শরীর স্বাস্থ্য

সুস্থ থাকতে দিনে ১৫ মিনিট হাসুন

অধ্যাপক, এম এ মুহিত কামাল: কথায় বলে সুন্দর হাসি আর সুন্দর কথা দিয়ে নাকি পৃথিবী জয় করা যায়। আমাদের চারপাশে অনেক মানুষ আছেন যারা কথা কম বলেন আবার হাসেনও কম। দেখা যায় অনেক মজার কাণ্ড ঘটনার পরেও তাদের ঠোঁটের কোনায় অনেক কষ্টে এক চিলতে হাসি ফোটে।এটি মোটেও ঠিক নয়।যারা কম হাসেন তাদের জন্য বলছি সুস্থ থাকতে হলে হাসতে হবে।এটি আমার কথা নয় জানিয়েছেন মনোরোগ বিশেষজ্ঞরা।সুস্থ থাকতে চাইলে দিনে অন্তত ১৫ মিনিটের মনখোলা হাসি খুব বেশি জরুরি।

মনোরোগ বিশেষজ্ঞরা বলে থাকেন, আমরা সারাদিন ঘর থেকে শুরু করে অফিস পর্যন্ত নানাবিধ কাজের চাপে থাকি।মানসিক চাপে জীবনযাপন করলে রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায়।এছাড়া মানসিক সমস্যা, উচ্চরক্তচাপ, হৃদরোগসহ নানা ধরনের অসুস্থতা বেড়ে যায়। হাসির মাধ্যমে মানুষের রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে।তাই হাসুন প্রাণ খুলে। হাসলে শরীরে রক্ত চলাচল সচল থাকে।এছাড়া দেহকে নানাবিধ জটিল রোগ থেকে রক্ষা করে।

মনোরোগ বিশেজ্ঞরা মনে করেন, আমরা অনেক সময় দেখি স্কুলে ছুটির ঘণ্টা পড়ার পড়ে বাচ্চা চেঁচামেচি-চিৎকার শুরু করে দেয়। অনেক এক্ষেত্রে বিরক্ত হলেও এটি প্রয়োজন।দীর্ঘক্ষণ একটানা ক্লাস করার পরে তাদের মানসিক যে ক্লান্তি থাকে তা ওই হৈচৈ-চেঁচামেচির কারণে মানসিক অবসাদ লাভ করে। তাই কাজের ফাঁকে সময় বের করে বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা দেয়া ও হাসা জরুরি। অর্থাৎ সুস্থ থাকতে হলে হাসতে হবে।

আসুন জেনে নেই হাসার উপকারিতা।হাসলে মন ও শরীর ভালো থাকে। তাই হাসা জরুরি।

হাসি রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়

মনোরোগ বিশেষজ্ঞরা বলে থাকেন হাসি রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।হাসি মানুষের মানসিক সমস্যা, উচ্চরক্তচাপ, হৃদরোগসহ নানা ধরনের অসুস্থতা থেকে রক্ষা করে।

রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি পায়

প্রাণখোলা হাসি আমাদের দেহে রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি করে।হাসার ফলে মানবদেহের প্রতিটি অঙ্গপ্রত্যঙ্গে এবং মস্তিষ্কে ভালোভাবে রক্ত সঞ্চালন হয়। এছাড়া শরীরের অঙ্গপ্রত্যঙ্গকে সচল এবং সুস্থ রাখতে হাসির বিকল্প নেই।

ক্যালোরি ক্ষয় হয়

আপনি জানেন কী হাসলে আপনার দেহের ক্যালোরি ক্ষয় হয়। কিন্তু এই ক্যালোরি ক্ষয়ের জন্য আমরা কত কিছুই না করে থাকি।মাত্র ১৫ মিনিটের প্রাণখোলা হাসি আমাদের ২০-৪০ ক্যালোরি পর্যন্ত ক্ষয় করে।

মানসিক চাপ কমায়

ঘর থেকে শুরু করে অফিস পর্যন্ত আপনি নানাবিধ মানসিক চাপে থাকেন। মানসিক চাপ থেকে পরিক্রাণের অন্যতম উপায় হচ্ছে প্রাণখোলা হাসি। হাসি অপনাকে সুস্থ রাখতে সাহায্যে করবে। ক্লান্তি ও বিরক্তি থেকে মুক্তি দেয়। অনেক চাপের মধ্যে থাকলেও হাসার চেষ্টা করুন।

চেহারায় লাবণ্য বাড়ায়

হাসলে দেহ ও মন সুস্থ থাকে।এছাড়া হাসি আপনার চেহারার লাবণ্য বাড়ায়। হাসলে মানুষকে দেখতে সুন্দর দেখায় ও প্রাণবন্ত মনে হয়।

উচ্চ রক্তচাপ ও হৃদরোগ

মনখোলা হাসি উচ্চরক্তচাপ ও হৃদরোগের ঝুঁকি কমায়। হাসি রক্ত চলাচল বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। তাই প্রতিদিন কমপক্ষে ১৫ মিনিট প্রাণ খুলে হাসুন।

– অধ্যাপক, এম এ মুহিত কামাল, পরিচালক জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

আরও দেখুন...

Close
ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close