Featuredযুক্তরাজ্য জুড়ে

তারেককে ফেরত নেবই, সাহস থাকলে স্বদ্চ্ছিায় দেশে যেতে বললেন প্রধানমন্ত্রী

বাংলাদেশের নাগরিকত্ব বর্জন করেছেন তারেক রহমান: পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী

শীর্ষবিন্দু নিউজ: বাংলাদেশ স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হওয়ায় যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে লন্ডনে বিশাল সংবর্ধনা প্রদান করা হয় ২১ এপ্রিল শনিবার।

তারেক রহমানকে ফেরাতে বৃটিশ সরকারের সঙ্গে কথা হয়েছে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, সাজাপ্রাপ্ত এই অপরাধীকে যেভাবেই হোক দেশে ফিরিয়ে আনা হবে। শনিবার লন্ডনের ওয়েস্টমিনস্টারে যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী একথা বলেন।

এ সময় তিনি বিএনপিরও কঠোর সমালোচনা করেন। এতে যুক্তরাজ্য ও ইউরোপ থেকে হাজারো নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি বৃটিশ সরকারের সঙ্গে কথা বলেছি। যে অপরাধী সাজাপ্রাপ্ত, সে কী করে এখানে থাকে? কাজেই তাকে তাড়াতাড়ি ফেরতৎ দেন। তিনি আরও বলেন, জিয়াউর রহমান খুনি, তার স্ত্রী খুনি এবং তার  ছেলেও খুনি। এই খুনিদের হাত থেকে দেশকে রক্ষা করতে হবে।

আপনাদের কাছে আমার অনুরোধ থাকবে, বাংলাদেশের বিরুদ্ধে অপবাদ ছড়ানোর উপযুক্ত জবাব দেওয়া। বাংলাদেশ আন্তর্জাতিকভাবে যে সম্মান  পেয়েছে সেটা রক্ষা করতে হবে। তারেক রহমানকে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন করার সমালোচনা করে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী বলেন, “বিএনপিতে কি চেয়ারপারসন হওয়ার মতো একটাও লোক ছিল না?

বাংলাদেশে মানবাধিকার লংঘন হচ্ছে বলে যারা বক্তব্য-বিবৃতি দিয়ে আসছেন, তাদের  উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ১১ লাখ মানুষকে আশ্রয়  দেওয়ার পরও কেউ যদি আমাদের মানবতাবিরোধী বলে, তারাই যে মানবতাবিরোধী, তারাই যে দোষী, তারাই যে অপরাধী, খুনি, দুর্নীতির্বাজ।

সমাবেশে প্রবেশ করতেই নেতাকর্মীদের দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে হয়। প্রত্যোক নেতাকর্মীসহ মিডিয়া কর্মীদের আমন্ত্রনপত্র আইডি পরিক্ষা করে ভিতরে প্রবেশ করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। হলের ভিতরে যখন প্রধানমন্ত্রী প্রবেশ করেন এর কিছুক্ষন পর থেকে সম্মেলন চাই সম্মেলন যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগের সম্মেলন বলে স্লোগান দিতে থাকে যুক্তরাজ্য যুবলীগের কর্মীরা।

যুক্তরাজ্য যুবলীগের সম্মেলন হচ্ছেনা দীর্ঘদিন। নিজেদের সম্মেলনের কথা বাদ দিয়ে যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগের সম্মেলন নিয়ে যুবলীগ ছাত্রলীগের আচরনে অনেকে প্রশ্ন তুলেছেন। যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগ অঙ্গ সংগঠনের কোন কোন নেতার বক্তব্যে সময় বক্তব্যকে বাঁধা প্রদান করতে যুবলীগ ছাত্রলীগের অতিমাত্রায় স্লোগান উদ্দেশ্যমূলক বলেও মন্তব্য করতে শুনা যায়।

তবে প্রধানমন্ত্রী তার বক্তব্যে সম্মেলনের দাবীকে কৌশলী বক্তব্যের মাধ্যমে প্রত্যাখান করেন। তিনি বলেন, আজকের যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগ অনেক বড় হয়েছে। অথচ আজ যারা নেতৃত্বে তারা অনেক কষ্ট করেছেন এই সংগঠনের জন্য। আমি নিজেও যুক্তরাজ্যের বিভিন্ন শহরে শহরে গিয়েছি তাদের সাথে। তখন মানুষ ভয়ে আসত না। জাতির পিতার মৃত্যু বার্ষিকীর লিফলেট বিতরন করা যেত না। প্রধানমন্ত্রী তার বক্তব্যের মাধ্যমে সম্মেলনের দাবীকে কৌশলে প্রত্যাখান করেন

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম জানিয়েছেন, বাংলাদেশ হাইকমিশনে পাসপোর্ট জমা দিয়ে বাংলাদেশের নাগরিকত্ব বর্জন করেছেন তারেক রহমান। সেই তারেক রহমান কিভাবে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্ব পালন করে?

শনিবার (২১ এপ্রিল) লন্ডনে প্রধানমন্ত্রীকে দেয়া যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এ তথ্য জানান পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম।

তিনি বলেন, তারেক জিয়া বাংলাদেশের সবুজ পাসপোর্ট হাইকমিশনে জমা দিয়ে বাংলাদেশের নাগরিকত্ব বর্জন করেছেন।

উল্লেখ্য, দীর্ঘ প্রায় ৯ বছর ধরে লন্ডনে রাজনৈতিক আশ্রয়ে আছেন তারেক জিয়া। ১/১১-এর সময়ে রাজনীতি না করার মুচলেকা দিয়ে চিকিৎসার জন্য লন্ডনে যান। এরপর থেকে লন্ডনে বসেই বিএনপির রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন।

সর্বশেষ দলটির চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া জেলে যাওয়ার পর থেকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপার্সনের দায়িত্ব পালন করছেন তারেক রহমান।

সংবর্ধনায় যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সভাপতি সুলতান মাহমুদ শরীফের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে আবদুল গাফফার চৌধুরী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এএইচ মাহমুদ আলী, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি বক্তব্য রাখেন।

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close