নের ভাতিজার নাম ডেরিল। তিনি লন্ডনের মেইল অনলাইনকে একটি সাক্ষাতকার দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, শিশু অবস্থায় তার সঙ্গে সাক্ষাত হয়েছিল ওসবর্নের। তার লেখা ১৯৬৩ সালের ১৩ই এপ্রিলে লেখা একটি চিঠি দেখিয়েছেন এই পত্রিকার সাংবাদিককে।

ডেরিল বলেছেন, তিনি শিশু অবস্থায় এমন একজন আত্মীয়ের সঙ্গে সাক্ষাত করেছিলেন যিনি প্রেসিডেন্ট কেনেডি হত্যায় জড়িত। এটা একটা হতাশাজনক বিষয়। তিনি জড়িত নাও থাকতে পারেন। কিন্তু প্রকৃত সত্য আমরা কখনো সম্ভবত জানতেও পারবো না। তাকে আমি আঙ্কেল আলবার্ট নামে সম্বোধন করতাম। তিনি ছিলেন শান্তশিষ্ট। আমার এখন আর বিশ্বাস করতে ভাল লাগে না যে, গ্রিমসবিতে বসবাস করা একটি পুরো পরিবার সব সময়ই বিশ্বের সবচেয়ে জঘন্য ও ন্যাক্কারজনক একটি ইভেন্টের সঙ্গে জড়িয়ে গেছে। সবাই এ নিয়ে কথা বলেন। আঙ্কেল আলবার্টকে আমি মাত্র দু’বার দেখেছি। স্মরণ করতে পারি তিনি খুব বড়-সড় গড়নের। বন্ধুপ্রতীম।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close