Featuredঅন্য পত্রিকা থেকে

সিলেটে বেহাল সড়কে ভোগান্তি মাথায় করে ছুটছেন পর্যটকরা

সাজিয়া আক্তার: অনুন্নত অবকাঠামো ব্যবস্থা আর বেহাল সড়কের কারণে থমকে আছে সিলেটের পর্যটন শিল্প। নানা ঝুট-ঝামেলা আর ভোগান্তি পেরিয়ে পর্যটকরা এখানে আসলেও সাথে নিয়ে যান তিক্ত অভিজ্ঞতা। সিলেটের জাফলং, বিছানাকান্দি রাতারগুল সড়কের বেহাল অবস্থার কারণে এবার ঈদের ছুটিতে পর্যটনদের পোহাতে হচ্ছে সীমাহীন ভোগান্তি।

প্রকৃতিকন্যা জাফলং, রাতারগুল, বিছানাকান্দি, পান্থময় ঝরনা আর লালাখালির অপরূপ সৌন্দয্যের কারণে সিলেটে ছুটে আসেন পর্যটকরা। আকাশে হেলান দেয়া দূর পাহাড়ে মেঘের খেলা আর চা বাগানের নৈসর্গিক সৌন্দর্যে বিমোহিত হন দেশি বিদেশি পর্যটকরা।

সিলেট বণিক সমিতির সভাপতি খন্দকার শিপার আহমেদ বলেন, সিলেটে পর্যটকরা অনেক কষ্ট করে আসেন। আমাদের এখানে জাফলংয়ের সড়ক যোগাযোগ অত্যন্ত নাজুক অবস্থা। এই সড়কের জন্য আমাদের পর্যটন শিল্প ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।

কিন্তু বড় বড় গর্ত আর খানাখন্দে ভরা জাফলং, বিছানাকান্দি, রাতারগুল ও পান্থময়ের অভ্যন্তরীণ সড়কগুলো। কাঁদাজল মারিয়ে চলাচলের অনুপযোগি এসব সড়ক দিয়ে যেতে হয় পর্যটকদের।

পর্যটকরা বলেন, এখানকার রাস্তাঘাট খুবই খারাপ, রাস্তায় অনেক কাঁদা আর ভাঙা, যেটা আমাদের আশা ছিল না। আমাদের যাতায়াতে অনেক কষ্ট হচ্ছে।

অচিরেই মুক্তি মিলছে না সড়কের এই ভোগান্তি থেকে। জেলা প্রশাসকও দিতে পারেনি কোনো সুখবর। তবে আগামী বছরের জুনের আগে সড়কগুলো মেরামতের আশ্বাস তার।

সিলেট জেলা প্রশাসক নুমেরী জামান বলেন, আমদের এখন প্রায় ১৪শ কোটি টাকার উপরে কাজ চলমান আছে। আগামী একবছরের মধ্যে এই সমস্যা সমাধান করব আমরা। আমরা আশা করছি রাস্তাঘাট সব ঠিক হয়ে যাবে আগামী জুনের মধ্যে।

সিলেটের সম্ভাবনাময় সেই পর্যটন বিকাশের পর্যটন কেন্দ্রগুলোর যোগাযোগ ব্যবস্থা ও অবকাঠামো উন্নয়নের দাবি জানিয়েছেন পর্যটন সংশ্লিষ্টরা।

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close