Featuredসিলেট থেকে

সিসিক নির্বাচনী হালচাল: নির্বাচন নিয়ে আমেজে সিলেট (পর্ব-৭)

শীর্ষবিন্দু নিউজ: আগামী ৩০শে জুলাই একসঙ্গে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে সিলেট, রাজশাহী ও বরিশাল সিটি করপোরেশন নির্বাচন।

এর আগে খুলনা ও গাজীপুরের নির্বাচনে নানা অনিয়মের অভিযোগের মধ্যেই এই তিন সিটির নির্বাচনে এখন ব্যস্ত সময় পার করছেন সব দলের মেয়র প্রার্থীরা।

কিন্তু এসব এলাকায় নির্বাচনের পরিবেশ এখন কেমন?

সব দলই কি প্রচারণার সমান সুযোগ পাচ্ছে?

সিলেটে বিএনপি’র মেয়র প্রার্থী অবশ্য অভিযোগ করছেন, সেখানে প্রচারণায় নামতে গিয়ে সরকারি দলের কাছ থেকে নানারকম বাধার মুখে পড়ছেন তারা।

এমনকি নির্বাচনকে ঘিরে দলে ও জোটের মধ্যে যে প্রকাশ্য বিভক্তি এর পেছনেও সরকারি দলের হাত রয়েছে বলে অভিযোগ বিএনপি’র। যদিও তা নাকচ করে দিচ্ছে আওয়ামীলীগ।

কিন্তু সিলেটে নির্বাচনী পরিস্থিতি ঠিক কিরকম? আর সেখানে বিএনপি ও জোটের মধ্যে বিভক্তির তাৎপর্যই বা কতটা?

সিলেট নগরীতে ঢুকতেই নির্বাচনের উত্তাপটা বেশ টের পাওয়া গেল।

সবখানেই মেয়র প্রার্থীদের প্রতীক সম্বলিত পোস্টার-ফেস্টুনে ছেয়ে আছে। সেগুলোতে যেমন দেখা যাচ্ছে আওয়ামীলীগের একক মেয়র প্রার্থীর ছবি, তেমনি বিএনপি’র প্রার্থীর পোস্টারও সবখানে দৃশ্যমান।

নির্বাচন নিয়ে তিন ওয়ার্ড মিলে ধারাবাহিক প্রতিবেদনে আজ তোলে ধরা হলো সিলেট সিটি করপোরেশনের আওতাভুক্ত ১৯নং ওয়ার্ড, ২০নং ওয়ার্ড ও ২১নং ওয়ার্ডের নির্বাচনী কার্যকলাপ।

১৯নং ওয়ার্ড: নিবার্চনকে সামনে রেখে নগরীর এই ওয়ার্ডের পাড়া-মহল্লা, অলি-গলি জুড়েও বিরাজ করছে অন্যরকম আবহ। তোড়জোড় শুরু হয়েছে সম্ভাব্য প্রার্থীদের মধ্যে। আসন্ন নির্বাচনে পাশে থাকার জন্য সহযোগিতা ও দোয়াও চাচ্ছেন তারা।

প্রচারণার শেষ সময়ে প্রার্থীরা ভোটারদের দৃষ্টি আকর্ষণের এবং সমর্থন প্রাপ্তির জন্য যোগাযোগ করছেন। নিজেদের সক্ষমতা ও যোগ্যতা তুলে ধরছেন। আর প্রতিশ্রুতির বন্যা ভাসিয়ে দিয়ে ভোটার মন জয়ের চেষ্টার চালিয়ে যাচ্ছেন নিরন্তর।

এ ওয়ার্ডের বর্তমান কাউন্সিলর সিলেট মহানগর বিএনপি নেতা দিনার খান হাসু। টানা তিন মেয়াদে দায়িত্বে কাউন্সিলর হাসুর সাথে মাঠে নেমেছেন এবার নতুন প্রার্থীদের মধ্যে বাংলাদেশ মানবাধিকার বাস্তবায়ন ফাউন্ডেশন সিলেট মহানগর শাখার ও শাহমীর প্রাথমিক বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সহ-সভাপতি এস এম শওকত আমীন তৌহিদ, তরুণ সমাজসেবক জমশেদ সিরাজ ও সমাজ সেবক আফজালুর রহমান।

জামশেদ সিরাজ এবার নতুন প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশ নিলেও পরিবর্তনের শ্লোগান নিয়ে মাঠে কাজ করছেন এস.এম শওকত আমীন তৌহিদ। তাই ভোটারদের মতে, হাসুর সাথে শক্তশালী প্রার্থীদের মধ্যে শওকত আমীন তৌহিদ ও জমশেদ সিরাজই বেশি উঠে আসছেন আলোচনার প্রসঙ্গে।

১৯ নম্বর ওয়ার্ডের আওতাভুক্ত নির্বাচনী এলাকা- শাহী ঈদগাহ (পূর্বাংশ), রায়নগর মুক্তার খা কিরমানী (পূর্বাংশ), দর্জিপাড়া, দর্জিবন্দ, সোনারপাড়া, আলমটুলা, দপ্তরীপাড়া, খাঁরপাড়া নিয়ে গঠিত।

বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের সর্বশেষ হালনাগাদকৃত তালিকানুযায়ী এই ওয়ার্ডের বর্তমান মোট পুরুষ ভোটার সংখ্যা ছিল ৫ হাজার ৭শ’ ১৩ জন। নারী ভোটার সংখ্যা ছিল ৫ হাজার ১২৮ জন। আর মোট ভোটার সংখ্যা ছিল ১০ হাজার ৮শ’ ৪১ জন।

