Featuredঅন্য পত্রিকা থেকে

বায়তুস-সালাম মসজিদের ফান্ডরেইজিং ডিনারে ব্যাপক সাড়া

যুক্তরাজ্য প্রবাসীদের ২৩ লাখ টাকার প্রতিশ্রুতি

নিউজ ডেস্ক: বড়লেখা উপজেলার উত্তর শাহবাজপুর ইউনিয়নের বাদে ভাটাউছি গ্রামের বায়তুস-সালাম মসজিদের নির্মাণ কাজের জন্য যুক্তরাজ্য প্রবাসীদের কাছ থেকে ২৩ লক্ষ টাকার প্রতিশ্রুতি পাওয়া গেছে।

গত ৩ জানুয়ারি বুধবার সন্ধ্যায় লন্ডন মুসলিম সেন্টারের সেমিনার হলে আয়োজিত ফান্ডরেইজিং ডিনার অনুষ্ঠানে উপস্থিত কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ এ প্রতিশ্রুতি প্রদান করেন। তিন ক্যাটাগরিতে অর্থ সাহায্য সংগৃহিত হয়। তা হলো- প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ১ লক্ষ টাকা, আজীবন সদস্য ৫০ হাজার টাকা ও দাতা সদস্য ২৫ হাজার টাকা।

ইমাম ও টিভি ব্যক্তিত্ব আজমাল মাসরুর এর উপস্থাপনায় অনুষ্ঠিত ফান্ডরেইজিং অনুষ্ঠানের শুরুতে বায়তুস সালাম মসজিদের সংক্ষিপ্ত বিবরণী তুলে ধরেন মসজিদ কমিটির ভাইস প্রেসিডেন্ট ও সাপ্তাহিক দেশ সম্পাদক তাইসির মাহমুদ।

অনুষ্ঠানে পবিত্র কুরআন থেকে তেলাওয়াত করেন সাংবাদিক এনাম চৌধুরী ও ইসলামি সংগীত পরিবেশন করেন সাংবাদিক ওমর ফারুক। ফান্ডরেইজিং অনুষ্ঠানের শেষ পর্যায়ে মোনাজাত পরিচালনা করেন ইস্ট লন্ডন মস্ক এণ্ড লন্ডন মুসলিম সেন্টারের ইমাম ও খতীব শায়খ আব্দুল কাইয়ূম।

অনুষ্ঠানে তাইসির মাহমুদ তাঁর স্বাগত বক্তব্যে বলেন, দু’তলা বিশিষ্ট মসজিদ ভবনের কাজ ইতোমধ্যে শুরু হয়ে গেছে। মসজিদের কাজ শেষ করতে কমপক্ষে ৬০ লক্ষ টাকা প্রয়োজন। তিনি বলেন, শাহবাজপুর মৌলভীবাজার জেলার একটি সীমান্তিক জনপদ। এই এলাকায় লন্ডন প্রবাসীর সংখ্যা একেবারেই কম। শুধু এলাকাবাসীর কাছ থেকে সাহায্য নিয়ে মসজিদ প্রতিষ্ঠা করা কঠিন। তাই তিনি যুক্তরাজ্যের সর্বস্তরের প্রবাসীদেরকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে আসার আহবান জানান।

জনাব তাইসির মাহমুদ বলেন, বায়তুস-সালাম মসজিদটি প্রত্যন্ত অঞ্চলে অবস্থিত হলেও এটি প্রতিষ্ঠা করা হচ্ছে সকল আধুনিক সুযোগ-সুবিধার সমন্বয়ে। পুরুষের নামাজের হলের পাশাপাশি মহিলাদের জন্যও থাকছে পৃথক হল। থাকবে একটি আধুনিক লাইব্রেরী। মসজিদকে গ্রামের সর্বস্তরের মানুষের জন্য ভালো কাজের একটি কেন্দ্রবিন্দু হিসেবে প্রতিষ্ঠা করা হবে।  তিনি ফান্ডরেইজিং অনুষ্ঠানে যারা ২৩ লাখ টাকা প্রদানের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তাদের প্রতি গভীর কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বলেন, এখনও আরো ৩৭ লাখ টাকা প্রয়োজন। আমরা আশাবাদী প্রবাসীরা বায়তুস সালাম মসজিদের জন্য সাহায্য প্রদান অব্যাহত রাখবেন এবং আগামী এক বছরের মধ্যে নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করা সম্ভব হবে।

