Featuredসিলেট থেকে

সিলেট উইমেন্স মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ডাইরেক্টারগণের সাথে সাংবাদিকবৃন্দের মতবিনিময়

ঐতিহ্যবাহী সিলেট উইমেন্স মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের যুক্তরাজ্যে অবস্থানরত ডাইরেক্টার ও শেয়ার হোল্ডারগনের সাথে স্থানীয় প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দের এক মতবিনিময় সভা বিগত ৯ই এপ্রিল ২০১৮, সোমবার সন্ধ্যা ৭টায় ব্রিকলেনস্থ একটি রেস্টুরেন্টে অনুষ্ঠিত হয়।

সিলেট উইমেন্স মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পরিচালনা পর্ষদের অন্যতম সদস্য জনাব মইন উদ্দিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় উক্ত কলেজ ও হাসপাতালের সার্বিক উন্নতি ও অগ্রগতির বিস্তারিত তথ্য উপস্থিত গনের সম্মূখে তুলে ধরা হয়।

নারী শিক্ষার উন্নয়ন তথা নারী চিকিৎসক সৃষ্টির মহতি লক্ষ্যে মানবকল্যাণ এবং চিকিৎসা সেবার মহান ব্রত নিয়ে বিগত ২০০৫ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় সিলেট উইমেন্স মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল।

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কুল অব মেডিকেল সাইন্স এর অধীনে অধিভূক্ত বেসরকারী এই মেডিকেল কলেজটি কেবলমাত্র মেয়েদের উচ্চশিক্ষা তথা ডাক্তারী শিক্ষার সুযোগ করে দেবার জন্য মহিলা মেডিকেল কলেজ হিসাবে প্রতিষ্ঠিত হয়।

হলি সিলেট হোল্ডিং লিঃ কোম্পানীর সকল পরিচালক ও অংশীদারগনের মহৎ আকাঙ্খার প্রতিফলন ২০০৫ সালে প্রতিষ্ঠিত এই মেডিকেল কলেজ। প্রথম বছরে মাত্র ৫০ জন শিক্ষার্থী নিয়ে এর যাত্রা শুরু হয়। এই মেডিকেল কলেজ থেকে এমবিবিএস এবং আনুসাঙ্গিক উচ্চমানের সকল শিক্ষা সমাপন করে এ পর্যন্ত প্রায় চার শতাধিক নারী, ডাক্তারী পাশ করেছেন।

এ ছাড়াও বর্তমানে অধ্যয়নরত আছেন দেশী এবং বিদেশী মিলিয়ে পাঁচ শতাধিক শিক্ষার্থী। বিশেষজ্ঞ শিক্ষক প্রফেসর ডা. রেজাউল করিম বর্তমানে এই মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ হিসাবে দায়িত্বরত আছেন। প্রায় ১৮৪ জন অভিজ্ঞ ডাক্তার চিকিৎসক এই কলেজের শিক্ষকতার কাজে নিয়োজিত আছেন।

সিলেট শহরের মিরবক্সটুলায় প্রায় তিন একর ভূমির উপর প্রতিষ্ঠিত এই মেডিকেল কলেজে দেশী-বিদেশী নারী শিক্ষার্থীগনের চিকিৎসা বিজ্ঞানে অধ্যয়নের অত্যাধূনিক সুযোগ সুবিধা রয়েছে। গরীব মেধাবী কোটায় সুযোগ দেয়া হয় যথাযোগ্য শিক্ষার্থীগনকে। মেডিকেল কলেজের নিজস্ব বিশাল ভবন সহ রয়েছে ছাত্রীগণের অত্যাধূনিক আবাসিক হোস্টেলও।

সিলেট উইমেন্স মেডিকেল কলেজের নিজস্ব হাসপাতাল, সংলগ্ন ভবনে চালু আছে। ৬২৫ শয্যা বিশিষ্ট এই হাসপাতালে সকল প্রকার অত্যাধূনিক সরঞ্জাম এবং চিকিৎসা ব্যবস্থা রয়েছে। মেডিসিন, সার্জারী, গাইনী, শিশুরোগ, চক্ষুরোগ, হৃদরোগ ইত্যাদি বিভাগ সমূহে দেশের খ্যাতনামা বিশেষজ্ঞ ডাক্তারগণ এখানে চিকিৎসা সেবায় নিয়োজিত। গরীব রোগীদের জন্য বিশেষভাবে এবং বিনামূল্যে বা স্বল্পমূল্যে চিকিৎসার ব্যবস্থা রয়েছে। সিলেটের মধ্যে সবচেয়ে উন্নতমানের আইসিইউ এবং সিসিইউ এই হাসপাতালে বিদ্যমান। উন্নতমানের এবং সর্বধূনিক প্যাথলজি পরীক্ষার সর্বাধূনিক ব্যবস্থা রয়েছে।

এ ছাড়াও এই মেডিকেল কলেজের আওতায় এখানে চালু আছে একটি নার্সিং ইনস্টিটিউট। এখানে অভিজ্ঞ শিক্ষকগনের তত্ত্বাবধানে নার্সিং শিক্ষা ও প্রশিক্ষণের ক্লাস চালু আছে। প্রতিবছর এখানথেকে শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ নিয়ে অভিজ্ঞ নার্স হিসাবে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে এই পেশায় নিয়োগ পাচ্ছেন।

হলি সিলেট হোল্ডিং লিঃ বোম্পানীর আওতায় প্রতিষ্ঠিত এই মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল বর্তমানে বাংলাদেশে উল্লেখযোগ্য বেসরকারী হাসপাতালগুলোর মধ্যে অন্যতম। এর শিক্ষা, স্বাস্থ্যসেবা এবং ব্যবস্থাপনা ইত্যাদি এখন সুধীজন এবং সরকারের ও প্রশংসা কুঁড়িয়েছে। এর পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান হিসাবে দায়িত্বরত আছেন প্রফেসর ডা. এখলাছুর রহমান।

৯ই এপ্রিল অনুষ্ঠিত সিলেট উইমেন্স মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের উক্ত মতবিনিময় সভায় উপস্থিত পরিচালকগন তাদের প্রতিষ্ঠিত এই কলেজের উন্নয়ন মুলক এসব বিষয়ের বিস্তারিত বর্ণনা প্রদান করেন। তারা উপস্থিতগনের অনেক প্রশ্নেরও উত্তর দেন।

মতবিনিময় সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মেডিকেল কলেজ পরিচালনা পর্ষদের অন্যতম সদস্য জনাব আবুল মহসীন চৌধুরী, ড. ওয়ালী তসর উদ্দিন এমবিই, বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের সিলেট ৫ আসনের সাংসদ জনাব সেলিম উদ্দিন, ডা. রেজওয়ানুল করিম, মোস্তাক আহমদ, ডা. মুজিবুল হক, এমদাদ হোসেন চৌধুরী, ময়নূর রহমান বাবুল, আতাউর রহমান, শফিক উদ্দিন প্রমূখ।

এছাড়াও ডাইরেক্টারগনের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সর্বজনাব সালিক আহমদ, আবুল মোসিন চৌধুরী, এম এ হালিম চৌধুরী, আবসার আলী প্রমূখ।

সম্পূর্ণ অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা ও পরিচালনায় ছিলেন সিলেট মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অন্যতম ডাইরেক্টার জনাব ময়নূর রহমান বাবুল।

-প্রেস বিজ্ঞপ্তি

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close