যা হালনাগাদ হয়ে বর্তমানে পুরুষ ভোটার সংখ্যা ৬ হাজার ৪৮ জন। আর মহিলা ভোটার সংখ্যা ৫ হাজার ৩শ’ ৮১ জন। আর ১১ হাজার ৪২৯ জন।

২০নং ওয়ার্ড: সিলেট সিটি করপোরেশনের নির্বাচনী এই এলাকায় নির্বাচনের হাওয়ার তোড়ে ভাসছে এই ওয়ার্ড।

চায়ের আড্ডা থেকে শুরু করে সব আলাপেই উঠে আসছে শুধু আসন্ন নির্বাচন নিয়ে। কোথাও এক দু’জন জমলেই এক দু’ কথার পর আলাপ মোড় নেয় সিলেট সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচন প্রসঙ্গে।

এই ওয়ার্ডের প্রার্থী ও বর্তমান ওয়ার্ড কাউন্সিলর আজাদুর রহমান আজাদ একমাত্র প্রার্থী যিনি বিনাভোটে বিজয়ের পথে এগিয়ে আছেন। তাই আনঅফিসিয়ালি তিনি্‌ আগামী দিনের এই ওয়ার্ডের কাউন্সিলার।

এই ওয়ার্ডের আওতাধীন নির্বাচনী এলাকাসমূহ-গোপালটিলা, ভাটাটিকর, দক্ষিন বালুচর, নাথপাড়া, খরাদিপাড়া, আদিত্যপাড়া, ধোপার ব্রাহ্মণপাড়া, সেনপাড়া, রায়নগর, দাসপাড়া, দেবপাড়া, মজুমদারপাড়া,সাদিপুর, লাকড়িপাড়া, শিবগঞ্জ নিয়ে গঠিত।

বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের সর্বশেষ হালনাগাদকৃত ভোটার তালিকানুযায়ী এই ওয়ার্ডের মোট পুরুষ ভোটার সংখ্যা ৫ হাজার ৪ শত ২৯ জন। মহিলা ভোটার সংখ্যা ৫ হাজার ১ শত ৩৫ জন। আর মোট ভোটার সংখ্যা ১০ হাজার ৫ শত ৬৪ জন।

২১নং ওয়ার্ড: সিলেট সিটি কর্পোরেশনের আওতাধীন এই ওয়ার্ডের অলিতে গলিতে শুধুই নির্বাচনী আলোচনা। এই ওয়ার্ডের বিভিন্ন পাড়া-মহল্লা ছেয়ে গেছে প্রার্থীদের পোস্টার আর ব্যানারে। প্রার্থীরাও নিজেরা নিজেদের মতো ঘুরছেন ভোটারদের বাড়ি বাড়ি।

এ ওয়ার্ডে আসন্ন সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে প্রার্থী হিসেবে আছেন বর্তমান কাউন্সিলর স্বেচ্ছাসেবকদল নেতা আব্দুর রকিব তুহিন। বর্তমান কাউন্সিলার হওয়ায় কিছুটা শক্ত অবস্থানে রয়েছেন তিনি।

তার সাথে সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন আরোও বেশ কয়েকজন প্রার্থী। এবার প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আছেন সিলেট মহানগর স্বেচ্ছাসেবকলীগের সহ-সভাপতি মুহিব উস সালাম রিজভী, মহানগর বিএনপি সাহেদুর রহমান সাহেদ, যুবলীগ নেতা গোলাম রহমান চৌধুরী রাজন।

আসন্ন সিটি নির্বাচনে এই ৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এরমধ্যে তুহিন, রিজভী, সাহেদ ও রাজনের মধ্যেই মূল লড়াই হবে এমনটিই আভাস পাওয়া যায়।

এই ওয়ার্ডের নির্বাচনী এলাকাসমূহ- লামাপাড়া, লামাপাড়া উত্তর-পশ্চিম, ছাপাবনপাড়া, সোনারপাড়া, খণ্ডিকরপাড়া ১, খণ্ডিকরপাড়া ২, ঠাকুরপাড়া, হাতিমবাগ, গঙ্গাদাস, বোরহানবাগ, টিকরিপাড়া, তইয়াটিকর গোলাপবাগ, নিষ্করপাড়া, ভাটাটিকর একাংশ, কালাশিল, রাজপাড়া, কল্যাণপুর-শাপলাবাগ নিয়ে গঠিত এই ওয়ার্ড।

বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের সর্বশেষ হালনাগাদকৃত ভোটার তালিকানুযায়ী এই ওয়ার্ডের পুরুষ ভোটার ছিলেন ৫ হাজার ৪৭৯ জন। মহিলা ভোটার ছিলেন ৩ হাজার ৯৭৮ জন। মোট ভোটার সংখ্যা ছিল ১০ হাজার ৭৫০ জন।

বর্তমানে পুরুষ ভোটার ৫ হাজার ৯৯৭ জন। আর মহিলা ভোটার ৫ হাজার ৭৮৯ জন। মোট ভোটার ১১ হাজার ৭৮৬ জন।

নোট: সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন নিয়ে শীর্ষবিন্দু নিউজে ‘সিসিক নির্বাচনী হালচাল‘ প্রকাশিত হবে ধারাবহিকভাবে। এতে যে কোন কেউ কোন তথ্য বা খবর দিয়ে শীর্ষবিন্দুকে সহায়তা করতে আহবান জানানো যাচ্ছে। ইমেইল: news@shirshobindu.com

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close