শরীর স্বাস্থ্য

ভাইরাস জ্বরে কি হৃদযন্ত্র আক্রান্ত হতে পারে

ডা. মো. তৌফিকুর রহমান: জনাব ইসলাম। বয়স ৪৬ বছর। গত ৩ দিন ধরে জ্বর ও প্রচণ্ড শরীর ব্যথা, বমি বমি ভাব, দুর্বলতা, হাত ও পায়ের গিরা ফুলা ও ব্যথা। তাকে জ্বর ও অন্যান্য উপসর্গ নিরাময়ের জন্য প্রয়োজনীয় ওষুধ দেয়া হল। তিনি কিছু পরামর্শ ও কিছু প্রশ্নের উত্তর জানতে চান।

ভাইরাস জ্বর বা চিকুনগুনিয়া কি কারণে হয়?

চিকুনগুনিয়া এক ধরনের ভাইরাসঘটিত রোগ। এডিস নামক এক ধরনের মশার কামড়ের মাধ্যমে এই রোগ এক ব্যক্তি থেকে অন্য আরেক ব্যক্তির শরীরে ছড়ায়।

ভাইরাস জ্বরে গিরা ফুলা ও ব্যথা কেন হয়?

ভাইরাস শরীরে প্রবেশের পর আমাদের শরীরের রোগ প্রতিরোধ করার যে বাহিনী আছে তা সক্রিয় হয়। এই রোগ প্রতিরোধ করার বাহিনীর এক বিশেষ ধরনের কোষ ও কলা তন্ত্র এই ভাইরাসকে শনাক্ত করে ভাইরাসগুলোকে মেরে ফেলা বা নিষ্ক্রিয় করার জন্য এক ধরনের অস্ত্র তৈরি করে যা এন্টিবডি নামে পরিচিত। এই এন্টিবডিগুলো ভাইরাসের সঙ্গে আবদ্ধ হয়ে এক ধরনের কমপ্লেক্স পদার্থ তৈরি করে। এই কমপ্লেক্স পদার্থ তখন শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আটকে যায়, যদি হাত বা পায়ের গিরায় আটকে যায় তবে ওই গিরায় প্রদাহ হয়, ফলে গিরা ব্যথা হয় ও ফুলে যায়।

রোগের মাত্রা কি রোগীভেদে কম-বেশি হতে পারে?

এ ভাইরাসে আক্রান্ত হলে এই ভাইরাসের কারণে অন্যান্য ভাইরাসের মতোই শুধু শরীরে জ্বর ও ব্যথা হতে পারে। কিন্তু হাত ও পায়ের গিরা ফোলা ও প্রচণ্ড ব্যথা হওয়ার মাত্রা নির্ভর করে ভাইরাস ও রোগ প্রতিরোধকারী এন্টিবডির কমপ্লেক্সের প্রতি শরীরের প্রতিক্রিয়ার মাত্রার ওপর। প্রতিক্রিয়ার মাত্রা বেশি হলে অনেকগুলো গিরা আক্রান্ত হতে পারে বা আক্রান্ত গিরা বা গিরাগুলোর ব্যথা বা ফোলার মাত্রা বেশি হতে পারে বা একটির পর একটি এভাবে পর পর অনেকগুলো গিরা আক্রান্ত হতে পারে অথবা অনেক দিন পর্যন্ত এমনকি ২ বছর পর্যন্তও গিরা ব্যথা ও ফোলা থাকতে পারে। আবার প্রতিক্রিয়ার মাত্রা বেশি হলে এমনকি গিরা আক্রান্ত হওয়া ছাড়াও কিডনি, যকৃত ও হৃদযন্ত্রও আক্রান্ত হতে পারে।

গিরা আক্রান্ত হওয়া ছাড়াও শরীরের অন্য অঙ্গও কি আক্রান্ত হতে পারে? হলে কি কি সমস্যা হতে পারে?