তিনি ফান্ডরেইজিং ডিনার আয়োজনে যারা সহযোগিতা করেছেন তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। তাছাড়া বাংলাদেশে মসজিদ কমিটির সকল সদস্য যারা অর্থ ও শ্রম দিয়ে মসজিদকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন তাদের প্রতি আন্তরিক ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

অনুষ্ঠানে নগদ অর্থ প্রদানসহ তিন ক্যাটাগরিতে যারা সাহায্য প্রদানের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তাঁরা হলেন, সিমার্ক গ্রুপের চেয়ারম্যান যুক্তরাজ্যের শীর্ষ বাংলাদেশী ব্যবসায়ী ইকবাল আহমদ ওবিই, চ্যানেল এস এর ফাউন্ডার চেয়ারম্যান মাহি জলিল, বৃটিশ-বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্সের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট ও নতুন দিন সম্পাদক মহিব চৌধুরী, ব্রেন্ট কাউন্সিলের সাবেক মেয়র কাউন্সিলার পারভেজ আহমদ, বৃটিশ বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্সের সাবেক প্রেসিডেন্ট মুকিম আহমদ, সাপ্তাহিক নতুন দিনের চেয়ারম্যান বিশিষ্ট কমিউনিটি নেতা আলহাজ্ব মানিক মিয়া, লন্ডন বাংলা প্রেসক্লাবের আজীবন সদস্য কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব শামীম লোদী, ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন সিলেট ইউকে এভাইজরি কমিটির প্রেসিডেন্ট এম এ আহাদ, সেন্ট পিটার্স বেঙ্গলী এসোসিয়েশনের চেয়ারপার্সন আলহাজ্ব আতিক মিয়া, ইমিগ্রেশন জাজ সলিসিটর বেলায়েত হোসেন, বিশিষ্ট আইনজীবী ব্যারিস্টার নাজির আহমদ, সাপ্তাহিক জনমত সম্পাদক নবাব উদ্দিন, লন্ডন বাংলা প্রেস ক্লাবের জেনারেল সেক্রেটারি ও চ্যানেল এস-এর চীফ রিপোর্টার মুহাম্মদ জুবায়ের, ইস্ট লন্ডন মস্ক ও লন্ডন মুসলিম সেন্টারের সেক্রেটারি আইয়ুব খান, সাপ্তাহিক বাংলা পোস্টের অনারারী চেয়ারম্যান শেখ মুফিজুর রহমান, সাপ্তাহিক বাংলা পোস্টের সম্পাদক ব্যারিস্টার তারেক চৌধুরী, বৃটিশ-বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্সের ডাইরেক্টর এমদাদ আহমদ, বাংলাদেশ সেন্টারের জেনারেল সেক্রেটারি দেলওয়ার হোসাইন, ব্যারিস্টার এম এ সালাম, ব্যারিস্টার জাহির আশহাজ, ব্যারিস্টার মোহাম্মদ শহীদ, রাইট-লেইন প্রোপার্টির ম্যানেজিং ডাইরেক্টর ফারুক ফুয়াদ চৌধুরী, টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের কাউন্সিলার আবুল আসাদ, কাউন্সিলার শাহ আলম, একাউন্টেন্ট আবুল হায়াত নুরুজ্জামান, কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব আব্দুল মুনিম চৌধুরী, এসেক্স হ্যাইবারিং কলেজের লেকচারার মোঃ জামাল উদ্দিন, ইউরোবাংলা সম্পাদক আব্দুল মুনিম জাহেদী ক্যারল, বিশিষ্ট কমিউনিটি নেতা আলহাজ্ব মঞ্জুর রেজা চৌধুরী, চ্যানেল এস-এর সিনিয়র প্রডিউসার আহাদ আহমদ, স্ট্যান্ডার্ড এক্সচেঞ্জ ইউকে’র সাবেক সিইও কামরুল ইসলাম জামাল, বিয়ানী বাজার ক্যান্সার হাসপাতালের ডাইরেক্টর ফুয়াদ আহমদ, বিএ এক্সচেঞ্জ ইউকের ম্যানেজার মোহাম্মদ রহিম, পূর্ব মুড়িয়া ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট ইউকের সাবেক সভাপতি মিসবাহ উদ্দিন, সাবেক সেক্রেটারি ফারুক উদ্দিন তাপাদার, প্রতিষ্ঠাতা সদস্য মোঃ আব্দুল মতিন, বর্তমান সেক্রেটারি সাদিকুর রহমান বকুল, মুহিত এণ্ড কোঃ এর স্বত্তাধিকারী মুহিত উদ্দিন মনজু এফসিসিএ, শাহবাজপুর কল্যাণ সমিতি ফ্রান্সের উপদেষ্টা কামরুল ইসলাম খোকন, সেক্রেটারি মোঃ সালাহ উদ্দিন, সদস্য জুবায়ের আহমদ, গোলাপগঞ্জ উপজেলা এডুকেশন ট্রাস্টের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোঃ আব্দুল বাছির, টাওয়ার হ্যামলেটস কেয়ারার্স এসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট মোঃ আবুল হোসেইন, উপদেষ্টা এম আববাসুজ্জামান, বৃটিশ-বাংলাদেশী আইনজীবী মোঃ নাসির উদ্দিন, ঢাকা রিজেন্সি হোটেলের ডাইরেক্টর বাসিত খান, বড়লেখা ফাউন্ডেশনের প্রেসিডেন্ট মোঃ জামাল উদ্দিন, সেক্রেটারি ফয়সল রহমান, জয়েন্ট সেক্রেটারি কামরুল ইসলাম, ট্রাস্টি নজমুল ইসলাম, ট্রাস্টি আকবর হোসেন, মর্গেজ কনসালটেন্ট বাবলুল হক, কুলাউড়া ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশনের সাবেক প্রেসিডেন্ট শরিফুজ্জামান চৌধুরী তপন, বাংলাদেশী টিচার্স এসোসিয়েশন ইউকের জেনারেল সেক্রেটারি সিরাজুল বাসিত চৌধুরী, মোগলাবাজার ওয়েলফেয়ার এন্ড এডুকেশন ট্রাস্ট ইউকে’র চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুল মতিন, টিভি ওয়ান’র প্রেজেন্টার সাংবাদিক আমিমুল আহসান তানিম, বায়তুল আমান জামে মসজিদের এসিসটেন্ট সেক্রেটারি সৈয়দ জহুরুল হক, সিনিয়র সাংবাদিক আকবর হোসেন, সাংবাদিক লেখক মতিউর রহমান চৌধুরী, সাংবাদিক হাসনাত চৌধুরী, সাংবাদিক ফয়সল মাহমুদ, বাংলা পোস্টের সাবেক ম্যানেজিং ডাইরেক্টর শেখ বাসিতুর রহমান, বিশিষ্ট সমাজসেবী বদরুল ইসলাম, কমিউনিটি নেতা মোঃ শামসুদ্দিন, সুনামগঞ্জ সদর এসোসিয়েশন ইউকের প্রেসিডেন্ট মোঃ আব্দুল আজিজ, এম আর কুরিয়ার এণ্ড কার্গোর ডাইরেক্টর এমাদুর রহমান এমাদ, কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব তাহের রাজা চৌধুরী, ইঞ্জিনিয়ার সাজু আহমদ, কমিউনিটি নেতা আখলাকুর রহমান, আল-হামরা গ্রুপের চেয়ারম্যান মুহাম্মদ আনোয়ার হোসেন শাওন, উস্টারশায়ারের বিশিষ্ট কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব কাজী সাদ উদ্দিন আহমদ, কেমডেন সুরমা কমিউনিটি সেন্টারের সাবেক চেয়ারম্যান শামীম আহমদ, লন্ডন ট্রেইনিং সেন্টারের চেয়ারম্যান আব্দুল হক হাবিব, ব্যারিস্টার মুজিবুর রহমান, ফিস্ট এন্ড মিষ্টি রেস্টুরেন্টের ম্যানেজিং ডাইরেক্টর শরীফ ইসলাম, অ্যাকাউন্টেন্ট রাজু আহমদ, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী নূর লোদী, বিকাশ তান্দুরি রেস্টুরেন্টের স্বত্তাধিকারী সোলেমান আহমদ, ম্যাক্সওয়াল গ্রুপ ইউকের ডাইরেক্টর জান্নাতুল ইসলাম বাবুল, ব্যবসায়ী ইসপাক আহমদ, কমিউনিটি এক্টিভিস্ট মোঃ নাসির উদ্দিন, নাজমুল হাসান জাহিদ ও রফিকুল হক।

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close