Featuredরাজনীতি

কারাগার থেকে দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন খালেদা

ঈদ উপলক্ষে নেত্রীর সঙ্গে দেখা করার অনুমতি পায়নি বিএনপি

রাজনীতি ডেস্ক: কারাবন্দি বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া দেশবাসী, দলের সব পর্যায়ের নেতাকর্মী ও সমর্থকদের ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

শুক্রবার নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান দলটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

খালেদা জিয়ার সঙ্গে বিএনপি নেতাদের দেখা করার অনুমতি এখনও পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। শনিবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে রাজধানীর শেরে বাংলা নগরে জিয়াউর রহমানের কবরে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

রিজভী বলেন, কারাগারে বিএনপি চেয়ারপারসনের সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন তারা স্বজনরা। তাদের সঙ্গে আমার কথা হয়েছে। স্বজনদের মাধ্যমে বিএনপির চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া কারাগার থেকে দেশবাসী ও দলের সব পর্যায়ের নেতাকর্মী-সমর্থকদের পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন এবং তার জন্য দোয়া চেয়েছেন।

এছাড়া বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানও পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে দেশবাসীসহ দলের সব পর্যায়ের নেতাকর্মী ও সমর্থকদের প্রতি শুভেচ্ছা জানিয়েছেন এবং দোয়া চেয়েছেন। দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরও দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন— জানান রিজভী।

রুহুল কবির রিজভী জানান, ঈদ উপলক্ষে সকালে শেরে বাংলা নগরে জিয়াউর রহমানের কবরে ফুল অর্পণ ও ফাতেহা পাঠ করা হবে। এরপর বিএনপি নেতারা খালেদা জিয়ার সাথে দেখা করতে কারাগারে যাবেন।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা শাহজাদা মিয়া, সহ-দফতর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু ও জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য আমিনুল ইসলাম।

মির্জা ফখরুল বলেন, আমরা খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করার জন্য একটি আবেদন করেছি। সেটির কোনও অনুমতি আমরা এখনও পাইনি। আমরা কারাগারের সামনে নেত্রীর সঙ্গে দেখা এবং কথা বলার জন্য যাবো। আশা করছি, আমরা অনুমতি পাবো।

তিনি বলেন, খালেদা জিয়া কারাগারে গুরুতর অসুস্থ। কিন্তু সরকার তার কোনও চিকিৎসার ব্যবস্থা করছে না। অবিলম্বে তাকে মুক্তি দিয়ে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করার জন্য নিরপেক্ষ নির্বাচনের ব্যবস্থা করতে হবে সরকারকে। খালেদা জিয়াকে রাজনীতি থেকে দূরে সরিয়ে রাখার জন্য মিথ্যা ও সাজানো মামলায় তাকে কারাবন্দি করে রাখা হয়েছে।

এসময় সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ফখরুল বলেন, খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে আমাদের আন্দোলন চলমান রয়েছে। বাংলাদেশের জনগণ আন্দোলনের মাধ্যমে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করবে। খালেদা জিয়া জামিন পাওয়ার পরেও সরকার বিভিন্ন ছল-চাতুরির মাধ্যমে তাকে কারাগারে আটকে রেখেছে।

বাংলাদেশের জনগণ বিষাদময় ঈদ পালন করছে উল্লখ করে তিনি বলেন, দেশের ১৬ কোটি জনগণের নেত্রীকে কারাগারে বন্দি রেখে বিষাদময় মন নিয়ে ঈদের নামাজ ও ঈদ পালন করছে জনগণ।

মাজারে শ্রদ্ধা নিবেদনের আগে খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য বিশেষ মোনাজাত পালন করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মশাররফ হোসেন, স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, নজরুল ইসলাম খান, ভাইস চেয়ারম্যান বরকতউল্লাহ বুলু, আহম্মেদ আজম খান, ড. জাহিদ হোসেন প্রমুখ। এসময় বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

আরও দেখুন...

Close
ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close