Featuredসিলেট থেকে

সিসিক নির্বাচনী হালচাল: নির্বাচন নিয়ে আমেজে সিলেট (পর্ব-৬)

শীর্ষবিন্দু নিউজ: প্রচার প্রচারণা শুরু হলেও এখনো সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের মেয়র প্রার্থীরা তাদের নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেননি।

শীঘ্রই আওয়ামী লীগ ও বিএনপির প্রার্থী তাদের ইশতেহারে প্রকাশ করবে। চারটি গুরুত্বপূর্ণ ইস্যুকে প্রাধান্য দিয়ে ডিজিটাল নগরী গড়ার ঘোষণা আসছে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর ইশতেহারে। আর বিএনপি প্রার্থীর নির্বাচনী ইশতেহারে থাকছে প্রাকৃতিক ভারসাম্য রক্ষা করে টেকসই উন্নয়ন পরিকল্পনা।

নির্বাচনী সংস্কৃতির অন্যতম অনুষঙ্গ প্রার্থীদের ইশতেহার ঘোষণা। প্রতীক বরাদ্দের পর থেকে প্রার্থীরা ভোটার সমর্থন আদায়ে সরব থাকলেও এখনো কেউই প্রকাশ করেননি ইশতেহার। শিগগিরই নির্বাচনী ইশতেহার প্রকাশ করা হবে এবং চারটি গুরুত্বপূর্ণ এজেন্ডা থাকবে ইশতেহারে, জানান নৌকা মার্কার প্রার্থী বদর উদ্দিন কামরান। তথ্য প্রযুক্তির সর্বোচ্চ ব্যবহার ও তরুণ মেধাবীদের কর্মসংস্থানের ঘোষণাও থাকবে বলে জানান তিনি।

প্রাকৃতিক ভারসাম্য বজায় রেখে পানি নিস্কাশন, শিশু স্বাস্থ্য বিষয়ে গুরুত্ব পাবে ধানের শীষের প্রার্থী আরিফুল হকের ইশতেহারে। নগরীকে সাইবার সিটিতে রূপান্তরের পরিকল্পনা, হকারমুক্ত ফুটপাত, যানজট নিরসন কল্পে আধুনিক পার্কিং ব্যবস্থাসহ পাবলিক বাস সার্ভিসের রূপরেখাও থাকবে তার ইশতেহারে।

এই দুই প্রধান প্রার্থীই এক বা একাধিকবার সিটি মেয়রের দায়িত্বে ছিলেন। কেউই শতভাগ সফল হতে পারেনি। তাই, শুধু নির্বাচনকে কেন্দ্র করে কোন প্রতিশ্রুতি নয়, বাস্তসম্মত পরিকল্পনা চায় নগরবাসী।

নির্বাচন নিয়ে তিন ওয়ার্ড মিলে ধারাবাহিক প্রতিবেদনে আজ তোলে ধরা হলো সিলেট সিটি করপোরেশনের আওতাভুক্ত ১৬নং ওয়ার্ড, ১৭নং ওয়ার্ড ও ১৮নং ওয়ার্ডের নির্বাচনী কার্যকলাপ।

১৬নং ওয়ার্ড: সিলেট নগরীতে প্রবেশ করলে ঠিকই বুঝে যাবেন নির্বাচনের বেশি বাকি নেই। আর সিটি কর্পোরেশনের ১৬ নং ওয়ার্ড ঘুরলে দেখা যাবে এই ওয়ার্ডে ঢেউ তুলেছে আসন্ন নির্বাচন। প্রতিটি পাড়া-মহল্লা, অলিগলিতে কেবল নির্বাচনী আলাপ।

সিলেট সিটি কর্পোরেশনের গত নির্বাচনে বিরল এক অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হয়েছিলো এ ওয়ার্ড। ভোটে সমান সমান হয়ে গিয়েছিলেন দুই প্রার্থী। সমান ভোট পেয়ে শীর্ষে ছিলেন আবদুল মুহিত জাবেদ ও জামাল আহমদ। পরে পুনর্নির্বাচনে বিজয়ী হন স্বতন্ত্র প্রার্থী আবদুল মুহিত জাবেদ।
আবারও এই ওয়ার্ডের প্রার্থীরা জমজমাট লড়াইয়ে নেমেছেন। বর্তমান কাউন্সিলর জাবেদের সাথে তার পুরনো প্রতিদ্বন্দ্বী ছাড়াও লড়াইয়ে নামছেন নতুন কিছু মুখও।