গিরা আক্রান্ত হওয়া ছাড়াও কিডনি, যকৃত ও হৃদযন্ত্রও আক্রান্ত হতে পারে। কিডনিতে আক্রান্ত হলে নেফ্রাইটিস হতে পারে। ফলে কিডনি দিয়ে প্রোটিন ও রক্তকণিকা বের হয়ে যেতে পারে, শরীরে পানি আসতে পারে। যকৃত আক্রান্ত হলে যকৃত সাময়িক ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে রক্তে যকৃতের এনজাইমগুলো বাড়ে, এমনকি লিভার ফেইলুর হতে পারে। হৃদযন্ত্র আক্রান্ত হলে হৃদযন্ত্রের মাংসপেশি ও বাহিরের পর্দা আক্রান্ত হতে পারে ফলে হৃদযন্ত্রের কার্যক্ষমতা সাময়িক কমে যেতে পারে, হৃদযন্ত্র থেকে বের হওয়া হরমোন ও এনজাইমগুলো ট্রোপোনিন, নেট্রিইউরেটিক পেপটাইড বেড়ে যেতে পারে এমনকি হার্ট ফেইলুর হতে পারে। রক্তচাপ কমে যেতে পারে। হৃদযন্ত্রের পর্দা আক্রান্ত হলে বুকে ব্যথা হওয়া ছাড়াও হৃদযন্ত্রের চারপাশে পানি জমতে পারে। চিকুনগুনিয়া রোগে তাই একই সময়ে এক বা একাধিক অঙ্গ আক্রান্ত হতে পারে, ফলে মাল্টি অরগান ফেইলুর হতে পারে, রোগীকে তাই আইসিইউতে চিকিৎসা লাগতে পারে।

ভাইরাস রোগ কিভাবে নির্ণয় বা নিশ্চিত করা যায়?

এ রোগের উপসর্গ যেমন জ্বর, গিরা ব্যথা ও ফোলা অন্যান্য কিছু কিছু রোগেও হতে পারে, তাই চিকুনগুনিয়া রোগ নিশ্চিত হওয়ার জন্য বিশেষ ধরনের রক্ত পরীক্ষার প্রয়োজন।

ভাইরাল রোগের প্রাথমিক উপসর্গ যেমন জ্বর, গিরা ব্যথা কি অন্য রোগেও হতে পারে?

হ্যাঁ, চিকুনগুনিয়া রোগের প্রাথমিক উপসর্গ যেমন জ্বর, গিরা ব্যথা অন্য রোগে যেমন যে কোনো ভাইরাসঘটিত রোগে এমনকি সাধারণ ফ্লুতে, ডেঙ্গু রোগে, বাতজ্বরে ও অন্যান্য বাতরোগে, কিছু কিছু ক্যান্সার রোগে হতে পারে।

গিরা ব্যথা ও ফুলা তা কি অন্য রোগেও হতে পারে?

কিছু কিছু বাতরোগে যেমন গাউট অর্থাৎ ইউরিক এসিড বেশি রোগে, বাতজ্বর রোগে, রিউমাটয়েড আর্থ্রাইটিস রোগে গিরা ব্যথা ও ফুলতে পারে। তাই রক্ত পরীক্ষার মাধ্যমে সঠিক কি কারণে গিরা ব্যথা ও গিরা ফুলা রোগ হয়েছে তা নিশ্চিত করা যায়।

জ্বর ভালো হওয়ার পরও যদি দীর্ঘমেয়াদি গিরা ব্যথা বা গিরা ফোলা থাকে তবে কি তা নিরাময়ে বিশেষ কোনো ওষুধ আছে?

গিরা ব্যথা ও ফোলা যেহেতু এক বিশেষ ধরনের ইমিউনোলজিক্যাল প্রতিক্রিয়া তাই গিরা ব্যথার সাধারণ ওষুধে তেমন কাজ না হলে কিছু কিছু বিশেষ ধরনের ওষুধ আছে যা শরীরের ইমিউনোলজিক্যাল রিঅ্যাকশন কমায়। সে ওষুধগুলো খেতে পারবেন কিন্তু অবশ্যই আপনার মেডিসিন বিশেষজ্ঞের পরামর্শ অনুযায়ী।

লেখক: সহযোগী অধ্যাপক, মেডিসিন ও হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ, জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট হাসপাতাল, ঢাকা

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

আরও দেখুন...

Close
ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close