Featuredলন্ডন থেকে

লন্ডনে বিদায়ী বছরের শেষ মুহূর্তে ছুরিকাঘাতে নিহত ৪

শীর্ষবিন্দু নিউজ: ইংরেজি বর্ষবরণের উৎসব চলাকালে যুক্তরাজ্যের লন্ডনে বিভিন্ন স্থানে পৃথক ছুরিকাঘাতে চার ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। বয়সে তারা সবাই কিশোর বা সবেমাত্র কৈশোর উত্তীর্ণ।

এছাড়া গুরুতর আহত অবস্থায় একজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সোমবার লন্ডনের পুলিশ এই তথ্য জানিয়েছে।

এ চারটি ছুরিকাঘাতের ঘটনা ঘটে উত্তর, পূর্ব ও দক্ষিণ লন্ডনে। তবে একটি হত্যাকান্ডের সঙ্গে অন্যদির কোনো যোগসূত্র নেই। এ নিয়ে ২০১৭ সালে লন্ডনে ছুরিকাঘাতে নিহতের সংখ্যা দাঁড়ালো ৮০। এ খবর দিয়েছে অনলাইন দ্য গার্ডিয়ান।

বছরের শেষ সন্ধ্যায় লন্ডনের উত্তর, পূর্ব এবং দক্ষিণ অংশে আততায়ীর ছুরিকাঘাতে নিহত হন ৩ জন। নতুন বছরের প্রথম দিন ছুরিকাঘাতে নিহত হন ১ জন। ১৫ ঘণ্টার ব্যবধানে এসব হামলা হয়।

গত বছর লন্ডনে ছুরিকাঘাতে মোট ৮০ জনের নিহত হবার খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছে স্কটল্যান্ড ইয়ার্ড। লন্ডনের মেয়র সাদিক খান বলেছেন, ২০১৮ সালে এ ধরণের আততায়ী হামলার সংখ্যা কমিয়ে আনতে তিনি প্রয়োজনীয় সব ধরণের উদ্যোগ গ্রহণ করবেন।

নিহতদের মধ্যে একজনকে উত্তর লন্ডনের এনফিল্ড এলাকায় রবিবার রাতে ছুরিকাঘাত করা হয়। হাসপাতালে নেওয়ার পর ১৮ বছরের ওই তরুণের মৃত্যু হয়। এই ঘটনায় পাঁচজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

এর আগে লন্ডনের স্থানীয় সময় সাড়ে সাতটার দিকে ২০ বছরের আরেক তরুণকে পূর্ব লন্ডনের ওয়েস্ট হ্যামে ছুরিকাঘাত করা হয়। আর রাত পৌনে এগারোটার দিকে তুলসি হিল এলাকায় ১৭ বছরের কিশোর ছুরিকাঘাতে নিহত হয়।

সোমবার ভোরের দিকে সিটি এলাকার পূর্ব দিকে বার ও ক্লাবে ভরপুর ব্যস্ত ওল্ড স্ট্রিটে ২০ বছরের আরেক তরুণকে ছুরিকাঘাত করলে নিহত হয়। ওই এলাকায় ২০ বছরের অপর এক তরুণকে ছুরিকাঘাত করা হয়। পরে তাকে গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

২০১৭ সালে লন্ডনে ছুরিকাঘাতের সংখ্যা অনেক বেড়েছে। মার্চ মাসে দেওয়া পুলিশের পরিসংখ্যান অনুসারে, দেশটিতে ১২ হাজার ১০০ ছুরিকাঘাতের ঘটনা ঘটেছে। এতে প্রায় ৪ হাজার ৪০০ মানুষ আহত হয়েছেন। যা গত ৫ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ।

২২ ডিসেম্বর মেট্রোপলিটন পুলিশের এক নারী মুখপাত্র জানান, ২০১৭ সালের ১ জানুয়ারি থেকে ২২ ডিসেম্বর পর্যন্ত ছুরিকাঘাতে ৭৭ জন মানুষ নিহত হয়েছেন।

এ ধরণের হামলা ঠেকাতে লন্ডনের পুলিশ বাহিনীতে জনবল ও সম্পদ বাড়ানো দরকার বলে মত দিয়েছেন  বৃটেনের সিনিয়র পুলিশ অফিসার ক্রেসিদা ডিক।

পুলিশ জানায়, গোয়েন্দারা চারটি পৃথক হত্যা মামলায় তদন্ত শুরু করেছেন। মধ্যরাতে লন্ডন আই সংলগ্ন এলাকা থেকে দূরে এসব হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হয়। লন্ডন আই এলাকায় বর্ষবরণ উৎসবের আতশবাজি দেখতে লক্ষাধিক মানুষ জড়ো হয়েছিলেন।

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close