কাউন্সিলর হওয়ার দৌঁড়ে বেশ কয়েকজন শক্তিশালী প্রার্থী রয়েছেন। তাদের মধ্যে- বর্তমান কাউন্সিলর আবদুল মুহিত জাবেদ, সাব্বির আহমদ চৌধুরী, কুমার গণেশ পাল, মির্জা বেলায়েত আহমদ (লিটন), মো. তানিম খান, জমিয়তে উলামায়ে বাংলাদেশ সিলেট মহানগরের সহ-সভাপতি ক্বারী একরামুল আজিজ (একরাম), তমাল রহমান, শাহজাহান আহমদ, সাব্বির আহমদ চৌধুরী, রায়হান হোসেন কামাল।

সিলেট সিটি কর্পোরেশনের আওতাধীন ১৬নং ওয়ার্ড গঠিত- ধোপাদিঘির উত্তরপাড়, নাইওরপুল ও খ্রিস্টান মিশন, পশ্চিম, সওদাগরটুলা, খান্দাউড়া, হাওয়াপাড়া, তাঁতিপাড়া, খন্দকারটুলা, নয়াসড়ক, চারাদিঘিরপাড়, মজলিস আমীন, কুমারপাড়া সমন্বয়ে।

এই ওয়ার্ডেই খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের ধর্মীয় উপাসনালয় বড় গির্জা, ঐতিহ্যবাহী দি এইডেড হাইস্কুল, সিলেটের একমাত্র সরকারি মহিলা কলেজ, খাজাঞ্চিবাড়ি ইন্টারন্যাশনাল স্কুল, কিশোরী মোহন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, জিন্দাবাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ঐতিহ্যবাহী সিংহবাড়ি, ভোলানন্দ নৈশ বিদ্যালয়, বেবি কেয়ার একাডেমি, কাস্টমস অফিসের অবস্থান।

বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের সর্বশেষ হালনাগাদকৃত ভোটার তালিকানুযায়ী এই ওয়ার্ডের পুরুষ ভোটার ছিলেন ৪ হাজার ৬শ’ ৬২ জন, মহিলা ভোটার ৩ হাজার ৭শ’ ৩৯ জন। মোট ভোটার ছিলেন ৮ হাজার ৪শ’ ১ জন।

এবারের নির্বাচনে ভোটার সংখ্যা বেড়ে দাড়িয়েছে- পুরুষ ভোটার ৫ হাজার ৪০ জন, মহিলা ভোটার ৪ হাজার ১শ’ ৪৫ জন। মোট ভোটার ৯ হাজার ১শ’ ৮৫ জন।

১৭নং ওয়ার্ড: এই ওয়ার্ডের পাড়া-মহল্লাগুলোর অলি-গলি ঘুরলেই আভাস পাওয়া যায় সিলেটে নির্বাচনী একটা আমেজ চলছে। নির্বাচনের দিনক্ষণ ঘনিয়ে আসছে তাই নির্বাচনী হাওয়ার বেগ যেনো ততো বাড়ছে। অনেক আগে ভাগেই প্রচারণায় নেমে পড়া প্রার্থীরা এখনো দমে যাননি।
সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে এ ওয়ার্ডে হাওয়া লেগেছে বেশ-আগেই। নির্বাচনের মাঠে নেমেছেন প্রার্থীরা।

তবে প্রচার-প্রচারণায় এগিয়ে রয়েছেন বর্তমান কাউন্সিলর দেলওয়ার হোসেইন সজীবই। তার সাথে পাল্লা দিয়ে প্রচারণা চালাচ্ছেন বিগত নির্বাচনে দিলওয়ার হোসেইন সজীবের নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী রাশেদ আহমদ। এই দু’জন ছাড়া এবার এই ওয়ার্ডে আর কোন প্রার্থী নেই।

এই ওয়ার্ডেই অবস্থিত- হযরত শাহজালাল (রহ.) এর সফরসঙ্গী ৩৬০ আউলিয়ার সফরসঙ্গীদের মাজার, হযরত মানিকপীর (রহ.) এর মাজার শরীফ ও সিটি গোরস্থান, ঐতিহ্যবাহী গৌড়গোবিন্দের টিলা এবং রয়েছে বাংলাদেশের স্থাপত্য কীর্তির অন্যতম নির্দশন শাহী ঈদগাহ।

