Featuredআরববিশ্ব জুড়ে

নারীদের রূপচর্চা বাড়ছে সৌদি আরবে

নেকাবের আড়ালে মেকআপে কোটি কোটি ডলার: ২০১৭ সালেই খরচ ৫৮ কোটি ডলার

শীর্ষবিন্দু আন্তর্জাতিক নিউজ: জনসম্মুখে মুখ ও চুল ঢাকতে হলেও রূপচর্চা বাড়ছে রক্ষণশীল সৌদি আরবের নারীদের। নেকাবের আড়ালে মেকআপের পেছনে অঢেল অর্থ খরচ করছে দেশটির নারীরা। ২০১৭ সালে দেশটির নারীরা মেকআপের ক্ষেত্রে খরচ করেছে ৫৮ কোটি ডলার।

চলতি বছরের শেষে এ বাবদ খরচের পরিমাণ আরও বাড়বে বলে ধারণা করা হচ্ছে। যুক্তরাজ্যভিত্তিক বাজার গবেষণা সংস্থা ইউরোমনিটর ইন্টারন্যাশনাল রোববার তাদের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে। খবর খালিজ টাইমসের। বাইরে বের হতে হলে সৌদি নারীদের মুখ ও চুল ঢেকে রাখতে হয়।

এজন্য তাদের স্বাভাবিক পোশাকের ওপর অতিরিক্ত ‘আবায়া’ নামে লম্বা ও ঢিলেঢালা পোশাক পরতে হয়। দেশটিতে নারীদের ব্যাপারে রয়েছে আরও কিছু কট্টর রীতিনীতি। সম্প্রতি এসব সামাজিক রীতিনীতি ও আইন বদলের কারণে আগের সংস্কার ঝেড়ে ফেলছে নারীরা।

এরই ধারাবাহিকতায় সৌন্দর্যচর্চা ও মেকআপের দিকে আগ্রহী হয়ে উঠছে তারা। অন্যতম বড় খরচের খাতে পরিণত হয়েছে মেকআপ। ইউরোমনিটর ইন্টারন্যাশনালের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নারীদের নতুন নতুন কর্মসংস্থানের সুযোগ সৌন্দর্য ও রূপচর্চার পণ্য ক্রয়ে তাদের উদ্বুদ্ধ করছে।

এক্ষেত্রে সৌদি নারীদের ওপর প্রভাব রয়েছে ফেসবুক ও ইউটিউবের মতো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোর। দেশটিতে ইউটিউবে ভিডিও দেখা ও পোস্ট করা নারীর সংখ্যা হু-হু করে বেড়ে চলেছে।

অনেক নারীই এখন ইউটিউবে জীবনযাপন, মেকআপ ও রান্নাবিষয়ক নানা ভিডিও পোস্ট করছেন। এসব প্রচুর পরিমাণে দেখছেন দেশটির নারীরা। এ মুহূর্তে সৌদি নারীদের মধ্যে ব্যাপক জনপ্রিয় মার্কিন গায়িকা রিহান্নার মেকআপ স্টাইল।

ইউটিউবের সুবাদে রিহান্না ও ফ্যাশন আইকন কিম কার্দাশিয়ানের মতো সেলিব্রেটিরা ব্যাপক পরিচিতি পেয়েছে। তাদের চুলের রং, মেকআপ স্টাইল থেকে শুরু করে পোশাক-পরিচ্ছদ পর্যন্ত অনুকরণ করছেন সৌদি নারীরা।

সৌদি আরবের বড় শহরগুলোর সঙ্গে সঙ্গে ছোট শহরগুলোয় গড়ে উঠছে সৌন্দর্য ও রূপচর্চার যাবতীয় সামগ্রীর দোকান।

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close