এছাড়াও রয়েছে- বাংলাদেশ টেলিভিশনের সম্প্রচার কেন্দ্র, বাংলাদেশ তার ও টেলিফোন অফিস।

নির্বাচন কমিশনের সর্বশেষ হালনাগাদকৃত তালিকানুযায়ী এই ওয়ার্ডে পুরুষ ভোটার ছিল ৪ হাজার ৬শ’ ৬২ জন। আর নারী ভোটার ৫ হাজার ৬শ’ ৯ জন। মোট ভোটার সংখ্যা ছিল ১২ হাজার ৭শ’ ৩৯ জন।

এবারের নির্বাচনে ভোটার সংখ্যা বেড়ে দাড়িয়েছে, পুরুষ ভোটার ৭ হাজার ৬শ’ ২৬ জন। মহিলা ভোটার সংখ্যা ৬ হাজার ১৪ জন। মোট ভোটার ১৩ হাজার ৭শ’ ৩০ জন।

১৮নং ওয়ার্ড: সিলেট নগরীতে ঘুরে বেড়ালে চোখে পড়বে নগরীর ওয়ার্ডগুলোতে সম্ভাব্য কাউন্সিলর প্রার্থীদের তুমুল ব্যস্ততা। এতে যে কেউ বুঝে যাবেন খুব শীঘ্রই নির্বাচন আসছে।

হা, আগামী ৩০ জুলাই অনুষ্ঠিত হচ্ছে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের চতুর্থ পরিষদের নির্বাচন।

সিলেট নগরীর ব্যস্ততম ১৮ নং ওয়ার্ডে ইতিমধ্যে বইতে শুরু করেছে নির্বাচনী হাওয়া। এই ওয়ার্ডের প্রার্থীরা পুরোদমেই প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। নির্বাচনী আবহ অন্য ওয়ার্ডগুলো থেকে একটু বেশিই দেখা গেছে এই ওয়ার্ডে। তবে গতবারের চেয়ে এবার এই ওয়ার্ডে প্রার্থী সংখ্যা কম।

এবারের নির্বাচনে এগিয়ে রয়েছেন শক্তিশালী প্রার্থী বর্তমান কাউন্সিলর এবিএম জিল্লুর রহমান উজ্জল। তিনি গত দুইবারের দুই মেয়াদে ওয়ার্ডে জনপ্রতিনিধির দায়িত্বে ছিলেন।

একই ওয়ার্ডে লড়াইয়ে আরো যারা নামছেন। তারা হলেন- শামসুর রহমান কামাল, নজমুল ইসলাম এহিয়া, সাজেদ আহমদ চৌধুরী, সাজওয়ান আহমদ চৌধুরী, মো. সালমান চৌধুরী। এই ওয়ার্ডে আগে এক সময় ওয়ার্ড কমিশনার ছিলেন সদ্য সাবেক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী।

এই ওয়ার্ডের অর্ন্তগত এলাকাসমূহ- সোনাতলা, পূর্ব কুমারপাড়া, ঝেরঝেরিপাড়া, ঝরণারপাড়, নয়াপাড়া, দক্ষিণ শাহী ঈদগাহ, উত্তর মিরাবাজার, আগপাড়া, ব্রজনাথটিলা, মুক্তার খা কিরমানী (পশ্চিমাংশ) ও শাখারীপাড়া।

নির্বাচন কমিশনের সর্বশেষ হালনাগাদকৃত তালিকানুযায়ী এই ওয়ার্ডের পুরুষ ভোটার ছিলেন ৫ হাজার ৪৯৮ জন, মহিলা ভোটার ছিলেন ৪ হাজার ৯০০ জন। মোট ভোটার ছিলেন ১০ হাজার ৩৯৮ জন।

এবারের নির্বাচনে ভোটার সংখ্যা বেড়ে দাড়িয়েছে- পুরুষ ভোটার ৫ হাজার ৯২৬ জন। মহিলা ভোটার সংখ্যা ৫ হাজার ৩০১ জন। মোট ভোটার সংখ্যা ১১ হাজার ২২৭ জন।

নোট: সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন নিয়ে শীর্ষবিন্দু নিউজে ‘সিসিক নির্বাচনী হালচাল‘ প্রকাশিত হবে ধারাবহিকভাবে। এতে যে কোন কেউ কোন তথ্য বা খবর দিয়ে শীর্ষবিন্দুকে সহায়তা করতে আহবান জানানো যাচ্ছে। ইমেইল: news@shirshobindu.com

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close